ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

সম্প্রতি ধর্ষণ এমন ভয়াল এক রূপ নিয়েছে যে কোন ভাবেই আর তার রাশ টানা যাচ্ছে না।কেউ এর শিকারে পরিনত হবার পরে আমরা যত কিছুই করি না কেন সেই ক্ষতিটা তো আর পুরণ হবার নয়। সবচে ভাল কি এটাই নয় যে প্রতিকারের চিনতা না করে প্রতিরোধ করার কথা ভাবি। এমন একটা উপায় যাতে ক্ষতি হয়ে যাবার পর নিজেকেও শারিরিক ও মানসিক যন্ত্রনা ভোগ করতে হবে না সেই সাথে সজনকেও দুরভোগ পোহাতে হবে না। আর এমন প্রতিরোধ দেখে আশা করি আর কেউ সে পথে পা বাড়াবেনা। প্রতিরক্ষার সেই হাতিয়ারটি সহজলভ্য,সহজে বহনযোগ্য এবং সুলভ মুল্যের হওয়া আবশ্যক। এবং যে কোন বয়সি মহিলার পক্ষে তা সংগ্রহ করাও হতে হবে সন্দেহাতিত। সত্যিই কি আছে এমন কিছু ? নাকি সেই পণ্য আমদানি করে আমাদের এতগুলো শর্ত পুরণ সুদুর পরাহত। না তা নয়। আছে সেই হাতিয়ার আর আছে হাতের নাগালেও। তা হল মরিচের গুড়া। এটি নিজেকে রক্ষার অনন্য এক উপায়। সাথে রাখুন সব সময়। বিপদ ঘনিয়ে এলে ছিটিয়ে দিন হামলাকারির চোখে। কমপক্ষে আধাঘন্টা চোখে দেখতে পাবেনা আরও বেশি সময় বা দীর্ঘ মেয়াদি ক্ষতিও হতে পারে। সাময়িক বিপদ কাটিয়ে নিরাপদ জায়গায় চলে আসার মত সময় পাওয়া যাবে।