ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

ঢাকা শহরে এযাবত্‍ দু টি ফ্লাই ওভার তৈরি হয়েছে। একটি পরিপূর্ণ ফ্লাই ওভার যেটা খিলগাঁও ফ্লাই ওভার নামে পরিচিত। আরেকটা মহাখালী ফ্লাই ওভার। মহাখালী’র টি কে ফ্লাই ওভার বলা হলেও এটা আসলে ওভার পাস ছাড়া আর কিছু না। আর এই ফ্লাই ওভার (ওভার পাস) এর কারণে যান জট একটুও কমেনি বরং বেড়েছে। তত্কালীন যোগাযোগ মন্ত্রী ব্য না হুদা কয়েক শত কোটি টাকা খরচ করে এবং কয়েকশ কোটি টাকা পকেটে ঢুকিয়ে ঢাকা বাসীকে উপহার দিয়েছিলেন একটা অকার্যকর ওভারপাস , আর তার অশিক্ষিত নেত্রীর মুকুটে যোগ করেছিলেন আরও একটি বের্থতার অপ্রয়োজনীয় পালক। ওই মহাখালী ওভারপাস এর একটা হাত যদি মহাখালী বাস স্ট্যান্ড এর দিকে বাড়ানো থাকতো, তাহলে ওই এলাকার যানজট 70% কমে যেত বলে আমার ধারনা। আমার আজকের বিষয় সেটা নয়।

এ মুহূর্তে ঢাকায় আরও দুই-তিনটি ফ্লাই ওভার তৈরি হচ্ছে। একটি এয়ারপোর্ট রোড থেকে ঢাকা সেনানিবাস হয়ে মিরপুর এর দিকে যাবার জন্য, আরেকটি প্রগতি সরণী থেকে এয়ারপোর্ট রোড এর দিকে। আমি খুব আশঙ্কার সাথে লক্ষ করছি যে, প্রগতি সরণী থেকে এয়ারপোর্ট রোড এর দিকে যাবার জন্য যে ফ্লাইওভার টি তৈরি হচ্ছে, সেটাও মহাখালী ফ্লাইওভার তথা ওভারপাস এর মত হয়ে যাচ্ছে । সবাই লক্ষ করবেন যে, এই নতুন ফ্লাইওভার টি দেখতে অনেকটা ইংরেজি ওয়াই এর মত। অর্থাত্‍, প্রগতি সরনি থেকে এসে আপনি ফ্লাই ওভার এর উপর দিয়ে বাম দিকে ঘুরে এয়ারপোর্ট রোড এ মিলবেন এবং হোটেল রেডিশন এর দিকে যাবেন। অথবা এয়ারপোর্ট এর দিক থেকে এসে এয়ারপোর্ট রোড থেকে বামের লেন এ গিয়ে ফ্লাইওভার এ উঠে রেল লাইন পার হয়ে প্রগতি সরণী তে নামবেন। কিন্তু কথা হল, আপনি যদি গাড়ি চালিয়ে রেডিশন এর দিক থেকে এয়ারপোর্ট রোড ধরে এসে ডানে প্রগতি সরণী তে যেতে চান তাহলে কিন্তু আপনাকে আগের মতই নিচ দিয়ে রেল লাইন অতিক্রম করতে হবে। অথবা, প্রগতি সরণী ধরে এসে শাহজালাল বিমান বন্দর এর দিকে যেতে চান তাহলে নিচ দিয়ে রেল লাইন পার হতে হবে। তাহলে ব্যাপারটা কী দাঁড়াল? যেই লাউ সেই কদু। ফ্লাই ওভার এর নামে কয়েকশ কোটি টাকা খরচ করে আবার সেই ওভারপাস। জনগণকে এভাবে ধোকা দেয়ার মানেটা কী? পন্ডিত সমতুল্য যোগাযোগ মন্ত্রী, আর তার বেহুদা কিছু প্রকৌশলী আমাদেরকে কী উপহার দিতে চান। আমরা ফ্লাইওভার এর নামে দয়া করে আর ওভারপাস চাই না। ক্ষমা করুন আমাদের। তার চেয়ে যেভাবে আছে সেভাবেই ভাল ছিল।

এই দরিদ্র দেশের শত শত কোটি টাকা খরচ করে জনগণের সাথে এভাবে প্রতারণা করবেন না, আমাদের শিক্ষা কম হতে পারে, কিন্তু ওভার পাস আর ফ্লাই ওভার এর পার্থক্য আমরা জানি। যোগাযোগ মন্ত্রী , হুজুর দয়া করে একটু খেয়াল করুন। এখনও সময় আছে যদি পরিকল্পনা ভূল হয়ে থাকে, তাহলে সংশোধন করা যাবে। আর একটা অনুরোধ। বি এন পি সরকার করেছে বলে মহাখালী ওভারপাস এ আপনারা কিচ্ছু করবেন না এটা ঠিক না। এখনো ইচ্ছা করলে বনানী’র দিক থেকে মহাখালী বাস স্ট্যান্ড এর দিকে একটা এক্সটেন্শন তৈরি করে মহাখালী ওভারপাস কে পরিপূর্ণ ফ্লাই ওভার এ রূপান্তরিত করা সম্ভব । খালি একটু সদিচ্ছা থাকলেই চলবে। টাকা কোনও বেপার না। যেভাবে সদিচ্ছা দিয়ে আপনার গ্রামের বাড়ির রাস্তা করে নিলেন, সেরকম একটু সদিচ্ছা থাকলে বর্তমান মেয়াদেই মহাখালী ওভারপাস কে পরিপূর্ণ ফ্লাইওভার করে দিতে পারবেন। আর যদি তা করেন, তাহলে নেক্সট ইলেকশন এ আমার ভোট আপনার জন্য বরাদ্দ থাকলো।