ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

​বাংলাদেশ প্রেসক্লাব সেন্টার অব আলবার্টা ও বাংলাদেশ হেরিটেজ মিউজিয়াম এর সভাপতি দেলোয়ার জাহিদ এক বিবৃতিতে ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে বাংলাদেশে একের পর এক মামলা দায়ের করার ঘটনাকেকে হয়রানিমূলক ও বর্হিবিশ্বে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারি বলে মনে করেন। মাহফুজ আনাম ওয়ান-ইলেভেন সময়ে নিজের ‘ভূমিকা’ নিয়ে যতটুকু দায়ভার নিয়েছেন, স্বীকারোক্তি দিয়েছেন, তা তার ‘সৎ ও সাহসী’ একটি পদক্ষেপ. নিঃসন্দেহে তিনি একটি ভাল কাজ করেছেন, আরো ভাল কাজ করতেন যদি ক্ষতিগ্রস্থদের কাছে ব্যক্তিগত ভাবে ক্ষমা চেয়ে নিতেন, তা হলে অন্ততঃ দেশে আরো একটি ভাল সংস্কৃতি চালু হতো .সম্পাদক মাহফুজ আনামকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর মাধ্যমে সরকারের ক্ষতি ছাড়া কোন লাভ নেই।

যিনি বা যাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন, কুৎসাপূর্ণ ও মানহানিকর প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে, দেশে-বিদেশে আত্মীয় ও শুভাকাঙ্খি – হিতৈষী মহলে, ব্যক্তিগত ও পারিবারিক পরিমন্ডলে, কর্মস্থলে এবং জনগনের কাছে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার হয়েছে। সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলে যেতে পারেন।

সে সময়ে কী ঘটেছিল, ছাত্র-শিক্ষক, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, সম্পাদক, ব্যবসায়ী, পত্রিকা মালিক,সিভিল সোসাইটি, আমলা, সরকারী কর্মকর্তা, সাংসদ নির্বিশেষে অনেকেই রহস্যময় ভূমিকা রেখেছিলেন, সেসব ষড়যন্ত্রের হোতাদের স্পর্শ করা সরকারের জন্য কতটা সঙ্গত তা রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের বিষয়। আমরা আশা করবো, ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসামূলক কোন ব্যবস্থা নেয়া হবে না।

slide