ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

ছাত্রলীগ ইস্যুতে আবারো উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। স্থগিতকৃত কমিটির কার্যক্রম চালু নিয়ে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক গ্রুপ ও ক্যাম্পাসে অবস্থানরত গ্রুপের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কায় ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত জুলাইয়ে ছাত্রলীগের দু‘পক্ষের সংঘর্ষের পর ছাত্রলীগের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। শিগগিরই কমিটির কার্যক্রম চালুসহ পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করছে তারা। ছাত্রলীগকে স্বক্রিয় সংগঠন করতে উর্ধতন আওয়ামী মহলের সবুজ সংকেত পাওয়ার পরই কমিটির কার্যক্রম চালু করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রীয় সূত্রটি। অপরদিকে তাদের প্রতিহত করতে মরিয়া ক্যাম্পাসে অবস্থানরতরাও। হলে হলে নিয়মিত মিছিল ও মহড়া দিচ্ছে তারা। বঙ্গবন্ধু ও এসএসবি হলে ব্যাপক আগ্নেয়াস্ত্রের মজুদ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগ সংশ্লিষ্ট সূত্র। নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য যে কোন অঘটন ঘটাতেও প্রস্তুত তারা। ঘোষণা করা হয়েছে ৭ দিনের কর্মসূচী। এতে হল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অংশ নিতে বাধ্য করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন একাধিক সাধারণ শিক্ষার্থী। এব্যাপারে ক্যাম্পাসে অবস্থানরত গ্রুপের নেতা নেয়ামুল পারভেজ বলেন, ‘ছাত্রলীগকে রক্ষা করতেই কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়েছে।’ অপরদিকে ক্যাম্পাসে ফেরার ব্যাপারেও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ কমিটির নেতৃবৃন্দ। স্বাভাবিক ছাত্রত্ব নিয়েই ক্যাম্পাসে ফেরার ঘোষণা দিয়ে জাবি ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম শাফিন ও সাধারণ সম্পাদক নির্ঝর আলম সাম্য বলেন, ‘ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে একটি মহলের ইন্ধনে পরিকল্পিতভাবে অছাত্র ও বহিষ্কৃতরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।’ প্রক্টর আরজু মিয়া বলেন, ‘বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে সব রকম পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’ ঢাকা জেলার অতিরিক্ত এসপি শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘প্রশাসনের নির্দেশে নিরাপত্তা রক্ষায় ক্যাম্পাসে প্রায় দু‘শতাধিক পুলিশ অবস্থান করছে।’