‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা’

৩১শে ডিসেম্বার রাত ১১ টা ৫৯ মিনিটে শুরু হবে নিউইয়র্কের দ্য টাইমস্কোয়ার বলড্রপ, ২০১১ কে পেছনে ফেলে রাত ১২টায় শুরু হবে ২০১২ সাল! দ্য টাইমস্কোয়ার বল হচ্ছে একটি সময় গোলক, যা কিনা ৭৭ ফিট উঁচু ফ্ল্যাগপোল থেকে ১১ঃ৫৯ মিনিটে ধীরে ধীরে নীচে নেমে আসতে থাকে এবং ঘড়ির কাঁটায় ঠিক ১২টা বাজার সাথে সাথে গোলকের আলো… Read more »

বাঁশী শুনে আর কাজ নাই

আগে সব সময় গান শুনতাম, এখন আর তা করতে পারিনা। শুধুমাত্র গাড়ীতে ক্যাসেট বা সিডি প্লেয়ারে যতটুকু শুনতে পাই, তাতেই আমি খুশী। আমার একটা স্বভাব হচ্ছে যে আমি ক্যাসেট বা সিডি সহজে পাল্টাইনা, একই গান শুনে যাই, খারাপ লাগেনা। কারন গানের কথাগুলো নিয়ে মনে মনে অনেক খেলা করি, নানাভাবে সাজিয়ে দেখি কথা গুলোকে। কখনও কখনও… Read more »

ঐ বুঝি শোনা যায় স্যান্টা ক্লসের ‘হো হো হো হো’

আমরা যখন আমেরিকাতে প্রথম আসি, আমাদের ছোট মেয়ে মিথীলার বয়স ছিল দুই বছর। ওর জীবনের প্রথম বিদেশে আগমন। ওতো বাইরের জগত সম্পর্কে কিছুই জানতোনা, আমিও প্রথমদিকে ঘরে থাকতাম বলেই আমারও আমেরিকানদের সাথে মেলামেশার সুযোগ হয়নি। তাই বড় দুই মেয়ে তাদের স্কুল থেকে যা কিছু নতুন শিখে আসতো, ঘরে এসে আমাকে, মিথীলাকে নতুন করে শেখাতো। সেই… Read more »

‘ষড়ঋতুর দেশ’, নক্সীকাঁথার মাঠ’ ও আমাদের সুনন্দা’দি–পর্ব ২

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ণের বাংলাদেশ সমিতির ব্যানারে ১৯৯৬ সালের বিজয় দিবসে ‘ষড়ঋতুর দেশ’ অনুষ্ঠানটি ছিল সকল বাংলাদেশীদের জন্য এক বিরাট অর্জন। আগেই বলেছি, আর তা হয়েছিল তুহীন’দা ও সুনন্দা’দির আন্তরিকতা এবং সকলের পরিশ্রমের ফলে। এমন একটি সফল অনুষ্ঠান করার পরে সুনন্দা’দি পড়ে গেলেন ভালোবাসার মহাফাঁপড়ে। বাংলাদেশীদের সমুদ্রসম ভালোবাসা বা কূপসম মানসিক সংকীর্ণতা, কোনটার সাথেই সুনন্দা’দির পরিচয় ছিলনা।… Read more »

‘ষড়ঋতুর দেশ’, ‘নক্সীকাঁথার মাঠ’ ও একজন ‘সুনন্দা’দি—পর্ব ১

আগে এমনটা হতোনা, কিনতু গত কয়েক বছর যাবৎ বিজয় দিবস এলেই সুনন্দা চৌধুরীকে খুব মনে পড়ে। সুনন্দা চৌধুরীর সাথে আমাদের পরিচয় হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ণ শহরে থাকাকালীন সময়ে। আমরা তিন বছর ছিলাম মেলবোর্ণে, ঐ তিন বছরেই সুনন্দা চৌধুরী আমাদের বাংলাদেশীদের কাছে হয়ে উঠেছিল ‘বাঙ্গালির পরম বন্ধু, অথবা সকলের দিদি’। আমি যখন মেলবোর্ণ যাই, তখন আমার দুই… Read more »

