ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

গতকাল প্রথম আলোতে শিরোনামের অনলাইন সংস্করনে পাঠকদের অনেক রকম মতামত পড়ছিলাম । মন্তব্যগুলো এখানে পেষ্ট করছি –

Habib
২০১২.১১.২০ ০৩:২১
Thank you Mr. President. We hope you will follow up the matter.

Monzur
২০১২.১১.২০ ০৪:০৯
রোহিঙ্গা বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ওবামার মন্তব্য বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরত্বপূর্ণ। আমার মতে এটি বাংলাদেশ সরকারের সফল কুটনৈতিক তৎপরতারই ফলাফল। রোহিঙ্গা প্রশ্নে সরকার আপোষহীন ছিল বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। আশা করছি বার্মিজরা তাদের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির প্রতি সদয় হবে এবং বাংলাদেশে বসবাসকারী সব রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত নেবে।
২০১২.১১.২০ ০৪:৩৩
আমার ভোটের কিছু সার্থকতা

Osman Mia
২০১২.১১.২০ ০৫:৪৩
thanks a lots obama for talking about rohinga……

mukta rahman
২০১২.১১.২০ ০৫:৫২
অং সান সুচি কি লজ্জা পেলেন, ওবামার এই ঘোষণায় ? আজ কদিন রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে সুচির যুক্তিহীন কথা বার্তায় নিজেরই লজ্জা করছিল।

K arim Howleder
২০১২.১১.২০ ০৬:৫৯
I like to congrats to president & FS of USA for bringing Rohinga matter in front….

md.nahiduzzaman(Raju)
২০১২.১১.২০ ০৭:০২
দননবাদ জানাই ওবামা কে
md.nahiduzzaman(Raju)
২০১২.১১.২০ ০৭:০৪
বারমা সরকারের নিশচই কন কিসু বুঝতে বাকি নাই ,,,,,,,,,,,,,

মাহতাব হোসেন # বাউফল # পটুয়াখালী #
২০১২.১১.২০ ০৭:৩০
বারাক ওবামা মায়ানমার সরকার ও সেদেশের সংখ্যাগুরু জনগণকে রোহিঙ্গাসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু জনগণকে মেনে নেয়া এবং মূল সমাজে আত্মীকরণের যে আহ্বান জানিয়েছেন, তাকে আমরা স্বাগতঃ জানাই। সেই সাথে সাথে তার দেশকেও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে আগ্রাসী-সাম্রাজ্যবাদী দেশের বদনাম পরিমোচনের ব্যাবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাই।

Salekin
২০১২.১১.২০ ০৭:৫৩
Thank you Obama !

Rashed Khan
২০১২.১১.২০ ০৮:০৩
Well done, Mr. Obama.

Saleh Ahmed
২০১২.১১.২০ ০৮:২০
রহিঙ্গারা মুসলমান হওয়ার কারণে আজ তারা সকল অধিকার থেকে বঞ্চিত। কিন্ত তারা যদি খিষ্ট্রান বা ইহুদি হইত তাহলে আন্তজাতিক সম্প্রদায় মি. থেইনের ঠুঠি চেপে ধরত। কিন্তু মুসলমান হওয়ার কারণে এখন শুধু সহানূভ’তি দেখাচ্ছে।

syed Kamal mohammad Mukul
২০১২.১১.২০ ০৮:২৬
ছবি দেখে মনে হছছে রোহি;গা দের সমস্যা সহজে মেটার নয় !

akm shafiqul azam
২০১২.১১.২০ ০৮:৪৪
এটি যদি োনার মনের কথা হয় এবং উনি যদি তা বাস্তবায়ন করতে পারেন তবে, আমি তার পূর্বসূরীরা যারা ইসলাম ধর্মের অনুসারি ছিলেন তাদের অন্তর থেকে দোয়া করছি তারা যেন জান্নাত বাসী হন।

Rahul
২০১২.১১.২০ ০৯:০৯
LONG LIVE MR. BARAK OBAMA.

