ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

আজকাল পোস্ট লিখতে আমি ভয় পাই। ভয় পাই কারন এই বাংলাদেশের রাজনীতিবিদ এবং আমলাদের অনেক কুকীর্তি এবং অন্যায় আমি দেখেছি, শুনেছি। কখনও প্রতিবাদ করিনি। আমি শুনেছি এরশাদের আমলের এক মন্ত্রি সচিবালয়ে বসে কিভাবে নগদ ৫০ লক্ষ টাকা গুনে নিয়েছেন। আমি দেখেছি কিভাবে এক মন্ত্রির পুত্র মানুষ খুন করে বাপের ক্ষমতার জোরে পার পেয়ে গেছে। কিন্তু কখনও প্রতিবাদ করিনি। কারন এই দেশে প্রতিবাদ করে কোন লাভ নেই। এই দেশের পুরো সমাজ দুর্নীতি আর বিশৃঙ্খলায় পরিপূর্ণ। আমরা সবাই সেটা নিয়তির উপহার হিসেবে মেনে নিয়েছি । রাজনীতি আজ পরিবারতন্ত্রের দখলে। আমরা অনেকেই সেটা নিয়ে অনেক কথা বলি, কিন্তু আমরাই আবার তাদেরকে ভোট দেই।
মরহুম আহসান উল্লাহ মাস্টার এম পি’কে আমি সামনা সামনি দেখেছি। কথা হয়নি, কিন্তু তার কথায় আমি মুগ্ধ হয়েছি। তার মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের পর জনগনের অনুরোধে তার ছেলে রাসেল নির্বাচন করেন এবং এম পি নির্বাচিত হন। এবার নিয়ে পর পর দুই বার তিনি এম পি। আমি দেখেছি মরহুম আহসান উল্লাহ মাস্টার সি এন জি’তে চেপে সংসদ অধিবেশনে যোগ দিতে গেছেন। এখন জনাব রাসেল এম পি নির্বাচিত হয়ে কোন আলাউদ্দিন এর যাদুর চেরাগ হাতে পেয়ে গেলেন যে তিনি এখন মার্সিডিজ দাপিয়ে বেড়ান- আমি সেটা বুঝতে পারি না।
সম্প্রতি পূর্ণ মন্ত্রী হলেন এমন এক মন্ত্রির ভাই বেলজিয়াম থাকেন। মন্ত্রী নিজেও কিছুদিন সেখানে ছিলেন। বেলজিয়াম এ তিনি এবুং তার ভাই কি করতেন সেটা না হয় নাই বললাম। আর এখন বেলজিয়াম এ তার ভাই রীতিমত এক কোটিপতি। বিশাল এক ভিলা কিনেছেন। অনেকের মত আমিও প্রস্ন করিনি যে কিভাবে সেটা সম্ভব হল? শুনেছি দেশের বাইরে যে কোন জায়গায় গেলেই মন্ত্রী মহাশয় বেলজিয়াম এ একবার ঢু মারবেনই। কেন? সেটা আমি জানি না।
আমি জানিনা কেন সালমান এফ রহমান (সম্প্রতি তাকে দরবেশ নামে ডাকা হয়ে থাকে) শেয়ার বাজার এর কর্তা হয়ে গেলেন। যেই শিয়াল মুরগি খায়, তার কাছেই মুরগি বন্ধক রাখা হল। কেন? আমি জানি না।
তবে আমি এটা জানি যে, ১৯৯৬ শেয়ার বাজার ধসের পর অনেক লোক হতাশায় আত্মহত্যা করেছিল। আমি এটাও জানি যে সালমান এফ রহমান অর্থাৎ দরবেশ বাবার একমাত্র কন্যা লন্ডন এ গাড়ী দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিল। আমার জানা মতে এখন দরবেশ বাবার আর কোন প্রত্যক্ষ উত্তরাধিকারী নেই। হাজার হাজার, লক্ষ লক্ষ মানুষকে সর্বস্বান্ত করার অপরাধে আল্লাহ তাকে পৃথিবীর সবচে ভারী বোঝাটি বইতে দিলেন কিনা জানিনা।
আমাদের আরেক প্রতিমন্ত্রী যার সম্মন্ধে অনেক অন্যায়, অত্যাচার আর দুর্নীতি’র ঘটনা শোনা যায়, তিনিও কিছুদিন আগে তার একমাত্র পুত্রকে হারালেন গাড়ী দুর্ঘটনায়। এই ধারায় সর্বশেষ সংযোজন একদা জনতার মঞ্চের নায়ক নামে পরিচিত এক উপদেষ্টা। ব্যাংকক এ পানিতে ডুবে মারা গেলেন তার একমাত্র পুত্র।
এসব কি আমাদের ক্ষমতাবানদের জন্য আলাহ’র তরফ থেকে কোন বিশেষ বার্তা? আমি জানি না। আমি জানতে চাই না। কারন আমার বড় ভয় হয়।
শেয়ার বাজারে সর্বস্ব হারিয়ে আজ আমি আর সাহসী হতে পারি না। তাই ব্লগ লিখতেও আমার ভয় হয়।