ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

আমাদের দেশে ২ ধরেনের মুক্তিযোদ্ধা আছেন – সনদ প্রাপ্ত এবং সনদ ছারা । সনদপ্রাপ্তদের মধ্যে আবার ভাগ আছে , ঐ সময়ের সনদ আর নতুন সনদ । ঐ সময়ের সনদের মধ্যে আবার ভাগ আছে , ভারতে ট্রেনিংপ্রাপ্ত এবং ট্রেনিং ছাড়া । ব্যাপারগুলো দেখেই মনে হয় স্বাধীনতাউত্তর সময়ে কখনও ভাল কোন অর্গানাইজার আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি মনোযোগ দেন নি । অবশ্য দেওয়াটা সম্ভব ছিলও বলে আমার মনে হয় না ।

যাইহোক এইসব মুক্তিযোদ্ধাদের ভীরে ভাজাই গেছে আরেক প্রকার বিশেষ লোকজন । কোন না কোন গ্রুপে ঢুকে তারা মুক্তিযোদ্ধা হয়েছেন । সমস্যাটা হয়ে গেছে এই বিশেষ লোকজনদের কে নিয়ে ।যারা স্বাধীনতার পরে প্রকাশ্যদিবালোকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ক্ষতিগুলো করেছে । অকাতরে জাতীর সূর্যসন্তানদের হত্যা করেছে । এটা অনেকটাই কঠিন কাজ , এই বিশেষ প্রকারের মুক্তিযোদ্ধাদের আইডেন্টিফাই করে ক্লাসিফাই করে এলিমিনেট করা । আর যদি এই বিশেষ মুক্তিযোদ্ধারাই এই দেশে স্বাধিনতাউত্তরকালে বেশীরভাগ সময়ে ক্ষমতায় ছিল ।

ইকটু খেয়াল করে দেখেন যে এই বিশেষ প্রকাদের মুক্তিযোদ্ধাদের কে কেটে বাদ দিলে বাকী সকল প্রকার মুক্তিযোদ্ধারা বিতর্কের বাইরে চলে আসে । আর এই বিশেষ লোকদের যদি মুক্তিযোদ্ধা বলা হয় তবে মুজাহীদ নিজামী গোলাম আযম কেও কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা বলা যায় ।

হ্যা মুক্তি যুদ্ধে অংশ নিলেই যদি মুক্তিযোদ্ধা হয় তবে গোলাম আযম, ইয়াহিয়া , নিজামীরা কেন মুক্তিযোদ্ধা হবেনা ?? তাইনা ।। তাই এখানে একতা সীমারেখা টানা আজ খুবই দরকার । মুক্তিযুদ্ধে অংশনিলেই সে মুক্তিযোদ্ধা না , যদি না তার যুদ্ধে অবতীর্ন হবার উদ্দ্যেশ্য থাকে বাংলাদেশপ্রেম ।

যারা একটি ফুল কে বাচাবে বলে অস্র ধরেছিল তারা মুক্তিযোদ্ধা । একটি মুখের হাসির জন্যে যুদ্ধে গিয়েছিল তারা মুক্তিযোদ্ধা । চাকরী বাচাতে যুদ্ধে জয়েন করে আই এস আইকে গোপন সংবাদ দিত এবং বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের বিরুদ্ধে কাজ করত তারা মুক্তিযোদ্ধা নয় । কিছুতেই নয় । আজকে সময় এসেছে বাংলাদেশের জনগনের সামনে এই সূক্ষ্ম পার্থক্যটা তুলে ধরা ।

একজন লোক মুক্তিযোদ্ধা তখনই যখন তার বাংলাদেশপ্রেম আছে নতুবা না ।

এর পর আসি , আরেক কথায় যারা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন , তারা মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী কোন সময়ে যদি রাষ্টদ্রোহী ,মানবতাবিরোধী কোন কর্মকান্ডে জড়িত হয় , তবে তার মুক্তিযোদ্ধা উপাধি আর বহাল থাকা উচিত না।

কি ভুল বললাম কিছু ??

একবার যিনি মুক্তিযোদ্ধা তিনি চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নন , কিন্তু একবার যিনি রাজাকার তিনি জনম জনম কাল রাজাকার ।