ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

গতকাল বাবু “গণতন্ত্রের প্রতি সম্মান” দেখিয়ে মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করলেও আজ সরকার বাহাদুর অসীম মহানুভবতায় উনাকে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিল। সরকার আসলে এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চেয়েছে,তাই সুরঞ্জিতের মুখ থেকে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে সরকারের উপর ক্রুদ্ধ জনগণকে একটু শান্ত করার চেষ্টা করেছে,(কিংবা উনাকে এই কুকর্ম থেকে বাঁচিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে),অপরদিকে মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগের ঘোষণাকে একটা ইস্যু বানিয়ে কথার মারপ্যাঁচে বাবুকে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী বানিয়ে বাবুর শেষবেলার মন্ত্রিত্বের আবদারও সরকার পুরণ এবং তা দীর্ঘায়িত করেছে।

প্রথম ঘটনার মাধ্যমে পদত্যাগ দৃষ্টান্তের কথা বলে বিরোধীদল সহ নাগরিক সমাজের সমালোচনাকে পাশ কাটাতে চেয়েছে, অনুসন্ধানী মিডিয়ার মুখরা মুখ আপাত বন্ধ করতে চেয়েছে, ২য় ঘটনার মাধ্যমে জনগণকে এই ম্যাসেজ দিতে চেয়েছে, আমরাই সব,চাইলে সব কিছু করতে পারি, চূড়ান্ত যা কিছু সব কিছুর নিয়ন্তা আমরাই।

কিন্তু,গণতন্ত্র কি তা বলে…?

আসলে,এটা গণতন্ত্রের সাথে চূড়ান্ত ফাজলামি ছাড়া আর কিছু নয়…।

আহারে গণতন্ত্র,এই ছিল তোর কপালে!!!