ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

সরকারি চাকুরিজীবীদের জন্য সরকার বৈশাখী বোনাস চালু করেছে গত বছর থেকে। এরই মধ্যে বেশ কিছু ব্যাংক, বীমা বেসরকারী কোম্পানী বৈশাখী বোনাস চালু করেছে। আমাদের দেশের জনগণের বেশির ভাগই বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছে। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্ভাসিত সার্বজনীন বৈশাখী উৎসবকে আরও উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে পালনের জন্য বৈশাখী ভাতা চালু করে সরকার। যে উদ্দেশ্যে  আয়োজন এখনও পর্যন্ত সে উৎসব সর্বজনীন উৎসবের রূপ লাভ করতে পারেনি। কারণ যারা বৈশাখী ভাতা পায় তারাই শুধু আনন্দ ভোগ করতে পারে অন্যরা বঞ্চিত হচ্ছে, যা এক দেশে দুই নিয়ম! অথচ আমরা ধর্ম যার যার উৎসব সবার এই মন্ত্রে বিশ্বাসী।

21_Boishakh_Mongol+Sovajatra_140416_0025

বৈশাখ হচ্ছে বাঙালিদের উৎসবের একটি দিন যেখানে সবাই আনন্দ উপভোগ করবে সেটি দেখভাল করার দায়িত্ব রাষ্ট্রযন্ত্রের। কিন্তু রাষ্ট্র সে উৎসব একশ্রেণীর মানুষের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখছে। বিজিএমইএ, এফবিসিসিআই মতো প্রতিষ্ঠানও তাদের অধীনস্থ গার্মেন্টস সংগঠন গুলোকে আজও বৈশাখী ভাতার আওতায় আনতে পারেনি। এমনকি সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের অধীনস্ত বেসরকারী সংগঠনগুলোও বৈশাখী ভাতা প্রদান করছে না- সেদিকেও সরকারের সুদৃষ্টি নেই।

অবিলম্বে সরকার যেন প্রতিটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে বৈশাখী ভাতা প্রদানের নির্দেশনা জারি করে তাতে বৈশাখে পুরো দেশ উৎসবের আনন্দে মেতে উঠবে। তখনই বৈশাখী উৎসব সর্বজনীন উৎসবে পরিণত হবে