ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

 

সবাই চিপা চাপা দিয়া মৃদু প্রতিবাদ করছে টি এস সি এর বন্য বৈশাখী উৎসবের দুর্ঘটনা নিয়ে । একদল আবার ইনিয়ে বিনিয়ে সাফাই গাওয়ারও চেস্টা চালাছে । অনেকটা “ইহা ছিল এনিমেল লাভ মানে বাঘ বাঘিনেকে কামড়িয়ে ভালবাসা প্রকাশ করে যেমনি, ঠিক তেমনি” তাই বলে কি বাঘ বাঘিনীকে ভালবাসে না?? পারেও, ওই এক সদস্যবিশিঠ তদন্ত কমিটির গায়িবি রিপোর্ট আর কত খাওয়াবে ?

টি এস সি এর অপকর্মের অবস্ত্যা দেখে একটা কৌতুক মনে পরে গেল …
“স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড , এফ বি আই আর বাংলাদেশ পুলিশ এর আসামী ধরার প্রতিযোগীতা হয়েছিল
গহীন বনে খরগোশ ছেড়ে দিয়ে তাকে কতো তাড়াতাড়ি খুজে বের করতে পারে এই ছিল দক্ষতার প্রমান …
যথা রীতি এক ঘন্টা , ২ ঘন্টার মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ ছাড়া সবাই খরগোশটা ধরে নিয়ে আসল ,
বাংলাদেশ পুলিশ ১০ মিনিটের মাথায় একটা ভাল্লুককে মারতে মারতে নিয়ে আসলো আর ভাল্লুক কোঁকাতে কোঁকাতে বলছিল স্যার ” আমিই সেই খরগোশ ” মাইরেন না আমিই সেই খরগোশ…
এখন দেখার বিষয় হছে, কোন ভাল্লুককে খরগোশ বানায় নিয়ে আসে । অপেক্ষায় থাকলাম …

দেখি টি এস সি কতো দিন বন্য প্রানীর ইকো পার্ক হিসাবে বিরজমান থাকে !!!!