ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর মুখ নিঃসৃত যেসব কথা সরাসরী আল্লাহ সুবহানাতায়ালা বলেছেন এরকম বাক্য দ্বারা শুরু হয় তাকেই হাদীসে কুদসী বলা হয়। অর্থ্যাৎ রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর মুখে আল্লাহ সুবহানাতায়ালার বাণী সম্ভার। আমি এখানে কয়েকটি হাদীসে কুদসী দিলাম আপনাদের পড়ার জন্য।

১- হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন- “ যখন আল্লাহ সুবহানাতায়ালা মাখলুক সৃষ্টি করতে স্থির করলেন, তখন তিনি নিজের কিতাবে যা তাঁর কাছে সংরক্ষিত আছে, নিজের জন্য লিখে নিলেন। নিশ্চয়ই আমার রহমত আমার ক্রোধের উপর প্রাধান্য বিস্তার করবে। ” (সহীহ বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)

২- হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন- “আল্লাহ সুবহানাতায়ালা বলেছেন-“ আমি সকল শরীকের শিরক ( অংশীবাদ ) থেকে সম্পূর্ণ অমুখাপেক্ষী। যে কেউ এমন আমল করে যাতে সে আমার সাথে অন্যকে শরীক করে, আমি তাকে ও তার শিরককে ছেড়ে দেই। ( অর্থ্যাৎ তার সাথে ও তার শিরকের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই ) ” – ( সহীহ মুসলিম শরীফ, ইবনে মাযাহ )

৩- হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন- “আল্লাহ সুবহানাতায়ালা বলেছেন-“ অহংকার আমার চাদর আর শ্রেষ্ঠত্ব আমার ইযার। ( জামা বিশেষ, রুপক অর্থে ). সুতরাং যে কেউ এতদুভয়ের কোন একটি নিয়ে আমার সাথে টানা-হেঁচরা করবে, আমি তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করবে। ” -( আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ )

৪- হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন- “আল্লাহ সুবহানাতায়ালা বলেছেন-“ তিন ব্যক্তি এমন আছে, কিয়ামতের দিন আমি যাদের বিপক্ষ হব। (এক) এমন ব্যক্তি যে আমার সাথে কৃত অঙ্গীকার ভঙ্গ করলো; (দুই) যে ব্যক্তি কোন স্বাধীন মানুষ বিক্রি করে তার দাম ভোগ করলো, (তিন) যে ব্যক্তি কোন শ্রমিক নিয়োগ করে তার থেকে পুরো কাজ আদায় করে নিল, কিন্তু তাকে তার মজুরী পরিশোধ করলো না। ”- (সহীহ বুখারী, ইবনে মাজাহ)

***
তথ্য সূত্রঃ চল্লিশ হাদীসে কুদসী, লেখকঃ ডঃ ইযযুদ্দিন ইবরাহীম, ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ।