ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

১৮ দলীয় জোট আবার রবি- সোমবার হরতাল ডেকেছে অন লাইন মিডিয়াতে সংবাদটি পড়ার সাথে সাথে মনে হচ্ছে যে এ দেশে একটি পাতানো খেলা চলছে অন্য কোন উদ্যেশ্যে! তানা হলে কেনইবা সরকারী পক্ষ ইলিয়াস আলীর ব্যাপারে ঝেড়ে কাশছেন না, নিচ্ছেন না কোন উদ্যোগ যাতে বিরোধী দল হরতালের মতো নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকে, কেন তাদের এই গা ছাড়া ভাব? পাশাপাশি কেনইবা বিরোধী দল বার বার সর্ব-সাধারনের অপূরণীয় ক্ষতি হবে জেনেও একের পর এক হরতাল দিয়ে চলেছেন? সরকারী পক্ষের মন্ত্রী মিনিস্টাররা পুলিস নিয়ে দিব্যি চলা ফেরা করছেন আর বিরোধী দলীয় নেতারা কোন ক্রমে কেন্দ্রীয় অফিসে পৌছাতে পারলেই সেখানে বসে পরম স্বস্তিতে দিবা নিদ্রা দিচ্ছেন! সরকারী বেসরকারী চাকুরেদের স্ত্রী পুরুষ নির্বিশেষে পায়ে হেঁটে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বেরুতে হচ্ছে, দিন এনে দিন খাওয়া মানুষেরা অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছেন! হরতালের মুল কর্মী এখন ভাড়াটিয়া টোকাই গ্রুপ, টাকার বিনিময়ে তারা তাদের সামর্থ্যের ভেতর জনগনের যথাসম্ভব ক্ষতি করার চেষ্টা করছে!
পাঠক নিশ্চয়ই দেখেছেন টেলিভিশন ফুটেজে, সারা জীবনের পয়সা জমিয়ে কেনা একটি পরিবারের স্বপ্নের প্রাইভেট কারটি প্রথমে হরতালকারীরা কেমন করে ভাংগছে, আর তার পর গান পাউডার দিয়ে কি ভাবে তাতে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে! আমরা শেষ পর্যন্ত সেই মগের মুলুকে পৌছে গেছি বোধ হয়!

অথচ সরকারী তরফে উদ্যোগ দেখা দেখা যাচ্ছে না ইলিয়াস আলীর ব্যাপারে বিরোধী দলকে যে কোন ভাবে কনফিডেন্স নেওয়া! আমরা অবলম্বে এই পরিস্থিতির অবসান চাই, চাই সরকারী উদ্যোগ যাতে আর হরতাল না হয় এবং তাতে সাধারন জনগন দুর্দশাতে না পড়ে!