ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

এ কি বদ্ধতা! মনের পাতার বর্নগুলো যে পাত্রে সিদ্ধ করি বলে এতো ঘোটাঘুটি,দেখলাম সে পাত্রে জল নায়।আশে পাশে,আকাশে-পাতালে নেই জল।নয়ন জোড়া যে কাঠ হয়ে আছে,হয়তো মনে করি এই জল আসলে সিদ্ধ করব মন পাতারে।পেলাম না,না পেলাম না সে জল,মুত্র থলি তাও সে অবুঝ ঘোরে টলছে মাতাল,সেখানেও নেই জল।জল না পেলে কি করে তা হবে,যে বদ্ধতা দূর করতে বসেছি আমি জনহীন এক তুমুল মিছিলে।আজ থেকে বলছি,এ মিথ্যাচারকে আমি হা আমিই আটিসাটি হয়ে বসেছি ঐ মুন্ডুকে আজ লাগাম ছাড়া করব ভেবে।

আমি শুধু আমাকে বললাম বলে,এই লেখা যারা পরছে,আর তার মাঝে যারা ভুক্তভুগি হয়ে দিশাহারা পথে-কি করবে না পায় ভেবে, তারা হঠাত যেন চিতকার করে আমাকে দোষালো,আর মুঠো হাত উঠায়ে বল্ল,একি ছোড়া,বলে কি?আমি কি ওদের ছেড়ে দেবো ভেবেছিস,ঐ যে আমি সেদিন ওদের হুশিয়ারি করে গলা ফাটিয়েছি,তা কি তোর চোখে পড়ে নি।এই এমনি বজ্রকন্ঠ বেজে উঠবে তা আমি জানি।সে তোমরা যায় ভাবো ভুক্তভুগি যখন আমরা সকলি তখন আর আমরা ভিন্ন হব কেন?তাই “আমি” যে বড় একা নয়।

মাতালের মাতলামি কোন স্তরে এসে থেমে যায়,তা আমার জানা নায়।তবে এটুকু জানি,একাত্তর ঘটেছে যে মাতলামিতে আমি সে মাতলামির অনুসারী।আমি দেখি নায় একাত্তর,তবে শুনেছি,পড়েছি,দেখেছি রূপক ছায়ায়।বাংলাদেশ যে স্বাধীন সে কোন মাতালের ঘোরে।আমিও সে মাতাল ঘোরে আজ এ বদ্ধতাকে মুক্ত করি বলে সিদ্ধ ধার্য এক কথার টানে।

আগে যে লেখা”তেলে ভাজা কড়মড়ি” ছড়িয়েছি মুক্ত বনে,তাতে শুধু বাহবা আর অনুশচনা ছাড়া কিছুই দেখিনি।ব্যার্থ আমি!!যে জল গড়ায়ে যাবে মানুষের গন মিছিলে,যে জল ফলিত হবে বিষের গোলাগুলিতে,না…তা আমি পারিনি।তাই সে ব্যার্থকে জয়ী না করে চলেছি আবার,চলবো জনম ধরে বেচে রব যত দিন তরে,কেউ শুনুক আর নায় বা জানুক বজ্র থাকবে কন্ঠ হয়ে।

আমি জানিনা ওদের ক্ষমতা কত গুন,তবে আশে পাশের কানে কানে কত কিছু যে গোল্লাকাহিনী তার টের পেয়েছি বহুগুনে।তবুও সে ভয় পিছে ঠেলে আজ বলব আমি MLM business কি বাংলাদেশে এমনি করে থাকবে আর যাবে? MLM কে খারাপ বলবো না,কারন একে খারাপ বললে অনেক গুলো যুক্তিযুক্ত প্রশ্নের সম্মুক্ষিনে আমাকে জবাব দিতে হবে যুক্তিযুক্ত সমাধানে।আমিও বিস্বাস করি এরও হয়তো অনেক সুফল আছে।

Unipay2u… হ্যা,আমি যতটুকু জানি investment এর ভিত্তিতে এর পদচারনা প্রথম।এদের gold এর ব্যাবসা ছিল বলে এরা জানাতো।কিন্তু সরকার এসে জানলো Gold সব আকাশে,তাও আবার রাত না হলে নাকি দেখা না মেলে।তো কি আর করা নাওয়া-খাওয়া বন্ধ করে আজ Gold দেখবো ভেবে…উফ কি মজা লাগছে।বেচারা কোম্পানি!!আকাশে যখন তাঁরা গজালো ভরি ভরি,মাননীয়দের দেখালো সে সোনার ক্ষনি।সরকার দেখলো সোনা যখন আকাশে,তাও আবার রাত না হলে মেলে,দাড়া সালা হতচ্ছাড়া পিন্ডি নিব কেড়ে।

