ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

পরিবর্তনই সমাজের নিয়ম। পরিবর্তন ছাড়া সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। সত্য, সুন্দর ও পরিচ্ছন্নতাকে অঙ্গিকার করে সারাদেশব্যপী “পরিবর্তন চাই” যে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে তা সকলের কাছে প্রশংসার দাবি রাখে। দেহ, মনে যখন পরিবর্তন করতে হয় তখন সমাজের পরিবর্তন করা আবশ্যক হয়ে দাড়াঁয়। যখন সমাজের পরিবর্তন হয়, তখন কুসংস্কার সমাজ থেকে দূরিভূত হয়। শিক্ষা, সেবা, কমর্সংস্থান, উন্নয়ন সকল পথিকৃৎ যখন সমাজের জন্য কাজ করে তখন সমাজ আদি সমাজ ব্যবস্থার কুসংস্কারকে ছেড়ে নতুন সত্য, সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন সংস্কারমূলক সমাজ উপহার দেয়। আমরা সমাজের কাছে যা চাই আর সমাজ আমাদের যা দেয় দুই, পৃথিবীর মঙ্গলের জন্য কাজ করে সে দৃষ্টি জাগ্রক থাকা আব্শ্যক। প্রকৃতির সৌন্দর্য্য এই বাংলাদেশকে করেছে সৌহার্দ্যপূর্ণ, এনে দিয়েছে সোনার বাংলা। বাংলা হয়েছে আমার প্রাণ, যা মনকে দিয়েছে স্বস্তির বাতাস। কারণ এই বাংলা এই মাতূভূমি পরিবর্তন চায়।

দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস

৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস হিসেবে পালনের লক্ষ্য পরিবর্তন চাই যে উদ্দোগ্য নিয়েছিল তা ৩ জানুয়ারি ২০১৫ পালিত হয়। যা সারাদেশব্যপী ৪৩টি জেলায় একযোগে পালিত হয় বিশ হাজার পরিবর্তন কামীদের অংশগ্রহণে আর তারই পথ ধরে রাজশাহী, খুলনাতে এবং গত ১২ সেপ্টেম্বর সিলেটে পালিত হয়ে গেল দেশটাকে পরিষ্কার করি পরিবর্তন কামীদের পরিবর্তনমূলক কমর্সূচি। যা বিভাগীয় শহর গুলোকে করেছে পরিবর্তন, পরিষ্কার, মানুষকে করেছে সচেতন, মন ও দেহকে করছে পবিত্র। তারই ধারাবাহিকতা রাখতে আগামী ৩১ শে ডিসেম্বর সারাদেশব্যপী পালিত হবে এক লক্ষ পরিবর্তন কামীদের অংশগ্রহণে দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস।

ধন্যবাদ

পরিবর্তন চাইয়ের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যন ফিদা হক, সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাষ্টি দিদারুল ভূইয়া সহ সকল পরিবর্তন কামী স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ। যারা এই সমাজ, পরিবেশ থেকে কুসংস্কার দূরীভূত করার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছেন। উপহার দিতে চায় সত্য, সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ।

বি: দ্র: “পরিবর্তন চাই” একটি সামাজিক সংগঠন যা আমাদের আশেপাশের, রাস্তাঘাটের ইত্যাদি ময়লা স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে পরিষ্কার করে। যা শুধুমাত্রই প্রতিকী কর্মসূচি, যা সমাজে গণসচেতনতা তৈরির লক্ষ্য কাজ করে।
facebook.com/poriborton.chai.bd

গৌতম বুদ্ধ পাল
সদস্য – পরিবর্তন চাই