ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

চট্টগ্রামের বর্তমান পুলিশ কমিশনার তার বিশাল বাহিনী নিয়ে শহরের আবর্জনা পরিস্কার, বিলবোর্ড উচ্ছেদ কার্যক্রম ও ফুটপাত থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ সহ বিভিন্ন কর্মকান্ড আজ চট্টগ্রাম সহ সারাদেশে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত। অতীতে কোন পুলিশ কমিশনারকে এ ধরনের কর্মকান্ডে সাহসী ভূমিকা দেখা যায়নি।কিন্তু তার উদ্যোগ যেন সর্বদা অব্যাহত থাকে তার ব্যবস্থা সরকারকেই নিতে হবে। কারণ প্রতিটি ভালো কাজের পিছনে দুষ্টচক্র বাধা হয়ে দাড়ায় আর সেই বাধা জনগনের ভোগান্তি হয়। যে অপরাধী তার কোন রাজনৈতিক বা সামাজিক পরিচয় থাকতে পারে না সেভাবেই পুলিশকে তার কর্মকান্ড করতে দিতে হবে। বিলবোর্ড উচ্ছেদ কার্যক্রম করতে গিয়ে দেখা যায় ক্ষমতাশালী দুর্দান্ড দাপট দিয়ে বাধা দিচ্ছে। আর ঐ ক্ষমতাশালীদের সহযোগিতা করছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের একশ্রেনীর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা। যার পরিপ্রেক্ষিতে দেখা যায় শহরের অনেকাংশ জুড়ে আজও অবৈধ বিলবোর্ড ঝুলছে যাদের সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তারা মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে বৈধতার লাইসেন্স দিয়েছে। চট্টগ্রাম মেয়রের ময়লা আবর্জনা পরিস্কারের দায়িত্বে ব্যর্থতার কারণে আজ পুলিশ কমিশনার নিজ উদ্যোগে আবর্জনা পরিস্কারের মত সামাজিক দায়িত্ব পালন করছে। পুলিশ চাইলে যেকোন সমাজের দৃশ্য পাল্টাতে পারে এর চেয়ে আর প্রকৃষ্ঠ উদাহরণ হতে পারেনা। পুলিশ কমিশনারের উদ্যোগের কারণে আজ শহরে যানজট কমে গেছে বিশেষ করে ফুটপাত অবৈধ দখলদারদের থেকে মুক্ত হতে পেরেছে এ ধরনের কর্মকান্ড যেন দেশের সব বিভাগ ও জেলা গুলোতে নেয়া তার উদ্যোগ স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় ও সরকারকে নিতে হবে।