ক্যাটেগরিঃ চিন্তা-দর্শন

বস্তুতে বস্তু মেলে। কথাটার কিছু তাতপর্য্য আছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ করছি ইউজিন এক্সম্যান সাহেবের কথা। উনি নিউইয়কের হার্পার এন্ড ব্রাদার্স নামে একটি বিখ্যাত পাবলিশিং এর ভিপি। হাউজারম্যান সাহেবের সাথে এ্যামেরিকা থেকে শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের দেওঘর আশ্রমে এসেছিলেন ১৯৬১ খ্রীঃ ৮ই সেপ্টেম্বর। শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের কাছে ইউজিন এক্সম্যান সাহেব প্রশ্ন করেছিলেন, বিজ্ঞানের সাহায্যে অনেক কিছু প্রমাণ করা যায়, কিন্তু প্রার্থণার রহস্যকে প্রমাণ করতে পারে না। তাই নয় কি?

পার্লারে বসেছিলেন অনুকূল চন্দ্র, একটু হেসে ইউজিন এক্সম্যান সাহেবকে বললেন, বিজ্ঞান প্রার্থনাকেও প্রমান করতে পারে।এই যে আমি প্রার্থনা করি(প্রার্থনার ঢঙ্গে হাত জোড় করে) তার কিছু ফল হয়ই। উদাহরণ স্বরূপ বললেন, এক ধরনের গাছ আছে, তার সামনে বীণা বা বাদ্যযন্ত্র বাজালে ওই গাছ গুলি খুব দ্রুতই বেড়ে যায়।এর কারণ সেই বাদ্যযন্ত্রের সুরমূর্ছনা থেকে এমন স্পন্দন(Thrill) সৃষ্টি হয় যা ওই গাছের মধ্যেও এক ধরনের স্পন্দন(Thrill) সৃষ্টি করে। এই Thrill (স্পন্দন) ওই গাছকে বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। তেমনি প্রার্থনার মধ্যদিয়ে, প্রার্থনার গূঢ়তম তাতপর্য্যকে জীবনে ফুটিয়ে তুলতে হলে দেহ-মনে যে ব্যঞ্জনা বা স্পন্দন(Thrill) সৃষ্টি করতে হয়, প্রার্থনার দ্বারা সেই জিনিসের নিয়মিত অভ্যাস করার ফলে দেহের কোষের মধ্যে সৃষ্টি হয় এক ধরনের সম্বেগ(Uarge)। যার ফলে মানুষ সার্থত উপযোগী গুণ সমৃদ্ধ হয়ে উঠতে সক্ষম হয়। আর যে কারণের ফলে ওইটা সম্ভব হয় সেটাই জানা হলো বিজ্ঞান আর তার বিহিত চলনে ওই পরিণতিতে পৌঁছানই হচ্ছে প্রার্থনা।

আভিধানিক অর্থে প্রার্থনা হলো- প্রকৃষ্ঠরূপে চলা। কোন লক্ষে পৌঁছানর জন্য বিহিতভাবে তা পরিপূরণের প্রচেষ্টায় লেগে থাকাই হলো প্রার্থণা। যুগে যুগে সুপারম্যান জন্ম নিয়েছেন, তাদের প্রদর্শিত মতাদর্শ এক একটা ধর্মীয় মতবাদে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।যেমন ইসলাম ধর্মে প্রবর্তক মহানবী হযরত মুহম্মদ (সাঃ), বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক শ্রী শ্রী গৌতম বুদ্ধ, খ্রীস্টান ধর্মের প্রবর্তক প্রভু যীশু খ্রীষ্ট, হিন্দু ধর্মের প্রবর্তক শ্রী শ্রী কৃষ্ণ ইত্যাদি ইত্যাদি । উল্লেখিত মতাদর্শে কিন্তু প্রার্থণা বিষয়টি মূখ্য।আঙ্গিক ঢঙ্গের ভিন্নতায় সেটা দৃশ্যমান ভিন্ন হতে পারে, তবে মূল লক্ষ্য একই এবং বস্তুগত, শারিরীক ও মানসিক ক্রমবিবর্তন তা কিন্তু একই। যেখানে ব্যক্তি বস্তুময়, আর তার প্রচেষ্টাগত সাফল্যে বস্তুকে অতিক্রম করে নির্বস্তুতে পৌঁছাতে পারে। আর তখনই বোধ করি প্রার্থণার সাফল্য।

১৩.০৩.২০১৫ খ্রীঃ
dipeshroy@gmail.com