ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

আমি একজন নবীন ব্লগার, ক্রিকেট নিয়ে টুকটাক লিখি আর মুগ্ধ হয়ে অন্য ব্লগারদের লেখা পড়ি । কখনো একমত হই,কখনো দ্বিমত হই,কখনো আপ্লুত হই, কখনো হই আন্দোলিত । আজ আমি আন্দোলিত,শুধু ব্লগ পড়েই নয়, বাঘ বাঙালী হিসাবে আন্দোলিত,মিরপুরে থাকি বলে আন্দোলিত,উপলব্ধি দিয়ে আন্দোলিত,সর্বোপরি স্বাধীন বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসাবে আন্দোলিত । আজ সারাদিন টিভির রিমোট টিপে টিপে হাত ব্যথা করেছি; রায় শুনে বেকুব হয়ে একবার শুনি মুনতাসির মামুন কি বলেন,আবার শুনি সৈয়দ শহিদুল হক মামা কি বলেন,রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি কি বলেন,শুনি ৭১-এ কাদের মোল্লা যেসব ভয়াবহ অপরাধ করেছেন তার লোমহর্ষক বর্ণনা , দেখি কাদের মোল্লার হাতে নিহতদের স্বজনদের নতুন করে পাওয়া কষ্টের আহাজারি….আর ভাবি কি করা যায় । পিয়াস করিম, নুরুল কবীর-দের চেহারা চোখে ভাসে,আজ সারাদিন কোথাও তাঁদের দেখিনি । কোথায় তাঁরা,কি তাঁদের প্রতিক্রিয়া খুব জানতে ইচ্ছা করে । দুটোর একটা ঘটনা আজ ঘটেছে- হয় বিচারক মামলার মেরিট অনুযায়ী রায় দিয়েছেন অথবা দেননি । দেননি তা বলব না,নিশ্চয়ই তাঁরা একটা রায় দিয়েছেন তবে বাংলাদেশের মানুষের প্রতিক্রিয়া এটা পরিস্কার করে জানান দেয় যে মানুষ এই রায় আশা করেনি । কেন এমন হলো ? মুনতাসির মামুনের ভাষায় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আবার পরাজিত শক্তির কূট-কৌশলের কাছে হারল । আর আমি মনে করি এতে হতাশ হলেও ভেঙ্গে পড়া চলবে না । মুনতাসির মামুনের কন্ঠে কন্ঠ মিলিয়ে বলতে চাই দেশটা আমার,কোন রাজাকারের না । দেশীয় ,আর্ন্তজাতিক যদি কোন সমীকরণ থাকে তাহলে সব সমীকরণ ডিঙিয়ে হলেও আমি বিশ্বাস করি আমরা জয়ী হবো কারণ আমরা যুদ্ধ-জয়ী জাতি,বাংলাদেশ যুদ্ধ-জয়ী দেশ ।