ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

শুরুতে একটি সত্য প্রবাদ দিয়ে শুরু করছি, সদা সত্য কথা বলিব, ছোল বেলায় যখন স্কুলে পড়তে যেতাম শিক্ষকরা প্রথমে একথাটি শিকায়ত,আদালতের কাঠগড়ায় দাড়ালে এ কথা বলতে সদা সত্য বলিব সত্য বৈ মিথ্যা বলিব না। দু:খ লাগে যখন স্কুলের শিক্ষক বা ঘরের গার্জিয়ান তথা পিতা মাতা, মাদ্রাসার শিক্ষক অথবা কোন বড় জন যদি মিথ্যা কথা বলে বা শিখায় তাহলে তার কাছ থেকে কচি মনের ছেলেরা কি শিক্ষা পাবে, যদি মাতা পিতা মিথ্যা কথা বলে তার চেলে বা মেয়ে কি শিক্ষা পাবে পিতা মাতার কাছ থেকে, যদি বড়জনে মিথ্যা কথা বলে তার বিচার কে করবে, তেমনি সম্প্রতি আমাদের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী, স্বরাষ্টমন্ত্রী,পররাষ্টমন্ত্রী তিন জন নারী তাদের মর্যাদা মায়ের আসনে বসালে তারা অনেক সম্মানিতা,কারণ তারা মায়ের জাত,কিন্ত তারা যখন মিথ্যা কথা বলে …… তার চেয়ে বড় পরিচয় তারা রষ্ট্রের গুরুত্বপুর্ন আসনে আসীন হয়েছে। প্রধান মন্ত্রী যখন বলে সংসদের মধ্যে দাড়িয়ে দেশের অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভালো অর্থনীতির কোন অভাব বাংলাদেশে পড়েনি,তখন খুব দু:খ লাগে দেশের মানুষ ক্রয় ক্ষমতার বায়রে গেছে দ্রব্যমুল্য, অভাব অনটনের সংসার কি করে চালায়, তিনি বুঝেন না, কারণ তিনি তো অনেক ধনী, তার বেতনের অংশ অনেক বড়, কিন্তু আমার মত হতদরিদ্র যার বেতন সর্বনিম্ন তার কি অবস্থা ? যখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে দেশের আঈন শৃঙখলা আগেরচেয়ে অনেক ভালো তখন কি মনে করা যায়, বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী দৈনিক ৭,৮জন মানুষ খুন হয়, ডাকাতি, সন্ত্রাসী, চাদাবাজী বেড়ে গেছে তখন তিনি কিভাবে বলে আঈন শৃঙ্কলা আগের চেয়ে ভালো, যখন পররাষ্টমন্ত্রী বলে বিদেশে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের গাফিলতির কারনে বাংলাদশেীদের ভিসা বা আকামা দেয়া হচ্ছেনা তখন তিনি কি করেন। শুধু ভারতের সাথে নতজানুর জন্য তাকে মন্ত্রী বানানো হয়েছে? যদি তারা মিথ্যা কথা বলেতাহলে আমাদের দেশে দুর্নীতি কিভাবে বন্ধ হবে, কারণ তারা তো দুর্নীতি করার রাস্তা করে দিচ্ছে।যতক্ষন পর্যন্ত মিথ্যার আশ্রয় থেকে আমরা বের হয়ে আসতে পারবনা ততক্ষন পর্যন্ত আমাদের দেশের উন্নতি আশা করা যাবেনা। তাঈ অনুরোধ করব মিথ্যার কোলষ থেকে বের হয়ে আসেন সত্যের সন্ধানে দেখবে দেশ একদিন অভাব মুক্ত হবে, সন্স্রাস মুক্ত হবে, কারণ সত্যের বিজয় একদিন আসবে।