ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রির শেষ। চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাসহ বিভিন্ন গন্তব্যের এখন আর বাস কোচের অগ্রিম টিকিটও মিলছে না। কাউন্টারে টিকিট না পেয়ে সাধারণ যাত্রীরা ছুটছেন কালোবাজারিদের কাছে। যাত্রীদের অনেকে ঈদের আগে স্বজনদের কাছে ফিরতে গিয়ে চড়াদামে টিকিট কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে এখন চলছে ট্রেনের টিকিটের হাহাকার। গত বৃহস্পতিবার রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রির শেষ দিনেও চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে আড়াই ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে গেছে সব টিকিট। ফলে ঈদে বাড়ি যেতে আগ্রহী অধিকাংশ মানুষকেই টিকিট না পেয়ে ফেরত যেতে হয়েছে। এদিকে যাত্রীরা টিকিট বিক্রির ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ করলেও এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রেলওয়ের কর্মকর্তারা।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে ঢাকা, সিলেট ও চাঁদপুরগামী আটটি ট্রেনের ৩০ আগস্টের টিকিট বিক্রি শুরম্ন হয়। বেলা সাড়ে ১১টার মধ্যে শেষ হয়ে যায় তিন হাজার ছয়’শ টিকিট। বৃহস্পতিবার স্টেশনে গিয়ে দেখা যায় ভোর রাত থেকে টিকিটের জন্য মানুষের দীর্ঘ লাইন। প্রতিটি কাউন্টারের সামনে যাত্রীদের ভিড়। চট্টগ্রাম রেল স্টেশনের ব্যবস্থাপক এ এ সামসুল আলম বলেন, ‘সকাল সাড়ে ১১টার মধ্যে আটটি ট্রেনের টিকিট বিক্রি শেষ হয়েছে। সাড়ে পাঁচ হাজার টিকেটের মধ্যে মোবাইলের ২৫ শতাংশ এবং ভিআইপি যাত্রীদের ৫ শতাংশ এবং রেলের স্টাফদের ৫ শতাংশ কোটা বাদে ৬৫ শতাংশ টিকিট কাউন্টারে বিক্রি করা হয়েছে। অনেকেই কাউন্টারে টিকিট বিক্রির ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন। রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় ব্যাবস্থাপক একেএম মাহবুবুল আলম বলেন, ‘টিকিট না পেয়ে যাত্রীরা এসব অভিযোগ করছে। গত পাঁচ দিনে চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে আটটি রূটে মোট ৩০ হাজার টিকিট বিক্রি করা হয়েছে। এছাড়া টিকিটের বাড়তি চাহিদা থাকায় এসব রুটে আরো দেড় হাজার স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রি করা হবে বলে তিনি জানান। এদিকে নির্ধারিত গন্তব্যের টিকিট না পেয়ে অনেককে অন্য রুটের টিকিট কিনতে দেখা গেছে।

এদিকে, নগরীর কদমতলী বাসস্ট্যান্ডে ঢাকা, উত্তরবঙ্গসহ বিভিন্ন গন্তব্যের বাস কোচের টিকিট বিক্রির কাউন্টার আছে। বিলাসবহুল কোচগুলোর কাউন্টার আছে নগরীর গরীবউল্লাহ শাহ মাজার এলাকায়। নগরীর আরও কয়েকটি স্টপেজে বিলাসবহুল কোচের কাউন্টার আছে। সব কাউন্টারেই অগ্রিম টিকিট শেষ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে দূরের গন্তব্যের যাত্রীরা।

যাত্রীদের অভিযোগ, কাউন্টারে টিকিট না মিললেও পাওয়া যাচ্ছে কালোবাজারে। ঢাকাগামী সাধারণ মানের কোচের টিকিট সর্বোচ্চ সাড়ে ৭শ’ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে কালোবাজারিরা। এসি কোচের অগ্রিম টিকিটের মূল্য নেয়া হচ্ছে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি। সরেজমিন কদমতলী বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা যায়, ঈদের অগ্রিম টিকিটের জন্য যাত্রীরা ছুটছেন এক কাউন্টার থেকে আরেক কাউন্টারে। বেশিরভাগ কাউন্টার বন্ধ। কাউন্টারে কর্মরত কর্মচারীরা যাত্রীদের জানান, টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। তবে কিছু কাউন্টারে বাড়তি দামে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে অগ্রিম টিকিট। কাউন্টারে না মিললেও অগ্রিম টিকিট দেদার মিলছে কালোবাজারে।

###
রিপোর্ট: এম. নাজমুল ইসলাম, চট্টগ্রাম, ২৭ আগষ্ট ১১
01673270919