Prodeep Roy
২০১২.১১.২০ ০৯:১২
রোহিঙ্গা ইস্যুতে অং সান সু চির বক্তব্য অত্যন্ত হতাশাজনক…!!!

Mohammed Zahurul Hoque
২০১২.১১.২০ ০৯:২৭
আলহামদুলল্লাহ্ , প্রেসিডন্ট ওবামার কথায় কাজে খুবই খুশী হয়েছি । তার জন্য আমার প্রান ঢালা দোয়া হলো তাকে যেন আল্লাহ্ পুর্ন ঈমান দান করেন এবং বর্তমান ধংসোন্মুখ পৃথিবীতে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য তওফিক দান করেন। আমিন ।

Sanjay
২০১২.১১.২০ ০৯:৩৬
I salute His Excellency US President, Mr. Barack Obama for his a historic speech in Myanmar yesterday to urge an end to sectarian unrest in the western state of Rakhine, saying there was “no excuse for violence against innocent people”.
May I request the Noble Committee to take back noble for peace, which is holding Ms. Aung San Suu Ky. (so called pro-democracy leader)

Md. Aliuzzaman
২০১২.১১.২০ ০৯:৪২
It is the great sympathy of President Barak Obama so we wish the good result with in short time accordingly.

Aminul Ahesan
২০১২.১১.২০ ০৯:৫৬
Thank you Mr. President.

Md.Syful Islam
২০১২.১১.২০ ১০:০০
Thanks a lot Mr.President Obama,you really great. I think the peaceful people of USA have taken a good decision.

Azad Abul Kalam
২০১২.১১.২০ ১০:১০
ধন্যবাদ, ওবামা। আশা করব, আপনার এ ভাষন থেকে থেইন সেইন আর ক্ষমতাতন্ত্রপন্থী নেত্রী সূচি কিছু শিক্ষা নেয়ার চেষ্টা করবেন। আর বাংলাদেশের ক্ষমতায় বসে যে সব মানুষ রূপী অমানুষ রোহিঙ্গাদের ন্যূনতম মানবিক সহযোগিতা পাওয়ার অধিকারকে অবজ্ঞা করে ওদেরকে চোর-ছ্যাচ্চড়, অপরাধপ্রবণ ইত্যাদি অভিধায় অভিহিত করে আসছিলেন, তারা আত্মসমালোচনা করার তাগিদ অনুভব করবেন।

Md Nazim Uddin Sylhet
২০১২.১১.২০ ১০:১১
Thank you Mr Barak Hussain Obama !

Shahed Imran Khan
২০১২.১১.২০ ১০:২০
অনেক ধন্যবাদ প্রেসিডেন্ট বারাক হুসাইন ওবামা রোহিঙ্গাদের অধিকার নিয়ে কথা বলায় । ভবিষ্যতে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে চাপ অব্যাহ্যত রাখবেন। আশা করি ওনার মেয়াদে ফিলিস্তান সমস্যা সমাধান করে যাবেন ।

monir
২০১২.১১.২০ ১০:২৬
ওবামার সাথে বৈঠকে সু চি মিয়ানমারের রাজনৈতিক সংস্কার নিয়ে অতিরিক্ত আশা করা ঠিক হবে না বলে ওবামাকে সতর্ক করে দেন। আসলে উনি এখন মিয়ানমারের সামরিক জান্তা প্রেসিডেন্ট থেইন সেইনের প্রধান দোষর। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গা গোষ্ঠীর ওপর নিপীড়নের বিষয়ে আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী উদ্বিগ্ন হলেও সু চি বরাবরই বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। নীরবতাই সম্মতির লক্ষন।সম্প্রতি নয়াদিল্লি সফরকালে তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ থেকে বেআইনি অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে হবে।’ যেসব রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করছে, তাদের ফেরত নিতেও তিনি অস্বীকার করেছেন বলে সে খবরে জানা যায়।

Iran Bhuiyan
২০১২.১১.২০ ১০:২৯
Really he is “World Leader”

zahid hasan rafique
২০১২.১১.২০ ১০:২৯
Thank you Mr. Obama. i hope you will follow up the matter.

