ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

চোর তো সবাই, দেশের ভাল তো কেউ চায় না তবে খারাপের মধ্যে ভাল তারেক। কারন সে তরতাজা যুবক। আর যুবকরা পারে দেশটা পাল্টাতে। তাই তারেকের উচিত হবে বিদেশে না থেকে দেশে এসে ধরা দেওয়া। তখন দেখা যাক সরকার কি করে । আর তারেক যদি দেশে থাকে তাহলে আন্দোলন এর আরও গতি বাড়বে। দেশের যে এই মহূর্তে অবস্থা তাতে মনে হয় মিশরের মত বাংলাদেশ হতে পারে কারন সরকার কোন কিছুতেই বিরোধী দলকে ছাড় দিচ্ছে না । যুদ্ধাপরাধী নামে জামায়াতের নেতাদের জেলে পুরে রাখছে প্রায় ১ বছর। এইটা সমস্যা সমাধান হয়নি। এর পর সংবিধান নিয়ে কাটাছেড়া করেছে আর এতে বামদল ডানদল কেউই খুশি হতে পারে নি। শুধু সরকার বলছে আলোচনায় আসুন কিন্ত এই কথায় কি চিরা ভিজবে কারন সরকার তো নিজে সংবিধান পাশ করেছে এর পর আলোচনার কথা বলা যুক্তি কি আছে এই কথা শুধু লোক দেখানোর জন্য । সামনে দুইদিন হরতাল, যে কোন হরতাল দেশের জন্য ক্ষতি কিন্ত মানুষের মনে আজ বড় ছুটির যে আনন্দ দেখলাম তাতে মনে হয় মানুষ হরতালের পক্ষে আর তাতে মনে হয় তারেক যদি দেশে আসে তাহলে হয়তো দেশে একটি বিপ্লব ঘটতে পারে আর হয়তো মিশরের মত বাংলাদেশ হতে পারে। আর তাই সরকারে উচিত হবে জরুরী ভাবে বিরোধী দলের গুলোর সাথে আলোচনা করা যাতে দেশটা রক্ষা পায়।