ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

বাংলাদেশের সকল স্থানের সকল স্তরের মানুষের জন্য রইল শুভ নববর্ষের আমার প্রাণঢালা রঙিন শুভেচ্ছা। সবার জীবন যাতে এই বসন্তের মন ভোলানো ফুলের মতো প্রস্ফুটিত হয় এবং এই বর্ণিল ফুলের মতোই যেন এদেশের মানুষের জীবনগুলো রঙিন হয় আমি এই কামনাই করি। আজ বাংলা শুভ নববর্ষ। তাই আমি এই অশুভ অধম দেশের এক প্রান্ত থেকে সকলকে জানাই আমার প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আশা করি আজ সারাদিন আপনারা সকলেই বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানাবেন এবং জীবনের প্রতিটি ক্ষণের জন্য প্রতিটি মুহুর্তের জন্য বাংলা নববর্ষকে নতুনরূপে বরণ করে নেবেন। কাটিয়ে দেবেন সারাটাদিন আনন্দ উল্লাসে।

কিন্তু বড়ই পরিতাপের এবং বড়ই দুঃখের বিষয়, আমরা বেসরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক/কর্মচারীগণ এই আনন্দ উল্লাসের অংশীদার হতে আপনাদের সঙ্গে অংশ নিতে পারছি না। কারণ আমরা এদেশের নাগরিকই নই। কারণ আমি জানি না। তবে আমার মনে হয় আমাদের প্রাণপ্রিয় সুমহান নেতা যিনি স্বপ্ন দেখেছিলেন তার স্বাধীন বাংলাদেশের স্বাধীন জনগণ সবাই সমান অধিকার ভোগ করবেন, শুধু যারা বেসরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চাকরী করবে তারা ব্যতীত। এই কথা এই জন্য বললাম যে বৈশাখী ভাতা প্রদানের দু’দুবছর পার হচ্ছে অথচ বর্তমান দেশের এমপি মন্ত্রিগণ এখন পর্যন্ত জানেনি না যে বেসরকারী শিক্ষক/কর্মচারীগণ এখন পর্যন্ত বৈশাখী ভাতা পান না। তবে আমার অনুরোধ আপনারা এদেশের মহামান্য এমপি মন্ত্রিগণ আমাদের প্রতি এরূপ অন্যায় অবিচার আর করবেন না বা করতে দেবেন না। তাহলে আমাদের বেসরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক/কর্মচারীগণের এটাই মনে হবে যে আমরা বুঝি এদেশের নাগরিকই নই।

এমনিতেই তো সারা বিশ্বে একটা আশ্চর্যের বিষয় আছে যে বাংলাদেশের শিক্ষক মহলের মধ্যে দুটো ভাগ আছে, একটা সরকারী আর একটা বেসরকারী। যাইহোক আমাদের কর্তব্য তো আর আমরা ভুলতে পারি না। কারণ আমরা যে পন্ডিত মশাইয়ের উত্তরসুরী। তাই সবশেষে ভারাক্রান্ত হৃদয় নিয়ে এবং ভারাক্রান্ত মনে ক্লান্ত স্বরে সবাইকে জানাই আমার প্রাণঢালা শুভেচ্ছা।