ক্যাটেগরিঃ সাম্প্রতিক

 

খোলা আকাশের নিচে রাখা ২ হাজার ৬শ’ টন ইউরিয়া সার বৃষ্টির পানিতে ভিজে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়ায় বিশাল এ ক্ষতির ঘটনা ঘটেছে দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলায় অবস্থিত বিসিআইসি’র বাফার গুদাম (আপদকালীন মজুদ) এলাকায়।

দিনাজপুরের পার্বতীপুর ও চিরিরবন্দর উপজেলা এবং পুরো নীলফামারী জেলায় ইউরিয়া সার সরবরাহের জন্য ১০হাজার টন ধারণ মতার এ গুদামে এখন সার রাখা হয়েছে ২১ হাজার টন। গুদামের ভেতরে স্থান সংকুলান না হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই এর বিরাট একটা অংশ রাখা হয় খোলা আকাশের নিচে।

কর্তৃপক্ষের অপরিণামদর্শী এ কাজের ফলে বুধবার বিকেলের প্রচণ্ড ঝড়-বৃষ্টিতে যা ঘটার তাই ঘটেছে। বাইরে রাখা সারি সারি বস্তার ওপরের অংশ তো ভিজেছেই- একই সঙ্গে নিচের দিকে কোথাও গোড়ালি পানি কোথাও হাঁটু পানি জমে যায়।
বিপর্যয় ঠেকাতে গুদাম কর্তৃপক্ষ তাৎণিক চেষ্টা অবশ্য করেছেন। সে উদ্যোগের অংশ হিসেবে জমে যাওয়া পানি বালতি দিয়ে সেচে সরানোর চেষ্টা করেন শ্রমিকরা।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে পার্বতীপুর বাফার গুদাম ইনচার্জ শাহজাহান আলী বাংলানিউজকে জানান, হঠাৎ করে বৃষ্টি আসায় খোলা আকাশের নিচে সারগুলোকে ত্রিপল দিয়ে ঢেকে রাখা সম্ভব হয়নি। এছাড়া নিচু জমিতে পানি গড়িয়ে যাওয়ায় ইউরিয়ার বেশ কিছু বস্তা ডুবে যায়।

তবে তিনি বলেন, ‘পানি সেচের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত সার আসায় এবং হঠাৎ করে বৃষ্টি আসার ফলে এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় বলে তিনি জানান।

এদিকে ‘কী পরিমাণ সার নষ্ট হয়েছে’ তা জানতে যোগাযোগ করলে বগুড়ায় অবস্থিত বিসিআইসি’র উত্তরাঞ্চল বাফার গুদাম নিয়ন্ত্রক আনিস উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, এ মূহুর্তে য়তির বিষয়ে কিছু জানানো যাচ্ছে না।
কেন এভাবে সারগুলো খোলা আকাশের নিচে রাখা হলো এবং এর দায় কার- এ প্রশ্নের কোনও সদুত্তর না দিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর কৃষকদের চাহিদা মোকাবেলায় এভাবে অতিরিক্ত সার মজুদ করা হয়।’

————————————————————–
পার্বতীপুর সংবাদদাতা
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম