ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

আজ সকালে ৭:৩৫ মিনিটে খামার বাড়িতে BRTC বাসের সাথে আরেকটি লোকাল বাসের সংঘর্ষে দুর্ঘটনার আমি ও আমার সহকর্মী অল্পের জন্য বেঁচে গেছি। মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে অশেষ শোকরিয়া..।

ঢাকা শহরের বাস চালকরা বাস চালায় কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা করেনা। ট্রাফিক সিগন্যাল গুলো মেনে চলেনা। সকাল বেলা এক প্রতিযোগিতা শুরু করে দেয় অভার পাস করে আগে যাত্রী উঠানোর জন্য।

আজ সকালে যা ঘটলো….BRTC-র বাস চালক তার নিয়ন্ত্রন ঠিক না করে সোজা উঠিয়ে দিল লোকাল বাসটির উপর। পুরো খামার বাড়ির মোড় তখন এতো ব্যস্তু ছিলনা। আমরা যারা বিআরটিসির সেই বাসের যাত্রী ছিলাম…চোখের পলকে দেখলাম..দুটো বাস দুমড়ে মুচড়ে গেছে। জানালার কাচ ভেঙ্গে ছিটকে পড়লো গায়ে। ইনজিন থেকে কালো ধোয়া বের হয়ে সিএনজির বিকট শব্দে আমরা যখন হতবিহবল; চেয়ে দেখি বাসের দুটো গেট লক অবস্থায় ড্রাইভার পালিয়েছে। সামনের মহিলা সিটের যাত্রীরা বেশি ইনজুড়ড।

লোকাল বাসের অনেক যাত্রী রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখলাম। একটা ৩ বছরের ছোট মেয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় কাঁদতে দেখলাম , তার মা বাসের ভিতরে আটকা পড়েছে। আমরা ফামর্গেট কাউন্টারে এসে অভিযোগ করলাম বাসের গেট গুলো খুলে দেয়ার জন্য।

আজ সকালের এই অভিজ্ঞতা নিয়ে আজকের দিনটা শুরু…মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে আবারে অশেষ শোকরিয়া যে আমাকে নিরাপদে রেখেছেন।