ক্যাটেগরিঃ ভ্রমণ

 

যান্ত্রিক শহরের বুকে সবুজের দেখাটা যেন এখন অসম্ভব হয়ে উঠেছে। শহরের বুকে সময় কাটানোর মত অনেক পার্ক থাকলেও নোংরামী আর অশ্লীলতার কারণে পরিবার নিয়ে সময় কাটানোর কথা ঘুণাক্ষরেও ভাবতে পারেন না কেউ কেউ। ছুটির দিন কাটে ইট-পাথরের ছোট কারাগারে, ছোট একটি যান্ত্রিক বস্তু নিয়ে। ইচ্ছে যদি হয় একটুখানি সবুজের ছোঁয়া পেতে, আর হাতে যদি সময় থাকে সারাদিন, ঘুরে আসুন রূপগঞ্জের ‘জিন্দা পার্ক’ থেকে।

 

বাঁশের সাকো, শহরের বুকে একটুখানী গ্রামের ছোয়া।
ঢাকা শহরের যানজট, কোলাহল, ধুলোবালি, গাড়ির হর্ণ আর যান্ত্রিকতা থেকে কিছুক্ষণের জন্যে মুক্তি পেতে অবশ্যই ঘুরে আসা উচিৎ ‘জিন্দা পার্ক’ থেকে। অসাধারণ স্থাপত্যশৈলীতে নির্মাণ করা হয়েছে পার্কটি। নামকরণ ‘জিন্দা পার্ক’ হলেও এটি মূলত একটি কমিউনিটি ভিলেজ। এটি কোন সরকারী উদ্যোগ নয় কিংবা কোন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানেরও উদ্যোগ নয়। ‘জিন্দা পার্ক’ তৈরি হয়েছে স্থানীয় মানুষদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ এবং অক্লান্ত পরিশ্রমে।

১৯৮০ সালে পাঁচ হাজার সদস্য নিয়ে ‘অগ্রপথিক পল্লী সমিতি’ প্রতিষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ ৩৫ বছর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের এই ‘জিন্দা পার্ক’। এমন উদ্যোগ, এত মানুষের অংশগ্রহণ, ত্যাগ স্বীকার এবং এত সুদীর্ঘ প্রয়াস দেশের ইতিহাসে অবিস্মরণীয়। বর্তমানে অপস ক্যাবিনেট, অপস সংসদ এবং অপস কমিশন নামে তিনটি পরিচালনা পরিষদ রয়েছে।

24129825_2097492737203815_8191496674182240764_n

 

১৫০ একর জায়গা বিস্তৃত পার্কটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত। রয়েছে পাঁচটি বিশাল জলধার, দুটি ছোট দ্বীপ, গেস্ট হাউজ, ট্রি হাউজ, টিলা, ফুলের বাগান এবং লেকের উপর অসাধারণ ভাসমান ব্রিজ।

23844880_2097494010537021_3686594004072681533_n

 

২৫০ প্রজাতির ১০ হাজারের বেশি গাছপালা রয়েছে পার্কটিতে। চারদিকে শুধু সবুজের সমাহার। অচিরেই খুঁজে পাওয়া যায় শান্তির সমাহার।

জিন্দা পার্ক   সবুজের সমাহার, জিন্দা পার্ক

প্রবেশ মূল্য মাত্র ১০০ টাকা, তবে খাবার নিয়ে প্রবেশ করতে আপনাকে অতিরিক্ত ২৫ টাকা গুনতে হবে। পার্কের ভিতরে খাওয়ার জন্যে আছে মহুয়া স্নাকস এবং মহুয়া রেস্টুরেন্ট। দেশীয় খাবারের সব ধরনের সমাহারই পাবেন এখানে। লোকশিল্প পণ্যও নিয়ে নিতে পারেন মনের মত। পরিবার নিয়ে থাকার জন্যে আছে মহুয়া গেস্ট হাউজ।

জিন্দা পার্ক

যেভাবে যাবেনঃ 

ঢাকা থেকে উত্তরা হয়ে টঙ্গী ফ্লাইওভার পার হয়ে মিরেরবাজার চৌরাস্তা থেকে কাঞ্চন ব্রিজ পার হওয়ার পর কিছুদূর যেতেই দেখা পাবেন জিন্দা পার্কের।

অথবা, ঢাকা থেকে কাচপুর ব্রিজ পার হয়ে ভুলতা গাউসিয়া পার হয়ে কাঞ্চন ব্রিজ থেকে জিন্দা পার্ক। কাঞ্চন ব্রিজ থেকে পাচ মিনিটের পথ জিন্দা পার্ক।

সবচেয়ে সহজ উপায় হল, কুড়িল বিশ্বরোড এর পূর্বাচাল হাইওয়ে রোড থেকে, পুর্বাচাল- ৩০০ফিট রাস্তা থেকে লেগুনা বা সিএনজি করে খুব সহজেই জিন্দা পার্ক যাওয়া যায়।

ট্রি হাউস, জিন্দা পার্ক  জিন্দা পার্ক

গ্রামের ছোয়া, জিন্দা পার্ক

এখানে গাড়ি পার্কিং এর সুবিধা রয়েছে। সপ্তাহের সাতদিনই পার্কটি খোলা থাকে। মাগরীবের আজানের পর পার্কটি বন্ধ হয়ে যায়।

তবে আর দেরী করছেন কেন? আজই আপনার পরিবার নিয়ে কিছু সময় মেতে উঠুন সবুজের আবেশে।