ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

আগামীকাল ২৭ জুলাই থেকে ২০১২ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক্‌স এর ৩০তম অলিম্পিক গেমস রূপে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে শুরু হতে যাচ্ছে যা আগামী ১২ আগস্ট, ২০১২ পর্যন্ত চলবে। এই পোস্টের মূল বিষয়বস্তু বিশ্বের এই মহামূল্যবান ক্রীড়া আসরের পিছনের কিছু বিষয়াদি নিয়ে।

সাবেক অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন সেবাস্টিয়ান কো’র নেতৃত্বে ৭ জুলাই, ২০০৫ সালে লন্ডন স্বাগতিক শহরের মর্যাদা পায়। সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত আইওসি’র ১১৭তম অধিবেশনে শহরটি নিলাম ডেকে মস্কো, নিউইয়র্ক সিটি, মাদ্রিদ এবং প্যারিসকে পরাভূত করে।

আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগতিক শহরের মর্যাদা পাওয়ায় প্রথম ও একমাত্র নগর হিসেবে লন্ডন এ নিয়ে তিনবার আধুনিক অলিম্পিক গেমস আয়োজনের বিরল কৃতিত্বের দাবীদার হয়েছে। এর পূর্বে নগরটি ১৯০৮ এবং ১৯৪৮ সালে অলিম্পিক ক্রীড়া সফলভাবে পরিচালনা করেছিল।

২০১২ সালের অলিম্পিকের আয়োজক হবার জন্য নিলামের আবেদনের শেষ তারিখ ছিল ১৫ই জুলাই, ২০০৩ ইং। এই নিলামে নয়টি শহর আবেদন করেছিল। এই শহরগুলো হচ্ছে হাভানা, ইস্তাম্বুল, লিপযিগ, লন্ডন, মাদ্রিদ, মস্কো, নিউইয়র্ক সিটি, প্যারিস এবং রিও ডি জানিরো। লন্ডনের তত্কালীন মেয়র কেন লিভিংস্টোন বলেছিলেন যে তার শহরকে অলিম্পিকের আয়োজক হিসাবে নিলাম করার প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিল লন্ডনের পূর্ব অংশটার উন্নয়ন সাধন করা যা কিনা ত্রিশ বছরেরও বেশি সময় ধরে অবহেলিত অবস্থায় রয়েছে।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি ২০০৪ সালের ১৮ই জুলাই প্রযুক্তিগত দিক বিচার করে ইতিমধ্যেই আবেদন করা নয়টি শহর থেকে চারটি বাদ দিয়ে দেন। যে পাঁচটি শহর অবশিষ্ট ছিল সেগুলো হলো লন্ডন, মাদ্রিদ, মস্কো, নিউইয়র্ক এবং প্যারিস। পাঁচটি শহরই ২০০৪ সালের ১৯শে নভেম্বরের ভিতরে প্রয়োজনীয় ফাইলপত্র আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কাছে পাঠিয়ে দেয়। পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি প্রত্যেক শহরে নিরিক্ষক দল পাঠায়। নিরীক্ষণের সময় প্যারিস দুই দিক দিয়ে বাধাগ্রস্ত হয় নিরীক্ষক দলের ভ্রমণের সময় প্যারিসে বেশ কিছু হরতাল চলছিল এবং প্যারিস নিলাম দলের একজন সদস্য পারিসের অভ্যন্তরে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত হয়।

৬ই জুন, ২০০৫ সালে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি নিরীক্ষার ফল প্রকাশ করে। এই ফলাফলে যদিও কোন ধরনের স্কোর ব্যাবস্থা ছিল না তবুও প্যারিসের রিপোর্টই সবচেয়ে আশাব্যাঞ্জক ছিল। এর পরেই অবস্থান ছিল লন্ডনের। নিউইয়র্ক এবং মাদ্রিদের ফলাফলও বেশ আশাব্যাঞ্জক ছিল।

লণ্ডন অলিম্পিক ২০১২ এর অংশীদারীত্ব যাদের
ক্রীড়া পরিচালনার ব্যয় নির্বাহের জন্য লন্ডন অলিম্পিক সংগঠকগণ বিশ্বের বৃহদাকার প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্যের বিজ্ঞাপনচিত্র প্রচারের জন্য চারটি বিভাগে – বৈশ্বিক, গ্যালারী-১, গ্যালারী-২ এবং গ্যালারী-৩ অংশ নিয়েছে।
২০১২ অলিম্পিক গেমসের স্পন্সর
বৈশ্বিক সহযোগী:
এসার
এতস
কোকা-কোলা
ডো
জেনারেল ইলেকট্রিক
ম্যাকডোনাল্ড’স
ওমেগা এসএ
প্যানাসোনিক
প্রক্টর এন্ড গ্যাম্বল
স্যামসাং
ভিসা

প্রাতিষ্ঠানিক সহযোগী:
এডিডাস
বিএমডব্লিউ
বিপি
ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ
বিটি
ইডিএফ এনার্জি
লয়েডস টিএসবি

