ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

০১৭১৭****** এই সেল নাম্বারটা আমার প্রথম নাম্বার ২০০৫ এর দিকে নেয়া। আমার দুনিয়ার সবাই এই নাম্বারটাতেই আমাকে খোঁজে। আমাদের সবগুলা ওয়েবসাইট, আমাদের সব প্রোমোশন, পুরনো বর্তমান সব ক্লাইন্টের কাছেও এই নাম্বার ছিল, এমন কি সব এক্সদের কাছেও। :p (ফান করে বলছি- নাম্বারটা আমার কাছে ভয়ানক মূল্যবান।)

যাইহোক, একদিন হঠাৎ করে দেখি আমার ফোন থেকে কোন নাম্বার ডায়াল করা যাচ্ছে না! যাক ভাবলাম নেটওয়ার্ক-এ প্রবলেম হবে হয়ত। আমি সাধারণত এই নাম্বার দিয়ে ডায়াল কম করি। তাই খেয়ালও করি নাই। কয়েদিন কেটে গেল। ডায়াল করা যাচ্ছেই না। ভাবলাম পুরনো সিম তাই হয়ত সিমটা রিপ্লেস করাই। গেলাম ধানমন্ডি ২৭ এর জিপি সেন্টারে, ওরা আমার সেল নাম্বার দেইখা এমন ভাবেই চমকাইয়া উঠল যেন দিনে দুপুরে ভূত দেখসে। আর আমারে মনে করছে ভূতের বাদশা। যেই মেয়েটা আমাকে সার্ভ করতেছিল সে তার বস কে ডাইকা নিয়ে আইসা কানে কানে এমন ভাবে প্রবলেমটার কথা বলল যেন আমি বোমা দিয়ে জিপি সেন্টার উড়াইয়া দিতে আসছি। :O

যাই হোক, তারা যা বলছিল তার সামারি হচ্ছে আমার ফোনে বিশাল এক সমস্যা হইছে (রোগীর ক্যান্সার হইলে ডাক্তার যেভবে বলে ঐভবে) সমস্যা সমাধান করতে সময় লাগবে। তারা আমাকে জানাবে।

তারপর, দিন যায় রাত যায়। আমার সিম আর ঠিক হয় না। মাস খানেক পরে আমি গ্রামীণফোনের কাস্টমার কেয়ার ফোন দিলাম। তার আমারে বলল, আমার সিম আর কখনোই চালু হবে না BTRC আমার সিম ব্লক করছে। BTRC দের মাস আগে আমার সিম ব্লক করছে আর গ্রামীণফোন আমারে দেরমাস পরে জানাইল! নিজেরে ছ্যাকা খাওয়া প্রেমিক মনে হইল কিছুক্ষণ। (যাইহোক জিপি কাস্টমার কেয়ার থেকে একটা নাম্বার যেনে ফোন করে আমি আমার সিম পুনরায় চালুকরার জন্য আপিল করতে পারব। আমি ঐ নাম্বারে ডায়াল করলাম, ঐ নাম্বার বন্ধ! অ্যাজ এক্সপেটেড। বাংলাদেস টেলি কমিউনিকেন রেগুলেটারি কমিশনের হেল্প লাইনের নাম্বার বন্ধ, আর আমি মনে করছিলাম দেশটা ডিজিটাল হইছে। এইভাবে কয়েদিন ধরেই দেখলাম ঐ নাম্বার অফ। পরে BTRC এর ওয়েব সাইটে গিয়ে দেখলাম ওদের হেল্প লাইনের নাম্বার অন্য একটা গ্রামীণফোন থেকে যে নাম্বারটা দেয়া হইছিল ওইটা ভুয়া! এই হচ্ছে আমাদের তথাকথিত সেরা নেটওয়ার্কের সার্ভিস, আল্লাহ মাফ করুক।

GP-logo

এর পরে শুরু হল BTRC এর হেল্প লাইনের কল সেন্টার এক্সিকিউটিভ দের সাথে আমার প্যচাল। দুই মাসে আমি কম করে ৪০/৫০ বার কল করছি, একি উত্তর স্যার আমরা দেখতেছি। একজনের আমার প্রতি দয়া হইল সে আমারে বলল স্যার আপনি আমাদের অফিসে আসেন, দ্রুত সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে। পরে চিন্তা করলাম এইটাও ট্রাই করে দেখা যাক, গেলাম তাদের অফিসে তিনটা ফ্লোর নিয়ে মৎস্য ভবনের ওইদিকটাতে তাদের অফিস। প্রথম ফ্লোরে গিয়ে দেখলাম দুইজন সিকিউরিটি গার্ড বসে আছে ওখানে!

