ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বিশ্বাস পাড়ায় অবস্থিত “মেট্রোসীম ইস্পাত” মিলের বিষাক্ত ধোঁয়া ও শব্দে আশে পাশের প্রায় দুই শতাধিক বাড়িঘরের বাসিন্দারা এখন প্রায় বাড়িঘর ছাড়ার উপক্রম। উক্ত ফ্যাক্টরিটি ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশেই সফিপুর বিশ্বাসপাড়ায় একটি ঘন বসতি পূর্ন এলাকায় অবস্থিত। কোন পূর্ব পরিকল্পনা ছাড়াই ঘনবসতি পূর্ন এলাকায় গড়ে উঠেছে এই “মেট্রোসীম ইস্পাত” মিলটি। এ বিষয়ে মেট্রোসীম ইস্পাত মিলের ম্যানেজার ইন্জিনিয়ার মো: জানে আলম তালুকদার জানান, পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নিয়েই ফ্যক্টরীটি পরিচালিত হচ্ছে। তা ছাড়া এ ধরনের ফ্যাক্টরির ধোঁয়া ও শব্দ তো থাকবেই আমরা কি করতে পাড়ি!

এলাকা ঘুরে দেখা যায়, আশে পাশের বাড়ী ঘরের টিন সম্পূর্ণ মরিচা ধরে নষ্ট হয়ে গেছে, গাছপালা মরে যাচ্ছে। এলাকার বাসিন্দা মোঃ নাসির উদ্দিন মোল্লা, সালাউদ্দিন, মজিবর রহমান, মোকলেছ, শাহআলম সহ এলাকাবাসী জানায় আমাদের এখানে প্রায় ৮-১০ হাজার লোকের বসবাস, এখানে কোন গাছ জন্মায় না। সন্ধ্যার পর উচ্চ শব্দের কারণে ছেলেমেয়েরা লেখা পড়া করতে পারছে না। এলাকাবাসী আরো জানায়, রাত ০৮টার পর ইস্পাত মিলের রড তৈরীর অধিক উচ্চ শব্দে বাড়ি ঘরে থাকা দায় হয়ে দাড়িয়েছে ! মিলের পরিত্যাক্ত বর্জ্য মহাসড়কের পাশেই ফেলে ফেলে রাখে এতে করে রাস্তায় চলাচলে সমস্যা হয়। বিশেষ করে গার্মেন্টস কর্মীদের রাস্তার পাশ দিয়ে হেটে যেতে প্রায়ই দূর্ঘটনার শিকার হয় । ফ্যাক্টরী শব্দ দূষণ একটি মারাত্বক ব্যাধী হয়ে দাড়িয়েছে বিশ্বাসপাড়া এলাকাবাসীর উপর। এ দিকে একই উপজেলার পল্লী-বিদ্যুৎ দীঘির পাড় এলাকায় “ডিভাইন ফ্যাশন” ফ্যাক্টরির ডাইং মেশিন-এর ২৪ ঘন্টা উচ্চ শব্দে এলাকাবাসী ফ্যাক্টরী মালিকের কাছে জিম্মি হয়ে আছে। ফ্যাক্টরি সংলগ্ন বাড়ীর মালিক মো:সেলিম, মো:সামছুল আলম, ফরিদ হোসেন সহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক বাড়ীর মালিক ও এলাকাবাসী জানায়, এই শব্দের কারনে আমারা বাসা ভাড়া দেওয়া নিয়ে খুবই বিপাকে পড়েছি, কারন এই শব্দের কারনে এখানে কেহ বাসা ভড়া নিতে চায় না। কেহ ভাড়া নিলেও ১-২ মাসের বেশী থাকে না, তাই সব সময়ই আমাদের বাসা খালি পড়ে থাকে। এই শব্দের কারনে এলাকাবাসী কেহ রাত্রে ঘুমাতে পারছে না। কিন্তু বিষয়টি দেখার মত কেহ নাই। এলাকাবাসীর এখন একটাই প্রানের দাবী পরিবেশ অধিদপ্তর যেন অচিরেই এই শব্দ দূষণ বন্ধের ব্যবস্থা করেন।