ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

শ্যামল সুখি স্বাধীন বাংলাদেশ যখন সফলতা আর সৃজনশীলতা নিয়ে সামনের দিকে এগোচ্ছে ঠিক তখনই দেশের ভিতরে সন্ত্রাসী হামলা। প্রতিবেশী রাষ্ট্র গুলো তখন বাংলাদেশকে জঙ্গী রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যা দিল। বিশ্বনেতারা তখন বাংলাদেশে বসবাসরত বিদেশীদেরর উপর, বসবাসের উপর রেড এলার্ট জারি ইত্যাদি, মানে সম্পূর্ণ রুপে প্রত্যাখ্যান। জানি না এইসব বিশ্বনেতাদের তখন বাংলাদেশকে কি মনে হয়েছিল। অষ্ট্রেলিয়া নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে খেলতে আসল না বাংলার টাইগারদের সাথে। কি এমন অবস্থা ছিল তখন যে প্রাণের ঝুকিঁ ছিল, আমাদের তরফ থেকে বলা হয়েছিল চার স্তরের নিরাপত্তা দেয়া হবে, তার পরেও না। কিন্তু জিম্বাবুয়ে প্রতিবেশি ক্রিকেট বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে আমাদের সম্মান অক্ষুন্ন রেখে বাংলার মাটিতে খেলতে এসেছে, খেলেছে, বাংলাওয়াশ হয়েছে। কোন সমস্যা হয়নি। জানি না তাদের কতো স্তরের নিরাপত্তা দেয়া হয়েছে। ধন্যবাদ হে ক্রিকেট বন্ধু।

প্রথমেই দু:খ প্রকাশ করছি ফান্সের প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের প্রতি, সমবেদনা জ্ঞাপন করছি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি। নিন্দা জানাই আইএস কে, যারা ইসলামের নামে মানুষ মানবতা হত্যায় লিপ্ত। সব হামলায় দায় স্বীকার, নাক গলানো। ফান্সের মতো এতো উন্নত, সংস্কৃতিমনা, সৃজনশীল রাষ্ট্রে এই ধরনের বর্বরতা মেনে নেয়া যায় না।

হে বিশ্বনেতারা আজ আপনারা কোথায়…………???

যেখানে বাংলাদেশে দুজন বিদেশি হত্যায় জঙ্গী রাষ্ট্র, সন্ত্রাসী রাষ্ট্র আইএসআই য়ের ঘাটি বলে আখ্যাদেন। বিদেশিদের প্রবেশ, বসবাসে লাল বাতি জ্বালান, অষ্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে বাংলাদেশকে ছোট করেন। এর কারণ কি, কি ভেবেছেন? কই ফান্সে তো কখনও লাল বাতি জ্বালাতে শুনিনি, ও আছ্চা ফান্স উন্নত রাষ্ট্র, ওখানে কিছু হবেনা, সর্বোচ্ছ নিরাপত্তা বিদ্যমান। তবে এমন কেন হলো…? জবাব দিন হে বিশ্বনেতারা।

আবারও প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের পরিবারে প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

গৌতম বুদ্ধ পাল
সাংবাদিক, ব্লগার – ব্লগ.বিডিনিউজ২৪.কম