ক্যাটেগরিঃ সাম্প্রতিক

সারাবিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় কোমল পানীয় কোকাকোলার ফর্মুলা এতোদিন রহস্যাবৃত ছিল। দুই শতকেরও বেশি সময় ধরে আজ অবধি কর্তৃপক্ষ তাদের ফর্মুলা প্রকাশ করেনি। তবে সম্প্রতি একটি ওয়েবসাইট দাবি করেছে, তারা এ কোমল পানীয়ের উৎপাদন প্রক্রিয়ার রহস্য উদ্ঘাটন করতে পেরেছে। (খবরঃ দ্য টেলিগ্রাফ)

প্রসঙ্গত, কোকাকোলার উৎপাদন ফর্মুলা যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের আটলান্টায় ২৪ ঘণ্টা কড়া নিরাপত্তার মধ্যে সংরক্ষিত রয়েছে। ১৮৮৬ সালে জন পেমবারটোন নামের এক মেডিকেল ফার্মাসিস্ট এ কোমল পানীয়টির ফর্মুলা আবিষ্কার করেন।

thisamericanlife.org নামের ওয়েবসাইটটির দাবি একটি পত্রিকায় ধারাবাহিক ছবির আকারে প্রকাশিত একটি নিবন্ধে কোকাকোলার গোপন রহস্য প্রকাশিত হয়। সেখানে এ কোমল পানীয়ের উপাদান এবং প্রত্যেক উপাদানের সঠিক অনুপাত উল্লেখ করা ছিল।

প্রকাশিত ফর্মুলায় উল্লিখিত বিভিন্ন তেলের অনুপাত কোকাকোলার গোপন ফর্মুলা যা মার্চেনডাইজ ৭ঢ নামে খ্যাত এর অনুরূপ। ধারণা করা হয়, এ কোমলপানীয়টি সম্পূর্ণ ফর্মুলার মাত্র এক শতাংশ ব্যবহার করে। তা সত্ত্বেও এটি সারা বিশ্বে জনপ্রিয় পানীয়গুলোর অন্যতম।

টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনে বলা হয়, আটলান্টা জার্নাল কনস্টিটিউশনের ১৯৭৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি সংখ্যায় একটি ছবি ছাপানো হয়। ছবিতে মেলে ধরা একটি বইয়ে ওই ফর্মুলা লেখা ছিল যা পেমবারটনের হুবহু বলে দাবি করা হয়।
গোপন ফরমুলার উপাদানগুলো হল- কোকার ৩ ড্রামস ইউএসপি তরল নির্যাস, সাইট্রিক অ্যাসিড ৩ আউন্স, ক্যাফেইন ১ আউন্স, চিনি ৩০ (একক উল্লেখ নেই), পানি ২ দশমিক ৫ গ্যালন, লেবুর জুস ২ পাইন্টের কিছু বেশি (১ পাইন্ট = ব্রিটিশ ৫৬৮ এমএল, মার্কিন ৪৭৩ এমএল), ভ্যানিলা ১ আউন্স, কারামেল (পোড়া চিনি) দেড় আউন্স এবং রং ও ৭ঢ এর ফেভার। রেসিপিতে আরও আছে- অ্যালকোহল ৮ আউন্স, কমলার তেল ২০ ফোঁটা, লেবুর তেল ৩০ ফোঁটা, জায়ফলের তেল ১০ ফোঁটা, ধনে পাতার রস ৫ ফোঁটা, নেরুলি তেল ১০ ফোঁটা এবং দারুচিনির নির্যাস ১০ ফোঁটা।