ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

যাহা বলিতাম, সত্য বলিতাম!
১২ মার্চের কাসুন্দি!

তিন তিন বারের সফল প্রধান মন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া! তিনি বললেন জনগন তাকে বার বার নির্বাচিত করেছেন। বেগম জিয়া সত্য বৈ মিথ্যা বলেননি। তিনি মিথ্যা বলতে পারেন না! তবে আফসোস হচ্ছে ১৯৯৬ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারির সেই ইতিহাসের নির্লজ্জ, জঘন্য আর ঘৃণিত নির্বাচন নির্লজ্জের মতই খালেদা জিয়া বিবেচনায় এনেছেন। ১৫ই ফেব্রুয়ারির সেই নির্বাচন জাতি মনে রেখেছে যেমন, খালেদা জিয়াও মনে রেখেছেন একই ভাবে। তবে জাতি যেভাবে বিবেচনায় এনেছেন তিনি সেই ভাবে বিবেচনায় আনেননি।

মজার ব্যাপার হচ্ছে এক সময়ের খালেদা জিয়ার দু চোখের বিষ একুশে টেলিভিশনের পক্ষে আজ অনেক মায়া কান্না করলেন। তিনি বললেন “ একুশে টি ভির লাইভ ব্রডকাস্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একুশে টি ভি নাকি সাহসী ভূমিকা পালন করেছেন”।

খ্যাক- খ্যাক- একটা হাসির ইমো মারার ব্যর্থ চেষ্টা করলাম। একুশে টিভি যদি লাইভ ব্রডকাস্ট করতে না পারে তবে আমি কি ভুল দেখলাম? ম্যাডাম যাহা বলেছেন সবই সত্য বলেননি। সরকার যেভাবে সারা দেশে হরতাল পালন করলেন এটি চরম সত্য। এটাও সত্য বিভিন্ন স্থানে সরকার দলীয় লোকজন জনসমাবেশে আগত লোকদের মার ধর করেছেন। ম্যাডাম এই সরকার কে মইনুদ্দিন- ফকরুদ্দিনের আশীর্বাদ পুষ্ট সরকার বলে অভিহিত করেছেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই মই- ফকু’র জন্মই হয়েছিল এই খালেদা জিয়ার জন্য।

শেয়ার মার্কেট সম্পর্কে যাহা বললেন সেটি ৯০ ভাগ সত্য। তিনি বললেন গরমের শুরুতেই বিদ্যুৎ এর লোড শেডিং শুরু হয়েছে। উনার মুখে বিদ্যুৎ ব্যবস্থার এহেন সংলাপ শুনে আবারও হাসি। জ্বালানি তেলের দাম দফায় দফায় বাড়ছে! ইহাই সত্য। তবে মিথ্যা কী বললেন? সাইদি- নিজামি- আজমদের বাঁচানোর জন্য বেলুন উড়ানো হলেও সেই বেলুনের দিকে ম্যাডাম তাকিয়েছেন আর খিল খিল করে হেসেছেন কেন?

শেষ পর্যন্ত জাতিকে দিল্লিকা লাড্ডু খাওয়ালেন খালেদা। জাতি পেল হরতাল!!!