ক্যাটেগরিঃ ফটো

বাংলাদেশের এক এক অঞ্চলে এই ফুলটির এক এক নাম। কোথাও সোনালু, কোথাওবা অলানু, কর্ণিকা, সন্দাল, বান্দর লাঠি, আর বৈজ্ঞানিক নাম cassia fistula । এটি থাইল্যান্ডের জাতীয় ফুল এবং কেরেলা (kerala)-র state flower। থাইল্যান্ডে ইহাকে Ratchaphruek বা Dok Khuen বলে। অনেকে Thais ও বলে থাকে। বাংলায় বান্দর লাঠি বা সোনালু ফুল নামে আমরা চিনি। ইংরেজীতে এই গাছকে Goldren Shower Tree বা Goldren Shower Cassia বা Drum Stick tree বলে। হিন্দিতে Bendra Lathi, Dhan Baher, Giri maloah,amaltas বলে। Urdu -তেও amaltas বলে। আমাদের উপ মহাদেশে প্রায় সব অঞ্চলে পাওয়া যায়। তবে পাচাত্য উদ্ভিদ বিজ্ঞানী গণের বক্তব্য হলো- এই গাছের আদিম বাসস্থান দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া। কিন্তু এটা দেখা যাচ্ছে যে, প্রাক্-আর্য সভ্যতার কালে অর্থাৎ দ্রাবিড় সভ্যতার কালেও এই ফুলের বিভিন্ন ব্যবহার ছিল । Ornamental plant হিসাবে গ্রীষ্মমন্ডলীয় (tropical) এবং sub-tropical এলাকায় এটি জন্মে থাকে। সোনালু উত্তর গোলার্ধে মে মাসে এবং দক্ষিণ গোলার্ধে নভেম্বর মাসে ফুটে থাকে। রৌদ্র এবং যে মাটিতে পানি জমে থাকে না সেখানে ভাল জন্মে। অযত্ন সম্ভুত এই গাছ মধ্যমকার প্রায় ১০-১৫ মি. পর্যন্ত উচু হতে দেখা যায়। ফাল্গুন চৈত্রে এর পাতা জড়ে যায় এবং বৈশাখে নতুন কচি কলা পাতা রংয়ের পাতা গজায়, তার পরই গাছ পূষ্পিত হতে শুরু করে। এর বৈশিষ্ট হলো গাছের শাখা হতে লম্বা ছড়া নামে । সেটাতেই মালার আকারে সুন্দর কাচা হলুদ রংয়ের ফুল ফুটে। আয়ুর্বেদিক ঔষধে ইহাকে রোগ নাশক(disease killer) বলে থাকে। ইহার বিচী বিষাক্ত। ফলের শাঁস রেচক ঔষধ হিসাবে ব্যবহার করা হয়। এছাড়া জ্বর, আর্থারাইটিস, nervous system disease, রক্তমোক্ষন(bleeding) রোগ যেমন hematemesis বা hemorrhages,cardiac conditions এবং পাকস্থলির সমস্যা যেমন acid reflux ইত্যাদি রোগের ঔষধ তৈরীতে ব্যবহার করা হয়।

ছবিটি আইফোনে তোলা, ছবির স্থান: মানিক নগর, ঝিটকা, মানিকগঞ্জ। তারিখ: ১১/০৫/২০১২ইং, সময়: বিকাল ০৩:৩২ মিনিট