ক্যাটেগরিঃ ফটো

সকালে পত্রিকা পড়ে জানতে পারলাম আজ “ব্লু মুন” বা নীল চাঁদের পূর্ণিমা দেখা যাবে। মনে মনে প্ল্যান করে রাখলাম রাত ১০/১১টার দিকে ছাদে উঠে প্রাণ ভরে ‘ব্লু মুন’ দেখবো। শুক্রবার হওয়াতে বিকালে বাসায় ছিলাম। মাগরিবের আযান হলে উযু করে হাতমুখ মোছার জন্য তোয়েলটা খুজতে বারান্দায় আসলাম। দেখি লেকের পানি তখন রুপালী আলোয় চিকচিক করছে। বিশাল চাঁদ পূর্ব আকাশে তার সৌন্দর্য্য মেলে ধরেছে আপন মহিমায়। অপূর্ব! অপূর্ব সুন্দর ও নৈস্বর্গীক সেই দৃশ্য। নীলাভা আকাশে বিশাল চাঁদ… অসাধারণ! অসাধারণ সেই অনুভূতি। এ যেন স্বর্গীয় কোন দৃশ্যপট.. যা আগে কখনো দেখিনি। মুগ্ধতায় আবিষ্ট হয়ে রইলাম। নামাজটা পড়ে আবারো দৃশ্যটি উপভোগ করলাম প্রাণভরে অনেক্ষণ। হাতের কাছে ক্যামরা না থাকায় আইফোনে কিছু ছবি তুলে রাখলাম। মনে মনে চিন্তা করলাম আহা! প্রতিনিয়ত আমরা কত কিছুই না মিস করি পৃথিবীর এই রুপ-রস-সৌর্ন্দয্য দেখা থেকে। আধা ঘন্টা পর আর সেই সৌর্ন্দয্য রইলনা। আস্তে আস্তে নীল রংটি মিলিয়ে গেল। আকাশ গাঢ় অন্ধকারে রুপ নিল..তার মাঝ শুধু অন্য সব পূর্ণিমা রাতের মতো বড় চাঁদটি ঝকঝক করতে থাকলো। পরে বুঝতে পারলাম আমিও বঞ্চিত হতাম যদি রাত ১০টায় ‘ব্লু মুন’ দেখতে ছাদে যেতাম। কারণ তখন ‘ব্লু মুন’ বা অন্যসব পূর্ণিমার চাঁদের মধ্যে কোন পার্থক্য বুঝা যেত না।
ছবির স্থান: আগাঁরগাও, ঢাকা। তারিখ: ৩১/০৮/২০১২ইং, সময়: সন্ধ্যা ০৬:৩৮ মিনিট