Engr. MA Razzaque, Kurigram
২০১২.১১.২০ ১০:৩২
Thanks Mr Obama. It seems a good effort by our foreign ministry. Burma can not be democratic without solving such critical issues. Su Chi should be ashamed for holding a Noble Peace prize.

@Azad Abul Kalam: Your comment about BD govt is not fair enough in this topic. You shouldn’t think from the point of Human Rights of a few lacs Rohyngya people, you should rather think from our 16 crores perspective. People like you often pretend to be relative of remote people instead of being good neighbor of the next doors.

Abu Mohammad Shoyeb
২০১২.১১.২০ ১০:৩৫
Thank you Mr. President.

Reehan Rafaan
২০১২.১১.২০ ১০:৪৫
Thanks Mr. Obama.

M Z HAQ
২০১২.১১.২০ ১০:৫৪
We heard President Obama declaring similar thing in his first presidential speech that he would work toward a better relationship with Muslim world. But in reality we saw him signing rounds of sanctions against Iran, lying about separate Palestinian state, doing nothing for the innocent children and women in the Gaza strip, sending more troops in Iraq and making West’s relationship with Islamic world even more vulnerable.

MD.MANIK AKAND
২০১২.১১.২০ ১০:৫৮
ওবামাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ ও দোয়া রইলো।
২০১২.১১.২০ ১১:০৬
এই দুই শান্তি পুরস্কার বিজয়ী যেন মানবতার সাথে উপহাস!

Manik Majumder
২০১২.১১.২০ ১১:২৩
Thank you OBAMA to visit Asia first. We wish you all the best.
২০১২.১১.২০ ১১:৩৬
Cordial appreciation to Mr Obama for his nice speech! Both Myanmar and Bangladesh would be benefited if Myanmar Govt. honor and take necessary steps as per Mr. Obama’s suggestion regarding Rohinga Muslims.

mizanul hasan
২০১২.১১.২০ ১১:৫২
Thanx to Mr.Obama for telling nicely about ‘Rahingga’ issue in his speech.I guess it will help to open the door of peace in burma

kaniz
২০১২.১১.২০ ১২:১০
বারাক ওবামাকে অসংখ্য ধন্যবাদ রোহিঙ্গা ইস্যু টিকে প্রাধান্য দেয়ার জন্য। মায়ানমার সরকারও এক্ষেত্রে উনার কথার গুরুত্ব বুঝে কাজ করবে বলে আমরা আশা করি। আমরা আরও আশা করব উনি এবার ইজরাইল , ফিলিস্থানের সমস্যার সমাধান করবেন। মুসলিম বিশ্ব উনার উপর অনেক আশা করে আছে।

Mohammad Shah Alam
২০১২.১১.২০ ১২:২৭
ওবামা অাপনাকে ধন্যবাদ । মানুষের জন্য কথাবলাই রাজনীতি । অাশা করব মিয়ানমার অাপনার কথা মানবে ।

Sk. Abdullah
২০১২.১১.২০ ১২:২৯
Thanks Obama !

Mohammad Shah Alam
২০১২.১১.২০ ১২:৩২
প্রিয় প্রথম আলো এতগুলো ধন্যবাদ কি ওবামাকে পৌছে দেয়া যায় না ?

mohammed mohiuddin
২০১২.১১.২০ ১২:৩৫
Thanks Mr. Obama

Kaisar Rahman
২০১২.১১.২০ ১২:৪০
Thank you President Obama. You stood by the oppressed people. It is the duty of every one to stand by the oppressed innocent people, regardless of the religious differences.

jalal uddin
২০১২.১১.২০ ১৩:০৮
thanks obama.

M. Rahman
২০১২.১১.২০ ১৩:০৮
Thanks to Dr. Yunus for his role in this issue.
The reason is-
If Dr yunus is accused for something against Bangladesh by USA (like Padma bridge), then he must be appraised if USA does anything that benefits us.

