ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

সিঙ্গাপুর থেকে আনা আমার Samsung S4 Mini মোবাইল সেটটি কিছুদিন আগে নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। ঠিক করাতে পারছিলাম না। গতকাল নিয়ে গিয়েছিলাম নরসিংদী ইনডেক্স প্লাজার তৃতীয় তলায় ‘নয়ন মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টার’ নামের একটি দোকানে। অনেকক্ষণ দেখেশুনে ঘেঁটেঘুটে সার্ভিস বাবদ ৫০০ টাকা দাম হাঁকলো। আমি প্রথমে ৩০০ তারপর ৪০০ বলেও রাজী করাতে পারলাম না। ওদের এক কথা, ৫০০ টাকাই দিতে হবে। অগত্যা ৫০০ টাকাতেই রাজী হলাম। কি আর করা?

Phone

বিকেলে ফোন আনতে গেলাম। ওরা আমাকে ফোন বুঝিয়ে দিল। একটা ট্রায়াল কল দিলাম, বাসায়। হ্যাঁ, ঠিক আছে।

টাকা দিতে গেলাম, ওরা টাকা নিবে না।

কেন?

বিনীত জবাব, “আপনার ফোনে আমরা কোন কাজ করিনি।”

প্রশ্ন করলাম, “তাহলে এটা ঠিক হলো কি করে?”

– “একটা সেটিংস শুধু চেঞ্জ করে দেখেছি, ঠিক হয়ে গেছে। কোন কাজ করতে হয়নি।”

– “তাই বলে টাকা নিবেন না?”

আবারো বিনীত জবাব, “কাজ না করে আমরা টাকা নিতে পারিনা।”

-“কিছু একটা অন্তত নিন!” আমি বকশিস দিতে চাইলাম।

না, ওরা নিবেনা।

কিছুক্ষন ইতস্তত করে চলে এলাম। আসার আগে ভদ্রলোকের হাতটা ধরে ইচ্ছেমত ঝাঁকিয়ে হ্যান্ডশেক করার খুব ইচ্ছে ছিল। নিজের শারীরিক সমস্যার জন্য (আমার হাত ঘামার একটা রোগ আছে, অনেকেই জানেন। ঐ মুহূর্তে প্রচুর ঘামছিল) পারলাম না।

সামনের রাস্তা ধরে হাঁটতে হাঁটতে ভাবছিলাম, এও কি সম্ভব? আজকের এই বাংলাদেশে? আমার সাথে তো ওদের কন্ট্রাক্ট হয়েছিল ৫০০ টাকায়। ওটা দিতে আমি বাধ্যও ছিলাম। যেহেতু আমার ফোন কাজ করছে। ওরা কাজ করেছে কি করে নাই, আমি কোনদিন জানতে পারতাম না। জানতে চাইতামও না।

অথচ এই ফোনটাই কিছুদিন আগে ঢাকায় দু’তিনটা দোকান ঘুরে এসেছে। ৭০০ টাকা খরচ হয়েছে। ওরা রেখেছে। যদিও কাজের কাজ কিছু হয়নি। মোবাইল খুললেই নাকি ওদের টাকা দিতে হয়।

কি বলবো? ওরাও তো ব্যবসায়ী, আর এই ভদ্রলোকও ব্যবসায়ী।