ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

মিটিং মিছিল, হরতাল, তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা ইত্যাদির উদ্দেশ্য রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল। কারণ বাংলাদেশে যে কোন ভাবে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করতে পারলে অর্থ-সম্পদের মালিক হওয়ার স্বর্ণ-দুয়ার খুলে যায়। সুতরাং রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও দলকে উপদেশ দিয়ে বা গালিগালাজ করে রাজনীতির গণবিরোধী কর্মকান্ড বন্ধ করা যাবে না। স্বর্ণ-দুয়ার বন্ধ করাই ক্ষমতা দখলের গণবিরোধী রাজনীতি বন্ধের একমাত্র উপায়।
স্বর্ণ-দুয়ার বন্ধের একমাত্র পদ্ধতি হলো জনগণের ক্ষমতায়ন করা যার পদক্ষেপ হলোঃ

১। রাষ্ট্র ব্যবস্থার গণতন্ত্রায়ন করা যথা— (ক) ইউনিয়ন সংসদ, উপজেলা সংসদ, জেলা সংসদ, জাতীয় সংসদ ও গণ-সংসদ গঠন করে সংসদ ব্যবস্থার বিকেন্দ্রায়ন করা; (খ) ইউনিয়িন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ, জাতীয় পরিষদ ও সর্বোচ্চ পরিষদ করে নির্বাহী ব্যবস্থার গণতন্ত্রায়ন করা; (গ) ইউনিয়ন কোর্ট, উপজেলা কোর্ট, জেলা কোর্ট, বিভাগীয় হাইকোর্ট ও সুপ্রীম(আপিল বিভাগ) কোর্ট গঠন করে বিচার ব্যবস্থার গণতন্ত্রায়ন করা।

২। অর্থ-ব্যবস্থার গণতন্ত্রায়ন করা যথা—-(ক) ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা স্তরে বাজেট প্রণয়ন এবং উন্নয়ন ও কর্ম সংস্থান পরিকল্পনা পদ্ধতি প্রচলন করা। (খ) স্থানীয় অর্থ ব্যবস্থার মাধ্যমে ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা স্তরে উন্নয়ন ও কর্ম সংস্থান তহবিল গঠন করা। (গ) ব্যাঙ্ক, বীমা সহ সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠা করতে ডিপোজিটর ও শেয়ার হোল্ডারদের প্রতিনিধিত্বের ব্যবস্থা করা। (ঘ) কর ও রাজস্ব ব্যবস্থার গণতন্ত্রায়ন করতে সর্বস্তরে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের (স্থানীয় সংসদ সদস্য) দ্বারা কর, শুল্ক, রাজস্ব ব্যবস্থার প্রচলন করা।