ক্যাটেগরিঃ অন্যান্য

 

একটা দেশের ও জাতির সন্তানরা যখন নিজের প্রচেষ্টায় দেশের জন্য কিছু করে, তখন তাদেরকে প্রশংসা না করে খুন করলে সে জাতিকে কি বলা হয়? সেই জাতিকে বাংলাদেশী জাতি বলা হয়।

যে দেশের বরেণ্য মেধাবী সন্তানরা তাদের মেধাকে কাজে লাগাবার জন্য, দেশের জন্য ভালবাসা নিয়ে, বিপদ ঝুকি মাথায় নিয়ে দেশে ফেরে, তাদের গনহত্যা করার যে ট্রাডিশন পাকিস্তানী হারমাদরা রেখে গেছে, তার জের চলছে আজও। ডঃ ইউনুস এর সাথে যে আচরণ হচ্ছে, তা দেখে আমার বাংলাদেশী পাসপোর্ট ছিড়ে ফেলতে ইচ্ছা হয়। কি পরিমান অকৃতজ্ঞ আমরা? কি পরিমান বিশ্বাসঘাতকতা আমাদের রক্তে?

এটা যদি প্রথম ও শেষ হতো, তাহলে বলার কিছু থাকতো না। এরকম আরও ঘটেছে, বড় ও ছোট আকারে। বাংলাদেশের প্রচুর উচ্চশিক্ষিত প্রবাসী দেশে বিদেশে ছড়িয়ে আছে। শুধু আমার সাথে পড়াশুনা করা আমার বয়সী পিএইচডি পাওয়া প্রবাসী আছে ৩৭ জন। এদের সবার ইচ্ছা দেশে গিয়ে কিছু একটা করা, দেশের জন্য সবার মনই কাঁদে। হাজার হলেও এই পোড়া দেশটার মাটিতে আমাদের নাড়ি পোঁতা আছে।

আমি এদের সবাইকে নিরুৎসাহিত করি। যে দেশে মেধার দাম নেই, নির্বোধদের অস্ত্রের কাছে যেখানে ভাবমুক্তির প্রকাশ নিষিদ্ধ, সে দেশের মাটিতে নাড়ি পোতা থাকলেও ফেরত যেতে মানা করি আমার সহপাঠিদের। প্রবাসেই থাকরে ভাই, এখানে বাড়ি হবে গাড়ি হবে, বাসায় বিদ্যুৎপানির অভাব নেই, ছেলেমেয়ে ভাল ভাল স্কুলে রাজনীতির কালসাপকে এড়িয়ে পড়াশুনা করতে পারে, জীবনের ঝুকি নেই, চাঁদাবাজি নেই, মলম পার্টি নেই, সর্বোপরি আমাদের ঘৃণ্য রাজনীতিবিদরা নেই।

বিশ্বাস করুন কি দুঃখ নিয়ে একথাগুলো লিখছি। বিদেশী নাগরিকত্ব, প্রাচুর্য্য ঐশ্বর্য ছেড়েছুড়ে যে জাফর ইকবাল বাংলাদেশে যেয়ে জামাতী রাজনীতিবিদদের অত্যাচারের শিকার হয়, তার কি দায় পরেছিলো দেশের জন্য কাজ করার? বাসায় উড়ো চিঠি, কাফনের কাপড় উপহার পাওয়ার চাইতে কি বিদেশে বসে আরামের চাকরি করাটা ভাল নয়? প্রাণও বাঁচলো, সম্মানটাও বাঁচলো।

আজকে যারা যারা ডঃ ইউনুসের নামে কালি লেপ্টানোর চেষ্টা করছে, তাদের কয়জনের বিদেশী ডিগ্রী আছে? কয়জন দেশে এসে আরেকটা গ্রামীন ব্যাংক বানিয়েছে? কয়জন বিদেশের লোভনীয় শিক্ষকতা ছেড়ে দিয়ে জোবড়া গ্রামে জোতদারদের মনোপলি ভাঙতে গেছে? বুকে হাত দিয়ে বলুন তো?

অনেক প্রবাসীর স্বপ্ন একটা বাড়ি, দুটা গাড়ি, ছেলেমেয়ে ভাল স্কুলে পড়াশুনা। এইসব মিটলে সে রাজনীতি, দেশ এগুলা নিয়ে বুলি কপচিয়ে আনন্দ পায়। যে সব প্রবাসীর শিক্ষাগত যোগ্যতায় ডক্টর ইউনুসের কানাকড়িও নেই, তাদেরও বিদেশী পাসপোর্ট আছে, বিশাল বাড়ি আছে, ব্যাংকে টাকা আছে। এতকিছু থেকেও কিছু প্রবাসী এসে বাংলাদেশের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কিছু যখন করে, তখন তার প্রতিদান কিভাবে দেই আমরা?

জওয়াব দাও বাংলাদেশীরা, নিজের মায়ের পেটের ভাই বিদেশ থেকে এসে তোমার মা এর লজ্জা ঘুচাচ্ছে, তুমি তাকে প্রতিদানে ধন্যবাদ না দিয়ে অপবাদ দিচ্ছো। এটা কি ভাল হলো??