ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

লিবিয়া থেকে প্রত্যাগত ক্ষতিগ্রস্থ বাংলাদেশী অভিবাসীদের দেশে কিংবা দেশের বাইরে পুনর্বাসনের জন্য ব্যক্তি মালিকাধীন সেক্টর, সিভিল সোসাইটি এবং সরকারের মধ্যে যৌথভাবে উদ্যোগ নেয়া এখন খুব জরুরী।

সেক্ষেত্রে সরকারের পাশাপাশি ব্যাংকিং সেক্টর, প্রাইভেট সেক্টর, মানবাধিকার সংস্থা, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা/এন,জি, ও সহ সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত। ব্যাংকিং সেক্টর গুলোকে খুব দ্রুত মাইগ্রান্ট ওয়েল ফেয়ার ব্যাংকিং চালু করা উচিত তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে।

গত ফেব্রুয়ারি থেকে লিবিয়ার যুদ্ধ পরিস্তিতি অবনতি হতে থাকায় আই,ও, এম এবং বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে প্রায় ৩৫,০০০ বাংলাদেশী দেশে ফিরেছে। তারা জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে দেশে ফিরলেও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তাদের ভবিষ্যত।

সম্প্রতি Refugee and Migratory Movement Research Unit (RMMRU) -র লিবিয়া থেকে প্রত্যাগতদের উপর চালিত ১৫০০ নমুনায়নের একটি জরিপে দেখা গেছে ৮৫ শতাংশ প্রত্যাগত শ্রমিক এখনো তাদের ঋণ পরিশোধ করতে পারেননি। এই বিশাল অংশটাই এখন সবচেয়ে বেশী বিপদাপন্ন এবং তাদের পরিবারও ভবিষ্যত নিয়ে খুব উদ্ভিগন।

RMMRU পরিচালিত জরিপ কাজটি এখনও চলছে। লিবিয়া থেকে প্রত্যাগতরা নিচের ওয়েব ঠিকানায় তাদের তথ্য দিতে পারেন: http://libya.rmmru.org/

***
(ছবিটি dailystar থেকে নেওয়া)

***
ফিচার ছবি: লিবিয়া ফেরৎ বাংলাদেশিদের শাহজালাল বিমান বন্দর প্রত্যাবর্তন, Rashed Shuman, দি ডেইলি স্টার