ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে প্রতিদিন সন্দ্বীপের প্রবাসীরা পাঠাচ্ছেন প্রচুর পরিমানের বৈদাশিক মুদ্রা। জানা গেছে সন্দ্বীপের যে কয়টি সরকারী ও বেসরকারী ব্যাংক রয়েছে সেগুলোতে নানা ধরনের হয়রানী ও যোগাযোগের অসুবিধার কারনে প্রতিদিন অবৈধ আর্থিক লেনদেন মাধ্যম হুন্ডির মাধ্যমে আসছে পরিবার পরিজনের জন্য পাঠানো প্রবাসী সন্দ্বীপীদের কষ্টার্জিত টাকা। আর এতে রাষ্ট্র যেমন হারাচ্ছে প্রচুর পরিমানের বৈদাশিক মুদ্রা আর ব্যাংক গুলো ও হারাচ্ছে তাদের রেমিটেন্স। গত কয়েক বছরের তুলনায় এই বছর সন্দ্বীপে নতুন আরো দুইটি ব্যাংক চালু হওয়ায় অনেকে আসা করেছিলেন এবার হয়তো কিছুটা হলেও কষ্ট লাগব হবে সন্দ্বীপের মানুষের, কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল ভিন্ন চিত্র, প্রতিদিনই বিভিন্ন অভিযোগ আসছে ব্যাংক গুলোর বিরুদ্ধে। নাম প্রকাশ না করার সর্তে একজন গ্রাহক জানান দুই দিন ধরে আমার টাকা জমা হলেও বলা হচ্ছে আমার টাকা জমা হয়নি। এই বিষয়ে কয়েকজন ব্যাংক অফিসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন আমাদের বিরুদ্ধে এই ধরনের কোন অভিযোগ আমরা এখনো পায়নি তবে অভিযোগ পেলে নিশ্চয় এই ব্যপারে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। তবে কেউ কেউ বলছেন ভিন্ন কথা বিশেষ করে সন্দ্বীপের নদী পথে চট্রগ্রাম থেকে টাকা আনা নেওয়ার সমস্যার কারনে মাঝে মাঝে টাকা দিতে একটু দেরী হচ্ছে। সন্দ্বীপের আর একজন বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী জানান উপজেলা কমপ্লেক্সের প্রায় সব গুলো ব্যাংকের দৈনিক টাকা যোগান দিয়ে থাকে উপজেলা সদরের বেশ কিছু ব্যাবসায়ী যার কারনে ব্যাবসায়ীরা আমদানী রপ্তানীতে টাকার সমস্য হলে ব্যাংক গুলোতে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়। তবে সর্বপরি সন্দ্বীপের ব্যাংক গুলোর প্রতি মানুষের একমাত্র দাবি আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে যাতে তাদের কষ্ট লাগবে কর্তৃপ যথাযথ ব্যাবস্থা নেয়।