ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের রামদাসপুর এলাকার একটি পুকুর থেকে একটি সামুদ্রিক কুমির উদ্ধার করেছে বন বিভাগ। ওই কুমিরটি এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমাচ্ছে শত শত মানুষ। প্রায় ৬ ফুট লম্বা এ কুমিরটি বন বিভাগ ঢাকার বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে। এদিকে এ কুমিরটি দেখতে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাও ছুটে এসেছেন।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাঈদ আলী জানান, রবিবার সকালে রাজাপুর ইউনিয়নের রামদাসপুর এলাকার হাজী নুরুল ইসলাম চকিদারের পুকুরে সামুদ্রিক কুমিরটি দেখতে পেয়ে বন বিভাগে খবর দেয়। এরপর বন বিভাগের কর্মকর্তারা ওই পুকুরটি সেচ দিয়ে কুমিরটি উদ্ধার করে দুপুর ১ টার দিকে বন বিভাগ কার্যালয়ে নিয়ে আসে।

পুকুর মালিক হাজী নুরুল ইসলাম জানান, প্রায় ৭০ বছর ধরে এ পুকুরটি তারা ব্যবহার করে আসছেন। কখনও এ ধরনের কুমির তারা দেখতে পান নি। রবিবার ভোরে আমার ছেলে ওজু করতে গিয়ে ভয়ংকর এ কুমির টিকে দেখতে পান। এ সময় কুমিরটি ডাঙ্গায় ওঠে আসার চেষ্টা করছিল। এ সময় চিৎকার দিলে কুমিরটি পানিতে নেমে যায়।

এদিকে সামুদ্রিক কুমির পুকুরে এমন খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এলাকবাসী ওই কুমিরটি এক নজর দেখতে ভীড় জমান।

পুকুর মালিক আরো জানান, গত বছর ও চলতি বছর মেঘনা নদী থেকে প্রবল জোয়ারের চাপে পুকুরে পানি প্রবেশ করে। হয়ত ওই পানির সাথেই এটি নদী থেকে পুকুরে চলে আসে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: সেলিম ফকির বলেন, উদ্ধার হওয়া কুমিরটি ঢাকার সাফারি পার্কে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বন বিভাগ বিশেষ ব্যবস্থায় সেটি লঞ্চ যোগে নিয়ে যাবে।
এলাকাবাসী ও সমাজ সেবক মো: রেজাউল করিম বলেন, বিচ্ছিন্ন এই দ্বীপে এটি একটি বিরল ঘটনা। তাই মানুষের মনেও ব্যাপক কৌতুহলের সৃষ্টি হয়।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মহাম্মদ সাঈদ আলী জানান, সামুদ্রিক কুমিরটি লম্বায় ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি। তবে ওজন আনুমানিক ৪০/৫০ কেজি হতে পারে।

***
খবর সূত্র: [শীর্ষ নিউজ, রবিবার, ২৯ মে, ২০১১], [বাংলানিউজ২৪, রবিবার, ২৯ মে, ২০১১]