ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা


আসসালামু আলাইকুম।আমি জিনান ফাকিহা-তু-নাজনীন(৮) মনতলা দিশারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী।আমরা চার ভাই-বোন। আমার ছোট বোনের বয়স চার (৪) বছর, ছোট ভাইয়ের বয়স তিন (৩) বছর এবং সবচেয়ে ছোট ভাইটির বয়স ৪৫ দিন।হবিগঞ্জের মাধবপুর থানার গাঙ্গাইল গ্রামে গত ০৭ জানুয়ারি ২০১১ তারিখ রোজ শুক্রবার দিবাগত রাত অনুমানিক ১.০০ ঘটিকা অর্থাৎ ০৮ জানুয়ারি ২০১১ তারিখে সন্ত্রাসীরা আমার বাবা “রিদওয়ানুল মহসিন টিপুকে” আমাদের বসতবাড়িতে ঢুকে নৃশংসভাবে ছুরিকাঘাত করে ও পরবর্তীতে হাত-পায়ের রগ কেটে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে ।এরপর থেকে সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকীতে আমার স্কুলে যাওয়া সম্পূর্ণ রূপে বন্ধ রয়েছে।

আমার মা বিগত ০৯ জানুয়ারি ২০১১ তারিখে মাধবপুর থানায় এ সংক্রান্ত ১টি এজাহার দাখিল করেছে, যার মামলা নম্বর ০৯, তারিখ ০৯ জানুয়ারি ২০১১।উক্ত এজাহারে মাধবপুর থানার পানিহাতা গ্রামের সুধাংশু সেন, সুভাষ সেন ও গাঙ্গাইল গ্রামের হাবিবুর রহমান উরফে তারা মিয়াকে সন্দেহজনকভাবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে (কারন তাদের সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আমার বাবার বিরোধ চলছিল, এমনকি মামলাও চলছে)। পানিহাতা গ্রামের সুধাংশু সেনকে ইতোমধ্যে পুলিশ আটক করেছে। জানা গেছে যে, এ হত্যার সাথে সুধাংশু সেনের সরাসরি সম্পৃক্ততা রয়েছে, তথাপিও প্রায় ১ মাস হতে চলছে পুলিশ ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করতে পারেনি। পানিহাতা গ্রামের সুভাষ সেন ও গাঙ্গাইল গ্রামের হাবিবুর রহমান উরফে তারা মিয়া এখনো পুলিশের ধরা ছোঁয়ার বাইরেই রয়েছে। আরো জানা গেছে যে, গাঙ্গাইল গ্রামের হাবিবুর রহমান উরফে তারা মিয়া ইতোমধ্যে হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন মঞ্জুর করিয়েছে। আপনারা জেনে বিস্মিত হবেন যে, আমার বাবার রক্তের দাগ এখনো শুকায়নি অথচ ক্ষমতাসীন দলের মন্ত্রী/প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থেকে সন্ত্রাসীরা উক্ত হত্যা মামলা ধামাচাপা/ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য নানামুখী তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। প্রায় ১ (এক) মাস পূর্বে সংগঠিত এ চাঞ্চল্যকর ও লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের শাস্তির আওতায় আনা হচ্ছে না। গ্রামের বাড়িতে আমার দাদা-দাদী ও আমরা ৪ ভাইবোনকে এখনো সন্ত্রাসীরা বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। ভয়ে ও আতঙ্কে আমাদেরকে এখনো প্রত্যেকটি রাত নির্ঘুম কাটাতে হচ্ছে।

এমতাবস্থায় আমার শিক্ষাজীবন চরম অনিশ্চয়তার মুখে পরেছে।আমি একজন অসহায় শিশু হিসেবে আপনাদের সকলের সহযোগিতায় আমার বাবা হত্যাকারীদের বিচার চাই। আপনি আপনার পত্রিকায় এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে আমাদের পাশে এসে দাড়ালে প্রশাসন এ বিষয়ে নজর জোরদার করবে বলে আমি আশা করছি।

নিবেদক-
জিনান ফাকিহা-তু-নাজনীন,
ফোন-০১৮৪০২৯৩৪১৭ ,০১৯১৩০২৩৭৬৮, (অনুরোধে)
দিশারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,
চতুর্থ শ্রেণী, রোল-১১,
মনতলা, মাধবপুর, হবিগঞ্জ।