Biplob Biswas
২০১২.১১.২০ ১৩:১০
আমরা বাস্তবায়ন দেখতে চাই, আর দয়া করে গাজায মানুষ হত্যা বন্ধ করুন ………।

Adhir Dutta
২০১২.১১.২০ ১৩:১০
যেসব দেশি ভাইয়েরা রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখে সহানুভূতির ঝাণ্ডা উড়িয়ে যাচ্ছেন তাদেরকে বলছি, টেকনাফে এসে মানুষের সাথে একবার কথা বলে নিন। দেশি মুসলিম ভাইদের বলছি, যারা আরব দেশে কাজ করেন তাদের কি হাল করে ছেড়েছে ঐ দেশগুলো একটু পারলে চোখ বুলিয়ে নেন। এখন রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে গেলে সুযোগ পেয়ে আসামের মুসলিমদেরও বাংলাদেশে ঠেলে দেয়া হবে, বলা হবে ওরাও অভিবাসী। রোহিঙ্গারা বার্মায় সেই মোগল আমলেরও আগে থেকে ঐ জায়গায় বসবাস করে আসছে, আর দেশভাগ হয়েছে বহু পরে। সুচিও সুযোগ সন্ধানী, ক্ষমতার লোভ ঢুকেছে!! সমুদ্র হাত ছাড়া হওয়ার পর মিয়ানমারের এই উস্কানির শুরু।

Ronnie
২০১২.১১.২০ ১৩:১৮
I wish humanity will prevail in Burma.
Sardar Younus
২০১২.১১.২০ ১৩:২১
His action like a hot bull when it gets a lovely cow in its territory!

jaker
২০১২.১১.২০ ১৩:২৩
জনাব সােলহ অাহেম্মদ সােহেবর মন্তব্যেেক সমর্থন করিছ েসই সােথ অামার দীর্ঘ িদন েথেক ধারণা িছল পৃিথবীেত একমাত্র ত্যাগী েনত্রী িছল অং সান সুিচ। যার কােছ মানবতা, সত্য সততা ন্যয়পরায়নতা িবেবক িছল সবার ঊের্ধ। িকন্ত যখন এনিডিটিভেত িতিন েরািহঙ্গা এবং বাংলােদশেক েকন্দ্র কের িচরাচিরত রাজনীিতেকর এবং িনজ েদেশর সার্থেক বড় কের েয মন্তব্য কেরেছন তা তার হীনমন্যতার পিরচয় বহন কের। েসই সােথ তার েনােবল প্রািপ্ত এবং গণতেত্ন্রের মানস কণ্যা নামক খ্যািত দুিটেক ম্লান কের েদয়। তার েচেয় মালেয়িশয়ার মাহিথর েমাহাম্মদ এবং দিক্ষণ অািফ্রকার েনলসন ম্যােন্ডলা অেনক শ্রেদ্ধয়।
২০১২.১১.২০ ১৩:২৫
এত্ত খুশি হওয়ার কিছু নাই। স্বার্থ ছাড়া মার্কিনীরা যে কিছু করে না সেইটা প্যালেস্টাইনের দিকে তাকিয়ে কি বোঝেন না?? ওদের এই ডাবল স্ট্যান্ডার্ড মানব জাতির জন্য লজ্জাজনক।

Md.Kawsar ali
২০১২.১১.২০ ১৩:২৭
Thank you so much Obama

sakayet ullah
২০১২.১১.২০ ১৩:৫১
Obama is a realy geat Leader. We can pray for him and Rohinga Muslims.

Sardar Younus
২০১২.১১.২০ ১৪:২৬
His action is like a hot bull after getting a lovely cow in its territory.

M. Tanvir Siddiki
২০১২.১১.২০ ১৪:৩৬
ধন্যবাদ বারাক ওবামা আপনাকে, মিয়ানমার এর এখনই সিদ্ধান্ত নেয়ার সময়।

Mohammad Nuruddin Jahangir
২০১২.১১.২০ ১৪:৩৮
ঘোষনা যেন বাসতবায়ন হয়।

Azad
২০১২.১১.২০ ১৫:১১
রোহিঙ্গা বিষয়ে মায়ানমার সরকার এক পেশে নীতি গ্রহন করছে। এটা বন্ধ হওয়া উচিত। নোবেল বিজয়ী সুচী এখন সামরিক শাশকের দালাল হয়ে কাজ করছে। তার মত লোক নোবেল পাওয়াই আমরা লজ্জিত।

২০১২.১১.২০ ১৫:১৩
তারা তো ১৫০০ বছর ধরেই সেখানে অন্তর্ভুক্ত । তাহলে ওবামার এ কথার মানে কি ?

Atik
২০১২.১১.২০ ১৫:২২
আমরা ঘোটা বিশ্ব বাসী যারা সৎ সচ্ছ রাজনিতীততে বিশ্বাসী আমরা চাই রোহিঙ্গাদের একটি দ্রুত চুড়ান্ত সমাধান।মিঃ ওবামার প্রতি আমাদের ১০০ভাগ সমর্থন থাকবে যদি কথা এবং কাজে মিল রাখতে পারেন।ব্যপারটা যাতে হিতে বিপরীত না হয়।

Md.Raihan Shikder
২০১২.১১.২০ ১৬:১৭
প্রেসিডন্ট ওবামার কথায় কাজে খুবই খুশী হয়েছি ।

Samir Mahmud
২০১২.১১.২০ ১৬:৩০
একটি সুন্দর বক্তব্যের জন্য ওবামাকে ধন্যবাদ।
২০১২.১১.২০ ১৬:৪৭

@২০১২.১১.২০ ১৫:১৩ তারা তো ১৫০০ বছর ধরেই সেখানে অন্তর্ভুক্ত। রোহিঙ্গা এবং বৌদ্ধধর্মাবলম্বী রাখাইন আদিবাসী এক না। একটু রোহিঙ্গা নিয়ে study করলেই পেয়ে যাবেন।

Masudur Rahaman
২০১২.১১.২০ ১৯:১২
Thanks Mr. President
২০১২.১১.২০ ১৯:৫৭
কথা গুলি লোক দেখান না হয় ,,,,, তাহলে ভাল ফল আশা করা jai

অনেকেই ভাল ভাল মন্তব্য করেছেন । অনেকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক থেকেছেন । কিন্তু সবাইকে সম্মান করেই বলছি। একটু ভেবে দেখুন তো ইতিহাস বলছে আজ থেকে প্রায় দেড় হাজার বছর আগে থেকে রোহিংগারা মায়ানমারে বসবাস করছে । অথচ বারাক সাহেব মিয়ানমার সরকারকে বলছেন, ” আপনারা রোহিংগাদের মেনে মিন ” । তার মানে তারা কি এখানে নতুন উদ্বাস্তু ? বাররাককে প্রশ্ন রাখতে চাই, রোহিংগারা মুসলমান না হয়ে যদি খ্রিষ্টান বা ইগুদী হত, আপনারা কি করতেন ? মিয়ানমারকে জামাই আদর করতেন ? আর এই খবরের একজন মন্তব্যকারী মন্তব্য করেছেন- ” @২০১২.১১.২০ ১৫:১৩ তারা তো ১৫০০ বছর ধরেই সেখানে অন্তর্ভুক্ত। রোহিঙ্গা এবং বৌদ্ধধর্মাবলম্বী রাখাইন আদিবাসী এক না। একটু রোহিঙ্গা নিয়ে study করলেই পেয়ে যাবেন। ” নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই মন্তব্যকারীর পরিচয় কি, তা তার মন্তব্যেই বোঝা যায় । তিনি যে রোহিংগাদের সে দেশ থেকে উচ্ছেদের একজন খাটি সমথর্ক, তাতে কোন সন্দেহ নেই । ভাবতে অবাক লাগে এন্টি-মুসলিমরা মুসলমানদের নিয়ে এভাবে উপহাস করছে , এভাবে ব্যাংগুলোকে ঢিল মেরে মারার খেলার মত খেলায় মেতে উঠেছে , তারা চেয়ে চেয়ে দেখছে আর ভাবছে, আমিতো নিরাপদে আছি । কিন্ত আহম্মকরা এটা বুঝছে না যে সে মূলত মোটেই নিরাপদে নেই । এই নির্বোধ মুসলিম জাতি আজো ঘুমিয়েই আছে ।