ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

*ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ছিলেন স্বৈরাচারী সামরিক শাসক এরশাদের অ্যাটর্নী জেনারেল!
*ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ছিলেন এরশাদের আইনজীবি
*ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ১/১১ পরবর্তী সময়ে প্রধান দুই নেত্রী খালেদা জিয়া ও শেখ হাসিনার আইনজীবি হিসেবে মামলা লড়েন ও প্রচার আছে যে সেই সময় প্রচুর অর্থ উপার্জন করেন (দেখুন ভিন্ন মত, বাংলানিউজ২৪.কম ২১ মে অনলাইন)। ১/১১তে কালো টাকা সাদা টাকা ইত্যাদি নিয়ে ব্যারিস্টার কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার আমীরুল ইসলাম প্রমূখের সমস্যা হলেও ব্যারিস্টার রফিক-উল হক কি করে সামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে এতটা প্রিয় ছিলেন? কাদের ইঙ্গিতেই বা তিনি একাধারে দুই নেত্রীরই ওকালতি করলেন সেই সময়ে?

* ব্যারিস্টার রফিক-উল হক কিছুদিন আগে একটি “সুশীল সমাজ” সংগঠন গড়তে গিয়েছিলেন, সাথে মাহমুদুর রাহমান মান্না ও অন্যান্য!পরে সেটির আর কোন খবর নেই, বলা হচ্ছে আসল উদ্দেশ্য ধরে ফেলাতে না জেনে “জয়েন” করা অনেকে ফিরে যাওয়ায় এই অবস্থা!

*ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ইদানিং বেশ জোরদার রাজনৈতিক বক্তব্য দিচ্ছেন, “গুম” হয়ে নিঁখোজ ইলিয়াস আলীর বাড়িতে পরিবারকে সান্তনা দিয়ে এসেছেন আর বলে এসেছেন সরকার এই গুমের সাথে জড়িত!
*গতকাল ২০ মে বিএনপির গণ-অনশনে গিয়ে তিনি ইলিয়াস আলী ও মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের ব্যাপারে প্রায় জ্যোতিষ মার্কা বক্তব্য দিয়েছেন!
* মার্কিন রাস্ট্রদূত মজিনার ওতি সাম্প্রতিক মত অনুযায়ী সরকার ও বিরোধী দু পক্ষের ভেতর নির্বাচন নিয়ে চুক্তি হতে পারে, কিন্তু কোন পক্ষ তা না মানলে তাদের মানাবে কে? মার্কিনীরা?
*পরিশেষে বেগম খালেদা জিয়াকে “আমার নেত্রী” বলে বক্তৃতায় উল্লেখ করে নিজের এতদিনের “না বলা কথা” বলে ফেলেছেন, কিন্তু কেন?
*বিএনপির নির্বাচন জয় আর ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের রাষ্ট্রপতি হয়ে বঙ্গভবন যাত্রা কি এক রকম নিশ্চিত?