জুঁই- বেলীর পুরানো কাসুন্দী

গত ১৫ই ডিসেম্বারের সকল দৈনিক পত্রিকাতে জুঁইয়ের মর্মন্তুদ কাহিণী পড়ে কে কতখানি শিউড়ে উঠেছে জানিনা, আমি দুইদিন একধরনের মানসিক অবসাদের ভেতর দিয়ে পার করেছি আমার সময়গুলো। কি বাচ্চা একটা মেয়ে, শুধুমাত্র পড়ালেখা করার অপরাধে তার ‘স্বামী’ নামক অভিভাবকের হাতে নির্যাতিত! নির্যাতনের ধরনটাও বলতে হবে! বলি, অভিভাবক স্বামী চায়নি জুঁই কলেজে পড়ুক, কিনতু বেয়ারা জুঁই ঠিক… Read more »

এখনও কী এক অদ্ভূত কুয়াশায় ঢাকা চারিধার!!!

আজকে আমি যখন কাজের শেষে বাড়ির পথে রওনা হয়েছিলাম, রাত তখন প্রায় সাড়ে নয়টা। ডিসেম্বার মাসে যেমন শীত পড়ার কথা, তেমন শীতই পড়েছে এখানে। বেলা বারোটার সময় যখন কাজে আসি, আকাশ ছিল ঝকঝকে পরিষ্কার, রোদেলা দুপুর যেমন হয় ঠিক তেমনি ছিল দেখতে চারিপাশ। বৃষ্টির কোন সম্ভাব্না নেই দেখে একটু নিশ্চিন্ত ছিলাম মনে মনে। আমাদের সুপার… Read more »

প্রথম বিজয় দিবসেই বাড়ী ফেরার রাস্তা হারিয়ে ফেলেছিলাম

আমি প্রথম বিজয় দিবসেই বাড়ী ফেরার রাস্তা হারিয়ে ফেলেছিলাম। ১৯৭২ সালের ১৬ই ডিসেম্বার দেশে প্রথমবারের মত বিজয় দিবস উদযাপনকালে আমি ছিলাম নিতান্তই বালিকা। তৃতীয় শ্রেণী পাশ করে চতুর্থ শ্রেণীতে উঠেছি, ক্লাসে প্রথম স্থান লাভ করেছি, কাজেই মনে তখন শুধুই আনন্দ আর আনন্দ। আমার মা ছিলেন স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা, কাজেই তাঁকে ১৬ই ডিসেম্বারের সাত সকালে স্কুলে… Read more »

এডভেঞ্চার প্রিয় সন্তান, অসহায় বাবা-মা

খুব সম্প্রতি ঘটে যাওয়া দুইটি অপমৃত্যু আমাকে ভীষনভাবে নাড়া দিয়েছে। একটি মৃত্যু নিয়ে অনেকের মাঝে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে, আরেকটি মৃত্যু শুধুমাত্র সংবাদপত্রে ছাপা হয়েই সকলের চোখের আড়ালে চলে গেছে। বলছিলাম হাসান সাইদ ও জালাল আলমগীরের মৃত্যু নিয়ে আমার অনুভূতির কথা। হাসান সাইদের মৃত্যু নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে কিছু বলার নেই( অনেক তদন্ত হবে, তাই কিছুই বলা… Read more »

কানে বাজে ‘বৃষ্টি পড়ে রিমঝিমিয়ে, টিনের চালে গাছের ডালে’

আমেরিকাতে এখন শীতকাল। খুবই ঠান্ডা, তাপমাত্রা হিমাঙ্কে চলে যাচ্ছে। বলছি এই মুহূর্তে মিসিসিপির শীতের কথা। অন্য অনেক স্টেটে স্নো পড়তে শুরু করেছে আরও একমাস আগে থেকে। মিসিসিপিতে ওয়েদার আমাদের দেশের মত, তাই স্নো হয়না, তাই মিসিসিপিবাসীর মনে হয়তো একটু দুঃখ আছে। টিভিতে, খবরের কাগজে সারাক্ষন দেখায়, অমুক স্টেটে স্নো, অমুক স্টেটে স্কুল কলেজ সব বন্ধ… Read more »