ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

সম্প্রতি সংবিধানের রাষ্ট্রধর্ম বহাল বা বাতিল নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের দুই নেতার পরস্পরবিরোধী বক্তব্য মিডিয়ায় এসেছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক বলছেন, আমি বিভিন্ন জায়গায় বলেছি, বিবিসিতে বলেছি, আমি কখনোই বিশ্বাস করি না, ইসলাম ধর্ম বাংলাদেশের সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম থাকা উচিত। এটা আমাদের কৌশল। আমরা সুযোগ পেলে, সময় পেলে ইনশাহ আল্লাহ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে দেব।

এ প্রেক্ষিতে একই দলের নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, সংবিধানে রাষ্ট্রধর্মের বিষয়টি একটি মীমাংসিত বিষয়। মীমাংসিত বিষয়টি নিয়ে কেউ কোনও মন্তব্য করে থাকলে, এটি তার একান্ত নিজস্ব বিষয়। সংবিধান সংশোধন করে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেওয়ার ইচ্ছা সরকার বা আওয়ামী লীগের নেই।

221-696x228

এইবার বোঝেন কল্যাণরাষ্ট্রের কথা চিন্তা না করে সংবিধানে রাষ্ট্রধর্মের পুরনো কাসুন্দি নিয়ে আবারও শাসকগোষ্ঠীর নিজেদের মধ্যে বেহুদা ধাক্কা-গোতা শুরু হয়ে গেছে! আচ্ছা ভাই, একটা সোজা কথার জবাব দেন তো? দেশের সংবিধানে সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র, জাতীয়তাবাদ, ধর্মনিরপেক্ষতা সবই আছে। আবার বিস্ময়করভাবে ধর্মনিরপেক্ষতার সাথে সাংঘর্ষিক রাষ্ট্রধর্ম বলেও একটা বিষয় আছে! গলা চড়িয়ে খুব বলা হয়, এই রাষ্ট্র অসাম্প্রদায়িক। মানুষে মানুষে কোনো বিভাজন নেই!

কিন্তু বর্তমানে এই রাষ্ট্রের কি কোনো ধর্ম আছে? চারপাশে অধর্মের জয়জয়কার। হিন্দু পোড়ায় কে? ধার্মিকেরা! সাঁওতাল মারে কে? ধার্মিকেরা! ধর্ষণ করে কে? ধার্মিকেরা! খুন করে কে? ধার্মিকেরা! শাসন করে কে? ধার্মিকেরা! শোষণ করে ধার্মিকেরা আবার শোষিতও হন সেই ধার্মিকেরাই!

তাহলে বোঝাই যাচ্ছে, এইদেশে এখন অধর্মটাই চর্চা ও আরাধ্যের একমাত্র বিষয়! এখানে সংবিধানে খামোখা ধর্ম খোঁজার আগে অনুভব করা দরকার, যে ‘আচারনিষ্ঠা’ কেবল কিতাবে বিদ্যমান কিন্তু আপনার হৃদ গোয়ালে ছিটেফোঁটারও দেখা নাই সেই ধর্ম খামখেয়ালি বাহাসের বিষয় হিসেবে উপাদেয় বা সুখকর হতে পারে; সামগ্রিক মঙ্গলের জন্য মোটেও নয়!

ধর্মে বলা আছে, ঘুষ খাওয়া মানা, খাইয়েন না! সদা সত্য কথা বলিবে, তো মিথ্যাকে ঘৃণা করেন। অন্যের অনিষ্ট সাধন করিবে না, কইরেন না! পরশ্রীকাতর হইয়ো না, একথা মান্য করেন! নীতিভ্রষ্ট হইয়ো না, হইয়েন না! মর্যাদা ও শ্রদ্ধায় জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বিশ্বের সকল মানুষকে ভালোবাসিও, বাসেন! খুন, ধর্ষণ, হিংসা হানাহানিতে জড়িতে হইলে নিজেদের পতন নিজেরাই ডাকিয়া আনিবে, তো সেই পতনকেই কেন আহবান করে যাচ্ছেন! পাপ করিও না, সবার আগে একথা মানেন আর পূণ্যের সাধনায় জীবনটা সাজান না ভাই!

জানি, গলাবাজির জন্য, বাহাসের জন্য এবং গিরগিটির মতো সুযোগ বুঝে নিজের স্বরূপ বদলটা সচল রাখবার জন্য ধর্মটা খুব মিষ্ট লাগে। কিন্তু ধর্মের শিক্ষাটা যে বড়ই তেতো!

কারণ একটাই ধর্মীয় বোধের বকনা বাছুরটার কথা সংবিধান নামের কিতাবে বলা আছে, আপনার আমার গহিনে লুকিয়ে থাকা হৃদয়ের গোশালায় তাকে একদম খোঁজে পাওয়া যায় না!

কাজেই ওলামালীগ, হেফাজত, জুমাত নামের কাষ্ঠমৌলভীদের মন জোগাতে সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ধর্মরক্ষার কুটিল গীত আর…
লিবারেলদের মন ভোলাতে ড. রাজ্জাকের রাষ্ট্রধর্ম বাতিল নামের শীতল বাহাস কেবলই ‘কি করিতে কীযে করি’ মনের ন্যাস্টি ‘অবসেশন’ বা ‘শঠের ছলনা’ ছাড়া কিছু নয়!

যে রাষ্ট্রের শাসনবিধি বা শাসিত মানুষের মাঝে কোনোরূপ ধর্মের চিহ্নমাত্র আর অবশিষ্ট নাই; সেখানে ধর্মের আলাপ স্রেফ বাজে বাতুলতা মাত্র!

লেখকঃ সংবাদকর্মী, মাছরাঙা টেলিভিশন
১৪ নভেম্বর ২০১৬
twitter.com/fardeenferdous
facebook.com/fardeen.ferdous
blog.bdnews24.com/fardeenferdous