ভাবলাম ইনফরমেশন ডেস্কে যে বসে সে লাঞ্চে গেছে। গার্ডদের কাছে সমস্যার কথা বললাম সে বলল সমস্যার সমাধান যে করে সে ছয় তলায় বসে। গেলাম ওখানেও দুই জন গার্ড বসে আছে ইনফরমেশনে ওনারা বললেন সাত তলায় যাইতে। গেলাম, ওখানেও গার্ডই বসা; বললেন যে সমস্যা সমাধান করবেন তিনি ছুটিতে আছেন।

আমার মনে প্রশ্নের উদয় হইলঃ

১. বাংলাদেস টেলি কমিউনিকেন রেগুলেটারি কমিশনের ইনফরমেশন ডেস্কে সিকিউরিটি গার্ড বসে যাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং জ্ঞানের পরিধি আমাদের সবারই জানা।

২. বাংলাদেশে মোট মোবাইল ফোন গ্রাহক ১২ কোটির বেশি। এই ১২ কোটি মানুষের সমস্যা সমাধানের জন্য মাত্র একজন মানুষ নিয়োগ করেছে BTRC।

আমি আমার সিমের আসা ছেড়ে দিলাম। মাস খানিক পরে অফিসের কাজে ওখানে আবার গিয়ে শুনলাম নতুন গল্প। তাদের কাছে অ্যাপ্লিকেশন করতে হবে সিম পুনরায় ফিরে পাবার জন্য। আমি মনে মনে ভাবলাম, ৪০/৫০ বার ফোন করে যেই সমস্যার সমাধান পাইলাম না, আর অ্যাপ্লিকেশন লিখে সমধান হবে! হাহ! কোন একদিন দেখবো আমি ধানমণ্ডি মুড়ি খাচ্ছি যেই ঠোঙায়, ঐ ঠোঙা আমার অ্যাপ্লিকেশনের কাগজ দিয়ে বানানো। আমি আবার বেড়িয়ে এলাম আমার সিমের কফিনের শেষ পেরেকটা ঠুকে।

লিফটে নামতে নামতে রবি তে কাজ করে একটা ভাইয়ার সাথে পরিচয় হইল। ওরা বলল এইটা কিছুই না জিপিতে গিয়ে বলেন আমার সিম রিপ্লেস করে দেন। যদি না দিতে চায় বলেন তাইলে প্রেসার দেন বলেন মামলা করবেন। ওকে এইটাও ট্রাই করে দেখা যাক। এক দিন গেলাম, গিয়ে মনে পরল আরে নাহিদ (স্কুলের ক্লোজ ফ্রেন্ড) কাজকরে গ্রামীণফোনে। অরে ফোন দেই। দিলাম। ও তার কলিগকে ফোন করে আমার সমস্যার কথা বলল। ওর কলিগ অনেক হেল্প করল, তার মাধ্যমে আসলে আমি জানতে পারলাম আমার ফোন ব্ল্যাক লিস্টেড, আর নাম্বার ব্ল্যাক লিস্টেড হয় মূলত ভিওআইপির কারণে। আমি আকাশ থেকে মাটিতে পইরা কয়েক হাত নিচে ঢুইকা গেলাম। আমার নাম্বার থেকে ভিওআইপি। যাই হোক, ওরা আশ্বাস দিল নাম্বারটা খুলে দেবার। ফাইনালি থ্যাংকস টু নাহিদ ওর জন্যই আজকে আমি আমার সিমটা ফেরত পাইছি।

ফাইনালি, আমি লেগে ছিলাম তাই সিমটা ফেরত পাইছি। এমন কত হাজার মানুষ আছেন যারা তাদের বহু মূল্যবান সেল নাম্বারটা হারাইছে তার ইয়ত্তা নাই। কত বিজনেস কল আমি মিস করছি শুধু আমি জানি। আমার কথা হইল, আমি গ্রামীণ ফোনের ইউজার, তাদের কোন অধিকার নাই আমাকে না জানিয়ে সিম বন্ধ করার। যদি BTRC করে থাকে তাইলেও তাদের উচিত ছিল আমাকে জানানো। আমার অন্যায়টা কি? আমি কিভাবে আমার সিম ফিরে পাবার জন্য BTRC আপিল করব! কিন্তু আমি কিছুই পাই নাই। এইটা যাই হোক কাস্টমার সার্ভিস কিম্বা ডিজিটালাইজেসন হইল না।

দুঃখিত, লেখাটা অল্প সময়ে লেখা। অসংখ্য বানান ভুল আছে, আমি শিওর। মাফ করবেন।