প্রাতিষ্ঠানিক সমর্থক:
এডিকো
আর্সেলোরমিত্তাল
ক্যাডবুরি
সিসকো সিস্টেমস
ডেলোইতে
থমসা কুক গ্রুপ
ইউপিএস

প্রাতিষ্ঠানিক সরবরাহকারী:
এগ্রিকো
এয়ারওয়েভ
এটকিন্স
বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ
সিবিএস আউটডোর
ক্রিস্টাল সিজি
ইউরোস্টার
ফ্রেশফিল্ডস ব্রুখাস ডেরিঙ্গার এলএলপি
জি এস
গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লিন
জিমনোভা
হিথ্রো এয়ারপোর্ট
হেইনকেন ইউকে
হলিডে ইন
জন লুইস
ম্যাকক্যান ওয়ার্ল্ডগ্রুপ
মন্ডো
নেচার ভ্যালি
নেক্সট
দ্য নাইলসেন কোম্পানী
পপুলাস
র‍্যাপিস্ক্যান সিস্টেমস
রিও টিন্টো
টেকনোজিম
টেমস ওয়াটার
টিকেটমাস্টার
ট্রিবোর
ওয়েস্টফিল্ড

স্বেচ্ছাসেবক
বিনা মজুরীতে নিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবকগণ গেমস মেকার্স নামে পরিচিত। তাঁরা বিশ্বের সর্ববৃহৎ এ ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় শুরু এবং খেলাধূলা চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন ধরণের কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করবেন। ২০০৪ সালের শুরুতে ৭০,০০০ স্বেচ্ছাসেবক নিযুক্তির লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছিল। ২০১০ সালে এসে দেখা যায় যে, স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ২৪০,০০০-এরও অধিক দরখাস্ত জমা পড়েছিল।

টিকেট
আয়োজকরা আনুমানিক ৮ মিলিয়ন টিকেট অলিম্পিক গেমস এবং ১.৫ মিলিয়ন টিকেট প্যারা অলিম্পিক গেমসে বিক্রয় করবেন। তন্মধ্যে অলিম্পিক গেমসের ৮২% টিকেট ও প্যারা অলিম্পিক গেমসের ৬৩% টিকেট বিক্রয় করা হবে। লন্ডন অলিম্পিক গেমস আয়োজক কমিটি আশা করছে যে, £৩৭৫ – £৪০০ মিলিয়ন পাউন্ড টিকেট বিক্রী থেকে আয় হবে। এছাড়াও বেশ কিছু ক্রীড়া বিষয়ে বিনামূল্যে উপভোগ করা যাবে। সর্বমোট ২৬ খেলায় ৩০২টি ক্রীড়াবিষয় অনুষ্ঠিত হবে। তন্মধ্যে ম্যারাথন, ট্রায়াথলন এবং রোড সাইক্লিং অন্যতম।

অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নৌকাবাহিত ক্রীড়ায় টিকেট বিক্রয়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত ভীড় এড়ানোর লক্ষ্যে টিকেটধারী ব্যক্তিদেরকে দিনের ক্রীড়াবিষয়গুলো উপভোগের জন্য বিনামূল্যে লন্ডনের সরকারী যানবাহন ব্যবহারের সুযোগ রাখা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির আইন অনুযায়ী ক্রীড়াপ্রেমী ব্যক্তিবর্গ টিকেটের জন্য নিজ দেশের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির কাছ থেকে টিকেট সংগ্রহ করবে। ইউরোপীয় ইউনিয়নভূক্ত দেশের অধিবাসীগণ ইইউ-ভূক্ত যে-কোন দেশের টিকেটের জন্য আবেদন করতে পারবে।

গ্রেট ব্রিটেনে টিকেটের মূল্য অনেক ক্রীড়া বিষয়ের জন্য সর্বনিম্ন £২০ পাউন্ড স্টার্লিং থেকে শুরু করে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আকর্ষণীয় আসনের জন্য £২,০১২ পর্যন্ত ধার্য্য করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ২০১২ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিককে দ্বীপের বিস্ময় নামে নামাঙ্কিত করা হয়েছে। অস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র পরিচালক ড্যানি বোয়েল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করবেন।

ইতোমধ্যে, ফেব্রুয়ারি মাসে রাণী ২য় এলিজাবেথ এবং ডিউক অব এডিনবার্গ প্রিন্স ফিলিপ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অবমুক্ত করতে সদয় সম্মতিজ্ঞাপন করেছেন। এছাড়াও, জেমস বন্ডখ্যাত বিখ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেতা ড্যানিয়েল ক্রেইগকেও টেলিভিশনের রূপালী পর্দায় দেখা যাবে।

তথ্য সুত্র:
International Olympic Committee – London 2012. প্রকাশক: IOC. Archived from the original on 1 August 2008। সংগৃহীত হয়েছে: 3 August 2008.
London 2012: Election. প্রকাশক: International Olympic Committee. Archived from the original on 4 October 2009। সংগৃহীত হয়েছে: 2 October 2009.
Coe promises Olympics to remember. প্রকাশক: BBC Sport. 6 July 2005। সংগৃহীত হয়েছে: 3 August 2008.
Athens has also hosted three IOC-organised events, in 1896, 2004 and the