ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন চলছে। রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও এ আন্দোলন দৃশ‍্যমান। আন্দোলনকারীরা চাকুরি প্রত‍্যাশী, স্বাভাবিকভাবে তাদের হৃদকম্পন সহজে অনুমেয়। বর্তমানে সরকারি চাকরিতে ৫৫ শতাংশ কোটা বরাদ্দ থাকায় অনেক মেধাবীর সরকারি চাকুরি লাভের ক্ষেত্রে সুযোগ কমে যাচ্ছে। তাই ড. আকবর আলী খান সহ অনেক বিশিষ্ট নাগরিক সরকারি চাকুরিতে কোটা ব‍্যবস্হা সংস্কারের পক্ষে তাদের অবস্থান ব‍্যক্ত করেছেন।

একটি দেশের প্রশাসনিক ব্যবস্থা সহ সকল রাষ্ট্রযন্ত্রে দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা অংশগ্রহণ না করলে দেশটির কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হয়। তাই পশ্চিমের উন্নত দেশগুলোতে মেধাবীদের অবাধে অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। আমাদের প্রিয় বাংলাদেশেও এক্ষেত্রে আরো সিরিয়াসলি ভাবা প্রয়োজন। তবে এক্ষেত্রে আমাদের জাতীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কোনভাবেই ঠকানো যাবে না।

সরকারি চাকরিতে এখন আর জেলা কোটা প্রয়োজন আছে কিনা, সেটাও ভেবে দেখা প্রয়োজন। সকল ক্ষেত্রে মেধাবীদেরই গুরুত্ব দিতে হবে। তাহলে ২০৪১ সালের মধ্যে ‘উন্নত আয়ের দেশ’ হওয়ার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমাদের ভিশন অর্জিত হবে।

পরিশেষে বলব, সরকারি চাকুরির ক্ষেত্রে মেধাবীদেরই জয় হোক।