ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 

পৃথিবীতে সবচাইতে মারাত্মক বা ডেঞ্জারাস ডিজিসের মধ্যে কর্কট বা ক্যান্সার অন্যতম। যার সাফল্যতম ট্রিটমেন্ট অাজ পযর্ন্ত কোন মেডিকেল ডিপার্টমেন্ট এ অাবিস্কৃত হয়নি। এ্যালো ডিপার্টমেন্ট এ যা চালু অাছে তার দৌড় সার্জারী পযর্ন্ত। যদি বিন্যাইন ক্যান্সার হয় তবে রেডিও বা ক্যামো থ্যারাপি পযর্ন্ত নিস্কৃতি। অার ম্যালিগন্যান্ট হলে যতো দিন ব্যাংক ব্যালেন্স অাছে ততোদিন পৃথিবীতে অক্সিজেন গ্রহণ অার কাবর্ন-ডাই-অক্সাইড ত্যাগ করা যায়। অার যার নেই তার ছুটির ঘন্টা বেজে ওঠে পৃথিবীর অন্তিম নিয়মে।

পক্ষান্তরে হোমিও ডিপার্টমেন্ট ক্যান্সারজনিত ট্রিটমেন্ট এ যদি পেশেন্ট প্রাইমারী স্টেজে অাসে তবে লাকি চান্স! সেকেন্ডারী স্টেজে অাসলে ৫০%, অার টারসিয়ারী পযার্য়ে অাসলে পেশেন্ট কে রিকুভারী দিতে পারে বাট কিউর নট পসিবল! এ পরিস্থিতি তে অামাদের করণীয় যা থেকে বিরত থাকলে ক্যান্সার জাতীয় রোগ থেকে অামরা মুক্ত থাকতে পারবো তা জেনে নেওয়া এবং যথাসম্ভব এড়িয়ে চলা।

(১) যে কোন সিস্ট, ফাইব্রয়েড, টিউমার হলে বায়স্পি টেস্ট তথা FNAC না করে কোন ক্রমেই সার্জারী করা যাবে না। ( মূলত জানার বিষয় ম্যালিগন্যান্ট না বিনাই্যান)

(২) ফরমালিন যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলা অাবশ্যক।

(৩) এ্যালকোহল পান থেকে বিরত থাকা প্রয়োজন।

(৪) সিগারেট/জর্দ্দা পরিহার করতে হবে।

(৫) রাসায়নিক প্রসাধনী ব্যবহারে সর্তকতা প্রয়োজন।

(৬) জন্ম নিরোধক পিল/মর্নির অাফটার ব্যবহারে সর্তকতা প্রয়োজন।

(৭) কোন ফাংগাল ইনফাকশনে মলম ব্যবহার থেকে বিরত থাকা উচিত।

(৮) দৃষ্টিনন্দন কোন রাসায়নিক দ্রব্য মেশানো খাদ্য থেকে বিরত থাকা প্রয়োজন

(৯) যথাসম্ভব কোক জাতীয় ঠান্ডা থেকে বিরত থাকা প্রয়োজন

(১০) লাল মাংস তথা গরু/শুকুরের মাংস কম খাওয়া উচিত।

(১১) ব্রয়লার মুরিগ তে ক্রোনিয়াম নামক রাসায়নিক পদার্থ মিশ্রিত থাকে যা ক্যান্সার সৃষ্টি তে সহায়ক ভূমিকা রাখে।

(১২) শিশুকে অনেক মায়েরা ব্রেস্ট ফিডিং করাতে চায়না, সে সব মায়েদের ৪০% ব্রেস্ট ক্যানসার হওয়ার অাশংকা থাকে। সর্বোপরি নিয়তির লিখন যায় না নাকি খণ্ডন, তবুও অামাদের সর্তকতা প্রয়োজন।