নারীর যৌন চাহিদা থাকতে নেই!

ক্ষুধা মেটানোর জন্য আমরা অনেক কিছুই করি। সম্ভবত এই ক্ষুধার যন্ত্রণা না থাকলে মানুষ কাজ-কর্ম তেমন একটা করতেন না। কেউ ক্ষুধা নিবারণের জন্য চুরি করছে। কেউ ছ্যাঁচড়ামি করছে। কেউ অফিসে কাজ করে। কেউ আদালতে। এমন অনেক কিছুই করছে এই ক্ষুধার জন্য। অর্থাৎ ক্ষুধা মেটানোটা মানুষের মৌলিক একটি অধিকার। সে যেভাবেই হোক ক্ষুধা মেটাবেই। এই ক্ষুধার… Read more »

ওরা ছিদ্রযুক্ত প্রাণী, মানুষ নয়?

হ্যাঁ মেয়ে মানেই ছিদ্রযুক্ত, সুডোল দেহের অধিকারী! তার উন্নত নিতম্ব, কটিদেশ, চিবুক, বুক- সবই রসালো! তাই মেয়ে মানেই ভোগের সামগ্রী! যেমন, অনেক পুরুষের কাছে স্পেশাল কিছু খাবার প্রণালী! জন্তু-জানোয়াররা যেমন ক্ষুধার্ত অবস্থায় নিজের সন্তানকেও ভক্ষণ করতে দ্বিধা করে না। ঠিক একই ভাবে পুরুষও কাম-বাসনায় উন্মাদ হয়ে উঠলে মেয়ে, বোন, শ্যালিকা বা অন্য কী সম্পর্ক (?)… Read more »

পুরুষ ভোক্তা, নারী খাদ্য!

নারীবাদ বা নারী আন্দোলনের পক্ষে ইতিপূর্বে যারা কাজ করেছেন, তারা ‘লিঙ্গ বৈষম্যহীন’ সুন্দর পৃথিবীর জন্যই লড়েছেন। যেখানে পুরুষ আর নারীর জন্য সব কিছুরই সুষম বণ্টন হবে। কেউ কারো কর্তৃত্ব করবে না। এক কথায় বলা যায় ‘সমাধিকার’। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সেই ‘সমাধিকার’ প্রতিষ্ঠিত হলেও অনেক ক্ষেত্রে এখনও ‘লিঙ্গ বৈষম্য’ প্রকট। সেটি ঘর-বাহির, সর্বত্রই। এসব ক্ষেত্রে নারী… Read more »

প্রভা নাকি জলি, অনুকরণ করবেন কাকে?

সাদিয়া জাহান প্রভাকে আমরা চিনি বা জানি না, এমন লোকের সংখ্যা একেবারেই নেই বললেই চলে। যে বধূটি পর্দার আড়াল থেকে একদমই বের হন না, সে বধূটিও অন্য কোন অভিনেত্রীকে না চিনলেও প্রভাকে ঠিকই চিনেন। আর মসজিদের ঈমাম, মাদ্রাসার শিক্ষক, গির্জার ফাদার, মন্দিরের পূজারি কিং বৌদ্ধ ভিক্ষুরাও তাকে চেনেন বলেই মনে করি। সে যাহোক। প্রভার জীবনে… Read more »

তোরা মেয়ে হয়ে কেন ফুটবল খেলতে এলি?

আমরা বাঙালি গর্বিত বাঙালি! গর্বের সাথেই বাঙলা ভাষাভাষী মানুষেরা এ কথাটি বলে থাকেন। তবে, আগে এটি বলার অর্থ আর এখনকার বলার অর্থ এক নয়। এখন এই কথাটাকে আমরা এভাবে প্রয়োগ করতে পারি, ‘আমরা বাঙালি আসনে, ভাষণে গর্বিত বাঙালি’। এই বাঙালি কাজের থেকে বেশি কথা বলতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। যখন, তখন জ্ঞানগর্বের কথা বলতে জুড়ি মেলা ভার।… Read more »

সমাজ যৌনকর্মী তৈরীর কারিগর

যৌনকর্মী! না না, তারা এই সমাজ ও সমাজপতি এবং অতিশয় ভদ্দরনোকদের দৃষ্টিতে বেশ্যা, পতিতা, বারবনিতা, দেহপসারিণি কিংবা খানকি, ছিনাল, মাগি- এর ‘চে বেশি কিছু নয়। কারণ, সে একাধিক পুরুষের সাথে বিছানায় যায়, যখন-তখন অল্প-বিস্তর টাকার জন্য নিজ দেহটাকে বিলিয়ে দেয়। যা সমাজ স্বীকৃত নয়। যা সমাজের দৃষ্টিতে বেশ্যাবৃত্তি। এরা তথাকথিত ভদ্দরনোকদের দৃষ্টিতে কুলটা, নষ্টা, পথভ্রষ্টটা… Read more »