ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

বাংলা ভাষা এবং বাংলাদেশের জন্ম রক্তের বিনিময়ে।ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রাণ দিয়েছে বাংলা মায়ের একদল দামাল ছেলে। যারা বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার জন্য কোনকিছু না ভেবেই ঝাঁপ দিয়েছিলো আন্দোলনে। যারা মা-বাবা, স্ত্রী-সন্তান, পরিবারের কথা চিন্তা না করেই যোগ দিয়েছিলো স্বাধীনতা যুদ্ধে। তাদের তাজা প্রাণের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশ, পেয়েছি নিজেদের গর্বের ভাষা বাংলাকে।কিন্তু আমার প্রশ্ন তাঁরা কি পেয়েছে? আমরা তাঁদেরকে কি দিতে পেরেছি?

প্রতিবছর ২১শে ফেব্রুয়ারিতে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে তাঁদেরকে স্মরণ করা হয়। ২১ ফেব্রুয়ারি চলে গেলেই আমরা তাদেরকে ভুলে যায়। কিন্তু কেন? ২১শে ফেব্রুয়ারির বেশ কিছুদিন আগে থেকে চলে শহীদ মিনার ধোঁয়া-মোছার কাজ।২১শে ফেব্রুয়ারির পর থেকে সারা বছর শহীদ মিনারগুলো থাকে অরক্ষিত। আমি শহীদ মিনারকে একটি পবিত্র স্থান বলবো কারণ সেখানে দাড়িয়েঁ শহীদদেরকে স্মরণ করা হয়।শহীদদের জন্য দোয়া করা হয়। শহীদ মিনারের মতো পবিত্র স্থানে যখন দেখা যায় যুবক-যুবতীদের প্রেমলীলা, ফেরীওয়ালার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, গরু-ছাগলের চারণ বেদী তখন আমাদের দেশপ্রেম, শহীদদের প্রতি আমাদের ভালবাসা, শহীদদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা প্রশ্নবিদ্ধ হয়। শুধু শহীদ মিনার নয় শহীদদের স্মরণে দেশে যতগুলো স্থাপত্য রয়েছে বছরের বেশিরভাগ সময়েই সেগুলো থাকে চরম অযত্নে-অবহেলায়। বিশেষ দিনগুলো আসলেই সেগুলো ধোঁয়া-মোছা করা হয়। তারপর………….!

বর্তমানে ১৬ কোটি মানুষের দেশ বাংলাদেশ। এই ১৬ কোটি মানুষের মুখের ভাষার জন্য যারা জীবন দিল, স্বাধীন দেশের জন্য যারা রক্ত দিলো আমরা তাঁদেরকে ভুলতে বসেছি। বিশেষ দিনগুলোতেই শুধু তাদেরকে স্মরণ করি, তাও আবার দায়সারা মতো। যদি তাই না হবে, তাহলে সমগ্র বাংলাদেশের মসজিদ, মন্দির, গীর্জাতে তাঁদের জন্য কেন দোয়া অনুষ্ঠান করা হয়না? বাংলাদেশের প্রত্যেকটি মায়েরা কেন তাঁদের জন্য কাদেঁনা? কেন শুধু শহীদদের স্বজনেরা যুগের পর যুগ কেঁদে যাবে? তাঁরা কি বাংলা ভাষার জন্য আন্দোলন করেনি? তাঁরা কি বাংলাদেশের জন্য সংগ্রাম করেনি? প্রশ্ন রইল সমগ্র বাঙালি জাতির বিবেকের কাছে।

আমরা দেশপ্রেম নিয়ে অনেকেই মাখামাখি করি। কিন্তু যাঁরা দেশকে আমাদের জন্য শত্রু মুক্ত করলো, আমাদেরকে দিলো স্বাধীন রাষ্ট্র তাহলে তাঁদের প্রতি ফরমালিনমুক্ত প্রেম দেখাতে পারিনা কেন?

শহীদেরা যে স্বপ্ন নিয়ে রাজপথে নেমেছিলো সেই স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নের দায়িত্ব বৃহত্তর বাঙালির হাতে। কিন্তু আমরা কতটুকুইবা বাস্তবে রুপ দিতে পেরেছি?

যাহোক, আমরা যদি কালপরিক্রমায় শহীদদেরকে ভুলে যায় তাহলে পৃথিবীতে আমরাই হবো শ্রেষ্ঠ অকৃতজ্ঞ জাতি। শহীদেরা আমাদের দিয়েছে একটি সুন্দর ভাষা, দিয়েছে একটি স্বাধীন দেশ। তাই শহীদদের প্রতি সম্মান, ভালবাসা, শ্রদ্ধার মধ্যে যেন কোন রকম কৃত্রিমতা না থাকে সমগ্র বাঙালি জাতিকে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। জান্নাতবাসী হোক বাংলাদেশের জন্য প্রাণ বিসর্জন দেওয়া সংগ্রামী প্রত্যেক বীর।