ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

আমরা অনেক সময় চোর ধরতে গিয়েও ধরতে পারিনা…। দেখা যায় রাতের চোরটাই সকাল বেলা আমার কিংবা আমাদের কারো পাশে বসে চা পান করছে । আমরাও তাকে সাধারণ মানুষই ভেবে নিচ্ছি । এটা ভাবাই স্বাভাবিক । গুলশান হামলার আগে নিব্রাস ইসলামরাও সাধারন মানুষই ছিলেন । আজ আমরা তাঁদেরকে ধিক্কার জানিয়ে আমাদের ক্ষোভ প্রকাস করছি । পরিবার লাশ গ্রহন করছেন না। এর থেকে আর  কি উচিৎ জবাব থাকতে পারে? এখনো যে সব জঙ্গি আমাদের মাঝে আছেন । কিংবা যারা যারা কেবল ব্রেন ওয়াশ এর প্রথম পর্যায়ে আছেন … কিন্তু আজ আমরা নিজেরাও অনেক ভুল করে যাচ্ছি সেদিকে হয়তো অনেকেই খেয়াল রাখছিনা … সোশ্যাল মিডিয়া! বর্তমান সময়ের সব থেকে জনপ্রিয় একটা নাম । আমি অবাক হয়ে যাই যখন দেখি হিরো আলমের মুখের সামনে নামকরা চ্যানেলের মাউথফোন !! আজ কয়েকদিন অনলাইনে হিরো আলমকে নিয়ে একপ্রকার মজাই করছিলো কিছু মানুষ … খারাপ হোক, ভাল হোক কিংবা মজা হোক মানুষের আগ্রহ আছে টের পেয়েই তার পিছনে দৌর শুরু হয়ে হয়ে গেল!!! এটা অবাক করার মত!! বর্তমান সময়ে বন্ধুদের সাথে কথা বলা… সময় কাটানো, কিংবা এসাইনমেন্ট থেকে শুরু করে আমাদের জানা অজানা তথ্যও পেয়ে থাকি এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, কিন্তু তথ্য কে দিচ্ছেন , সে এ সম্পর্কে কতটুকু জানেন এসব না জেনেও আমরা অনেক তথ্য বিশ্বাস করে ফেলি … এটা বর্তমানে প্রকট আকার ধারণ করেছে । আমাদের চিন্তার প্রত্যেকটা জায়গায় একটা দলকে ভাল বানানো আরেকটা দলকে খারাপ বানানোর প্রয়াস থাকে…। আমাদেরও মনে রাখতে হবে আমরা যেমন সরকারের কাছ থেকে ভাল কিছু আশা করি । সরকারের ভাল কিছু করার পিছনেও আমাদের ভুমিকা রয়েছে । আমাদের অসচেতন আলোচনা , ফেসবুক পোষ্ট এসব যে শুধু আমাদের দেশের মানুষই দেখছি তা তো না…এটা দেখছে দেশের বাইরের যে কেউ। তাই বাংলাদেশে যারা বিনিয়োগ করেন , বিভিন্ন উন্নয়নমুখী কাজে যে সব দাতা সংস্থা সাহায্য করে থাকেন কিংবা যেসব অপ্রকাশিত শক্তির উপর ভর করে আমাদের দেশের ক্ষমতার পালাবদল হয় তাদের মধ্যে যদি আমাদের নিয়ে এমন মানসিকতা জন্ম নিয়ে যায় যে যেকোন একটা ঘটনায় আমরা চোখ বন্ধ করে দুই ভাগে বিভক্ত . তবে তারা দূর থেকে কি বুজবেন!! যেখানে এই দেশে থেকেই আমরা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছি । আবার কেউ কেউ  বিভ্রান্ত হচ্ছি । এভাবে দিন দিন আমরা মানুষ মানুষের কথার উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলছি, যা দেশের উন্নয়ের জন্য বড় একটা বাধা ।

সর্বোপরি, ১/১১ এর সরকার কিংবা অতীত বর্তমানের যে কোনো সরকারকে জনগনের কক্ষপথে রাখতে আমাদের জনগণকে আরও সচেতন হতে হবে বলে আমার বিশ্বাস। আমরা যেন শুধু খারাপ দিক নিয়েই নিজেকে বাস্ত না রেখে , খারাপ এবং ভালোর মধ্য থেকে নিজেদের সরবচ্চ ভালকেই সাপোর্ট করি …।

যাতে আর কোন জঙ্গির উত্থান না হয় আমাদের কারো ঘরে । যখন একজন বাবা লজ্জা,  ঘৃণায় নিজের সন্তানের লাশ গ্রহন করার শক্তি হারিয়ে ফেলেন …।