ক্যাটেগরিঃ প্রবাস কথন

প্রবাসীদের অনুরোধ করব দল মত নির্বিশেষে সবাই একত্রে ভোটের অধিকার আদায়ের আন্দোলন জোরদার করুন,কারণ আপনার কাছে ভোট নাই তো এদেশের রাজনৈতিক নেতাদের কাছে আপনার এক পয়সার মুল্য নাই।

আমি আশা করব সরকার প্রবাসীর ভোটের অধিকার দেবার ক্ষেত্রে বিশেষ জোর দিবেন কিন্তু শুধু আসার উপর বসে থাকলে হবে না।

আমাদেরকে আমাদের অধিকার আদায় করতে হবে, আর প্রবাসীদের জন্যে এটা আদায় করা কোনো বেপার না এবং এর জন্যে সরকার কে ১ টাকা খরচও করতে হবে না।

*আজ যদি সরকার বলে সব প্রবাসীদের ভোটার করা হবে কিন্তু তার জন্যে তাকে ২০০ টাকা করে দিতে হবে, তাহলে সরকার ১৭০-২০০ কোটি টাকা উঠাতে পারে এবং যা দিয়ে খুব সহজেই এই কাজটি করা সম্ভব.

* তেমনি ভোট দেবার সময় সরকার যদি বলে ভোট দিতে হলে পোস্টাল খরচ বাবদ ১০০ টাকা করে দিতে হবে আমার মনে হয় কোনো প্রবাসীই না বলবে।

মোট কথা হলো আমরা প্রবাসীরা সরকারের কাছে ১ টাকার ভিক্ষা বা দয়াও চাই না তবে আমাদের ভোটাধিকার চাই এবং তা দিতে হবে।

আর এটা এমন দাবি যার প্রতি সমস্ত দল , নির্বাচন কমিশন সহ সরকারের সবার সমর্থন আছে কিন্তু কেউই গুরুত্ব দিচ্ছে না।

তাই সবাই যেন আমাদের ভোটাধিকারের গুরুত্ব দেয় সেই জন্যে আমি সকল প্রবাসীদের অনুরোধ করব দল মত নির্বিশেষে সবাই একত্রে আমাদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে সামিল হতে।
আমাদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনের ধাপ হিসাবে আমি নিম্ন্নলিখিত পদক্ষেপ নেবার জন্যে সকল প্রবাসীদের প্রস্তাব করছি

* আগামী তিন মাস মানে মে ২০১৩ পর্যন্ত যে যেভাবে পারি নির্বাচন কমিশন ও সরকারের কাছে আমাদের প্রবাসীদের ভোটাধিকারের দাবি তুলে ধরবো।

* যদি মে ২০১৩ ভিতরে প্রবাসীদের ভোটার করার সঠিক পদক্ষেপ না নেয় তবে আমি প্রস্তাব করবো জুন – জুলাই দুই মাস আমারা সাধারণত যে যেই পরিমানে রেমিটেন্স পাঠাই তার ৫০% পাঠানো বন্ধ রাখব।

*এবং তারপর যদি প্রবাসীদের ভোটার করার সঠিক পদক্ষেপ না নেয় তবে আমি প্রস্তাব করব আগামী আগস্ট মাস থেকে আমরা সকল প্রবাসী রেমিটেন্স পাঠানো বন্ধ রাখব।

আমি হলফ করে বলতে পারি প্রবাসীরা যদি এক হয় এবং একটু কষ্ট করে দুই মাস সময় লাগবে না অধিকার আদায়ের আন্দোলন সফল করতে এবং এর জন্যে কাউকে মিছিল করতে হবে না, টিয়ার গাস বা পেপার এস্প্রে হজম করতে হবে না।

আগামী সাধারণ নির্বাচনে আমরা ভোট দিতে পারবই ইনশাল্লাহ।