লোখমুখে শুনেছি unipay2u এর পর revnex সহ আরো কতকগূলো কোম্পানি unipay2u এর চেয়ে বেশি মুনাফা দেখিয়ে business শুরু করেছে।তবে Revnex এর নাম বেশি শুনা যায়।এদের product হল উপটান,চুলের কিছু উপকারি সামগ্রি,চা,ব্লিস,এরকম কিছু প্রডাক্ট নিয়ে যাত্রা শুরু করে এবং কক্সবাজার,সাতক্ষীরাতে চাষ হয়।কৃষিবিদ জাহানারা ইসলাম সিউইড চাষ করেন(কোম্পানির কথা মতে)
www.revnexx.com প্রথমে এই এড্রেস এর মাধ্যমে business শুরু করে,এখানেই সকল তথ্য এবং login এর উপাস্থপন।পরে আরো একটা এড্রেস ওরা ব্যাবহার করে www.revnex.net তারপর ওদের নিজস্ব মেইল ব্যবস্থা চালু করে,যা ছিল একটা সাধু চুরির পরিকল্পনা।

company এর ম্যানেজার ইমতিয়াজ কাশেম রনি, ব্যবস্থাপক পিন্টু বিশ্বাস।আর কোম্পানিটি বিভিন্ন এজেন্টের মাধ্যমে পরিচালনা করা হচ্ছে।বর্তমান যার নাম পাওয়ার এজেন্ট।ইমতিয়াজ কাসেম রনি কে দেখা পাওয়া যেন বড় সৌভাগ্যের ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে।বেটা চোর পুলিশ ভাল খেলতো ছোট বেলায়। আর পিন্টু বিশ্বাস!!ধাপ্পাবাজ কত প্রকার,কি কি সব পাবেন।ধাপ্পাবাজের কোর্সে একমাত্র আদর্শ আমাদের পিন্টু ভাই।পিন্টু ভাই বলে,”স্যার শুনতে আমার ভাল লাগে না,আমাকে ভাই বললে খুশি হয়”আপমি কোন ধরনের চাপাবাজ শিখতে চান সবিই পিন্টু ভাই এর কাছে পাবেন ১০০%।তার কিছু মিটিং-এ গেলে বুঝবেন মাল একটা।

তাদের business এর নিয়মে,আপনি এখানে টাকা invest করছেন না, আপনি টাকা দিয়ে প্রডাক্ট buying করছেন।আপনি তিন উপায়ে এই ব্যাবসা করতে পারবেন,(১)প্রডাক্ট নিজে sell করতে পারবেন(Direct sell), (২)Buy Back… অর্থাত আপনি টাকা দিলে কোম্পানি আপনার প্রডাক্ট গুলো sell করে দিবে।এখানে একটা কথা বলতেই হয়,যাদের কোন প্রডাক্ট নাই বাজারে,তাদের আবার sell?আমার মনে হয় পিন্টুর ………[থাক আর নাই বা বলি বড্ড খারাপ কথা হয়ে যায়।] (৩) MLM…আমার মতে mlm হল হাত দাও টাকা নাও।ভালই তো,তাই না? তাই আজ থেকে আর অন্যের ঘরে চুরি করবো না,হাত চুরি করব,তারপর পিন্টুর মাথায় লাগিয়ে দিব,বেচারার মাথা একদম ফাকা মাঠ।

২০১১ সালের প্রথম দিক থেকে business শুরু করে Revnex..বছরটির মাঝামাঝি সময়ে যখন invest /buying বন্ধ হয়ে গেল,তখন থেকে রেভনেক্স আর টাকা দিতে পারে নি।একের পর এক নিয়ম করে যাচ্ছে কোম্পানিটি।ভুক্তভোগিরা টাকা পাওয়ার জন্য সে সব অবাস্তব নিয়মগুলো মান্য করে যাচ্ছে।প্রত্যেকদিন তাদের মিটিং থাকে,কি যে মিটিং করে কে জানে?আমার মনে হয় ওরা Girl friend নিয়ে কথা বলে,কারন এটাতো একটা cradit এর ব্যাপার।নিজেকে মেয়ে পটানর BOSS সাজাতে কে না চায় বলুন।

এখন আবার B login নামে আরেকটি login অপসন দিছে।অর্থাত আগে যারা টাকা invest করেছিল তারা A login এর অন্তর্ভুক্ত।“আগের business এ লোকসান হয়েছে,তাই B login খোলা হয়েছে।আপনারা নতুন উদ্দমে ব্যবসা শুরু করুন। এখন আর কোন ভয় নেই।একদম নির্দিষ্ট সময়ে আপনাদের লভ্যাংশ পেয়ে যাবেন,আর A login এ যারা ব্যবসা করেছিলেন,তারা আবার invest/buying করুন তবে আমরা আপনাদের টাকা খুব তাড়াতাড়ি দিতে পারবো,আর যদি invest/buying না করেন তবে একটু wait করুন আর চুপ থাকুন”-এই হল পিন্টু ভাই এর কথা।

আমার এ লেখা পড়ে মনে মনে অনেক গালাগালি করেছেন নিশ্চয়,সে গালাগালিতে মাথা পেতে নিলাম,তবে আমরা তো কোন ভুল করি নি।আমরা শুধু বিশ্বাস করেছিলাম,তবে company কে নয়,বিশ্বাস করেছিলাম ব্যাক্তি বিশেষে। হা ব্যক্তি বিশেষে…

এসব ছবিগুলো তাহলে কি সব মিথ্যা? সব তাহলে প্রতারনার কৌশল ছাড়া কিছুই না? সরকার,মিডিয়া কেউ কি কিছুই জানতো না?সবাই কি অন্ধ গুহায় জীবন-যাপন করতো।আর ইমতিয়াজ কাশেম রনি & পিন্টু সে অন্ধ গুহার রাজা ছিল? হায় বাংলাদেশ!! তোমার রক্তের দাম এতটুকুই।রনি আর পিন্টুর রাজ্যে সবাইকে কেমন যেন বস করে তোমাই হীন করা তাদের কাছে খুব সহজ।