ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

ভয়ংকর ষড়যন্ত্রের হাত থেকে রক্ষা পেলেন, বাংলার জনগণের প্রাণ মাননীয় দেশ নেত্রী শেখ হাসিনা। হযরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ের ক্লিয়ারেন্স না পাওয়ায় ৩১ মিনিট আকাশে চক্কর দিতে হয়েছিলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানটির। এটি সাহজালালে অবতারণের আগ মুহূর্তে হঠাৎ কন্ট্রোল টাওয়ারের মাধ্যমে ফ্লাইটটি অবতরণের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)। টাওয়ার থেকে ওই ফ্লইটের পাইলট ক্যাপ্টেন জামিলকে জানানো হয়, রানওয়েরর টিক মাঝামাঝি স্থানে বেশকিছু ঝুঁকিপূর্ণ মেটালিক বস্তু পড়ে আছে। মুহূর্তে পাইলট অবতরণের সিদ্ধান্ত বাতিল করে। আর উপায়ন্তর দেখে আকাশে চক্কর দিতে থাকে প্রায় ৩১ মিনিট আকাশে চক্কর দেয়ার পর অবতরণের অনুমিত পান পাইলট।

13343025_187860601610893_5551447524038219880_n

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৌদি আরব থেকে ঢাকায় ফেরার পথে সাহজালাল বিমানবন্দরে এ ঘঠনা ঘঠে রানওয়ে থেকে যেসব মেটালিক বস্তু অপসারণ করা হয়েছে সেগুলো না সরালে ফ্লাইটি ল্যান্ড করার পর বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা ছিলো। উড়োজাহাজের চাকা ফেটে গিয়ে জাহাজটি রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়তে পারতো। মেটালিক বস্তুগুলো উড়োজাহাজের ইঞ্জিনে ঢুকে যেতে পারত এতে আগুন ও ধরার সম্ভবনা ছিলো। এছাড়া চাকার সঙ্গে ঘর্ষনেও উড়োজাহাজে আগুন ধরে বড় ধরনের ক্রাশ হওয়ার সম্ভবনা ছিলো। এসএসএফের বুদ্ধিমত্তা ও বিচক্ষণতায় অল্পের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানের ওই ভিভিআইপি ফ্লাইটটি রক্ষা পেয়েছে।

______রাখে আল্লাহ মারে কে? হে বাংলার প্রান তোমাকে রুখবে এমন শক্তি কার ?

শেখ হাসিনাকে সাত দিনের ভিতরে হত্যা করার আল্টিমেইটেম দিয়ে শেখ হাসিনাকে হত্যাকরার চেষ্টা করেছিল. হান্নান শাহ।সমস্ত জাতির সম্মুখে সাত দিনের ভিতরে সরকার উৎখাত করার আল্টিমেইটেম দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার অনুমতি চাইছিল! আজ বারংবার ব্রিডিয়ার হান্নান শাহ কে মনে পরে…………..?

13413562_187860734944213_3067002365571735510_n

বাংলাদেশকে মিথ্যামুক্ত,ষড়যন্ত্র মুক্ত না করা পর্যন্ত নতুন প্রজন্মের প্রান শেখ হাসিনাকে রুখার সাধ্য কারো নাই।

ইতেখার জাহান হোসেন আমার প্রান প্রিয় নেত্রী বাংলার প্রানকে ব্যঙ্গ করে কিভাবে সিভিল এভিয়েশনের মত সুবিশাল প্রতিষ্ঠানে তাও আবার প্রধান সিকিউরিটির কর্মকর্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকে বহাল তবিয়তে? স্বর্ন চোরা চালানেও যিনি বিশালতম প্রশ্নবোধক চিহ্ন। জাহান হোসেনের নেপত্তে কে বা কারা যুক্ত আছে অধিকতর তদন্তসহ প্রত্যেককে আইনের কাঠগরায় শাস্তি নিশ্চিত করন সময়ের দাবী। সারাশী অভিযানের পর আশা করি সকল প্রশ্নের সমাধান খুজব।