ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

 

আজকের সকালের খবর। একই প্রশ্ন করেই যেতে হচ্ছে – সড়ক দুর্ঘটনা কি চলতেই থাকবে? ঢাকা শহরের ভিতরে নিশ্চয় অতি দ্রুত গাড়ী চালানো সম্ভব নয়। তাহলে ধীর গতিতে গাড়ী চালিয়েই এই দুর্ঘটনা গুল ঘটছে। কেন ঘটছে , তা কি খতিয়ে দেখা হচ্ছে ? রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশ আছে, রাস্তায় সঠিক পথে চলার জন্য লেন করে দেওয়া আছে, সিগনাল বাতি আছে – তারপর ও দুর্ঘটনা !!!!! বেপরোয়া ভাবে গাড়ী চালাচ্ছে, রাস্তার মাঝখানে যত্রতত্র ভাবে বাস থামিয়ে লোক উঠা নামানো করাচ্ছে, বেসামাল ভাবে মটর সাইকেল চালাচ্ছে, লেনকে কোন নির্দেশ বলেই না মানা -, এই চলছে। আর যারা এই অনিয়ম কারিদের নিয়মের মাঝে আনতে রাস্তায় নিয়োজিত, তাদের চরম উদাসিনতা। তা হলে গলদ কোথায় ? বিশৃংখলতাই প্রধান কারন। জনগন কেউ আইন মানছেন না, আর যারা নিয়ম কানুন মানানোর দায়ীত্বে নিয়োজিত, তারা তা পালন করতে ব্যার্থ। এর ফল ভোগ করতেই হবে এবং হচ্ছেও তাই। কেন আইন মানাতে পারে না ট্রাফিক পুলিশরা ? কোথায় দুর্বলতা ? এর জন্য তো নুতন বাজেটের প্র্যোজন নাই, বিদেশ থেকে এক্সপার্ট আনার প্রয়োজন নাই – শুধু প্রয়োজন সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করা। সেটারই চরম গাফলতি- যার খেসারত জীবন দিয়ে শোধ করতে হচ্ছে মানুষকে !!!!!!!!!!!!!